সোমবার, জুলাই 22, 2024
spot_img

তুরস্কের স্মৃতিস্তম্ভের ভিডিওকে জ্বীন-পরী বন্দী করে রাখার দৃশ্য দাবিতে প্রচার

সম্প্রতি, “বাস্তব জিন দেখেন তুরস্কের স্তাম্বলশহরে জিন পরি নামাজ পড়তে আসে সেখানকার হুজুর এদের বন্দি করে ফেলে” শীর্ষক শিরোনামে তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে অজুরত জ্বীন-পরী আটকে রাখা হয়েছে দাবিতে শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম টিকটকে একটি ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে।

টিকটকে উক্ত দাবিতে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ)।

তুরস্কের

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত ভিডিওটি ইস্তাম্বুলে জিন আটকে রাখার নয় বরং ভিডিওটি তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরের একটি মনুমেন্ট বা স্মৃতিস্তম্ভের, যা ২০১৬ সালে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের বিরুদ্ধে সংঘটিত ব্যর্থ সামরিক ক্যু’তে নিহত সাধারণ তুর্কি নাগরিকদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে নির্মাণ করা হয়েছে।

আলোচিত ভিডিওটির কিছু কী ফ্রেম রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে, steemit নামের ওয়েবসাইটে “Saraçhane monument of July 15” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি নিবন্ধ খুঁজে পায় রিউমর স্ক্যানার টিম।

Source: steemit

উক্ত নিবন্ধ থেকে জানা যায়, ২০১৬ সালের ১৫ জুলাই তুরস্কে রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের বিপক্ষে একটি অভ্যুত্থান অনুষ্ঠিত হয়। সেসময় তুরস্কের সাধারণ জনগণ এই অভ্যুত্থানের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে রাজপথে নামেন। ফলশ্রুতিতে অভ্যুত্থানকারী সামরিক বাহিনীর সদস্যরা নির্বিচারে নিরস্ত্র সাধারণ জনগণের উপর গুলিবর্ষণ করে। 

সিসি ক্যামেরায় সেদিন অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে ইস্তাম্বুল শহরে বিক্ষোভে অংশ নেওয়ার পূর্বে কয়েকজন মানুষের অজু করার দৃশ্য দেখতে পাওয়া যায়। যারা বিক্ষোভে অংশ নেওয়াকে অনিবার্য মৃত্যু মেনে নিয়েছিলেন এবং পবিত্র অবস্থায় মৃত্যুবরণের উদ্দেশ্যে বিক্ষোভে অংশ নেওয়ার জন্য অজু করেছিলেন। পরবর্তীতে, উক্ত অভ্যুত্থানের ঘটনায় তুরস্কের সাধারণ মানুষের আত্মত্যাগকে স্মরণীয় করে রাখতে অজুরত বিক্ষোভকারীদের একটি স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করে ইস্তাম্বুল মিউনিসিপ্যাল কর্তৃপক্ষ।

উক্ত নিবন্ধের সূত্র ধরে, প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে eslam.de নামের ওয়েবসাইটে উক্ত স্মৃতিস্তম্বের একটি ফলকের ছবি খুঁজে পাওয়া যায়।

স্মৃতিস্তম্ভের ফলকে খোদাইকৃত ঘটনা থেকে নিশ্চিত হওয়া যায় যে, ২০১৬ সালে অভ্যুত্থানের প্রতিবাদ করতে গিয়ে নিহত সাধারণ তুর্কি নাগরিকদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে স্মৃতিস্তম্ভটি নির্মিত হয়।

Source: eslam.de

তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের বিরুদ্ধে হওয়া সেই ব্যর্থ সামরিক অভ্যুত্থান নিয়ে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের প্রকাশিত প্রতিবেদন দেখুন আল-জাজিরা।  

মূলত, ২০১৬ সালের ১৫ জুলাই তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ানের বিরুদ্ধে একটি সামরিক অভ্যুত্থান সংঘটিত হয়। উক্ত অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে এরদোয়ানপন্থী সাধারণ তুর্কি নাগরিকরা রাজপথে বিক্ষোভ করলে অভ্যুত্থানকারীদের হামলায় ২৪১জন নিহত হন। পরবর্তীতে, এই অভ্যুত্থানের ঘটনায় নিহতদের স্মরণে ইস্তাম্বুলে একটি স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ করা হয় যেখানে অজুরত বিক্ষোভকারীদের ভাষ্কর্য রয়েছে।  উক্ত স্মৃতিস্তম্ভের অজুরত মানুষের ভাস্কর্যের দৃশ্যকেই তুরস্কে ইস্তাম্বুল শহরে জ্বীন-পরী বন্দী করে রাখার দৃশ্য  দাবিতে শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্লাটফর্ম টিকটকে প্রচার করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, পূর্বেও পাকিস্তানের হাসপাতালে ভূত দেখতে পাওয়ার ভিডিও দাবিতে স্ক্রিপ্টেড একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে সেবিষয়ে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, স্মৃতিস্তম্ভের দৃশ্যকে তুরস্কের ইস্তাম্বুল শহরে জ্বীন-পরী আটকে রাখার দৃশ্য দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img