‘টিলিং টিলিং সাইকেল চলাই’ ভিডিওটি নতুন কারিকুলামের অধীনে শিক্ষক প্রশিক্ষণের অংশ নয়

সম্প্রতি, নতুন জাতীয় শিক্ষা কারিকুলামের বিষয়ে ইন্টারনেটের বিভিন্ন মাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনা দেখেছে রিউমর স্ক্যানার টিম। এর মধ্যেই একটি ভিডিও ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয়েছে যাতে দেখা যাচ্ছে, একটি শ্রেণীকক্ষে একদল নারী-পুরুষের টিলিং টিলিং ছাইকেল চলাই শীর্ষক একটি ছড়া আবৃত্তির মাধ্যমে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। দাবি করা হচ্ছে, এটি বাংলাদেশ সরকারের নতুন শিক্ষা কারিকুলামের জন্য শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের দৃশ্য।

টিলিং

উক্ত দাবিতে ফেসবুকের কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)। 

উল্লিখিত দাবিতে প্রচারিত ফেসবুকের ভাইরাল ৫টি পোস্ট বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, এই প্রতিবেদন প্রকাশ অবধি ভিডিওটি প্রায় ৭৪ লাখ ১৮ হাজার বার দেখা হয়েছে, রিয়েক্ট পড়েছে প্রায় ২ লক্ষ ৩৩ হাজার। এছাড়া, এই পোস্টগুলোতে প্রায় ৬০ হাজার ২০০ পৃথক ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া দেখানো হয়েছে। ভাইরাল পোস্টগুলোর মন্তব্যঘর ঘুরে পোস্টটির দাবির প্রেক্ষিতে অধিকাংশ নেটিজেনকে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানাতে দেখা যায়।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ‘টিলিং টিলিং সাইকেল চলাই’ ভিডিওটি বাংলাদেশের নতুন শিক্ষাক্রমের অধীনে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের কোনো দৃশ্যের নয় বরং ভারতের আসামের শিক্ষক প্রশিক্ষণের এই ভিডিওকে বাংলাদেশের দাবিতে প্রচার করা হয়েছে।

ভিডিওটির কিছু কি ফ্রেম রিভার্স ইমেজ সার্চ করে ফেসবুকে Ratan Lal Saha নামের একটি পেজে আলোচিত ভিডিওটি (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়। 

গত ১৭ নভেম্বর জনাব রতন লাল সাহা ভিডিওটি প্রকাশ করে তার ক্যাপশনে যা লিখেছেন তার সারমর্ম দাঁড়াচ্ছে, এটি মূলত FLN Training প্রোগ্রামে তার প্রশিক্ষণ দেওয়ার ভিডিও।

Screenshot: Facebook

রতন লাল সাহার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট পর্যালোচনা করে দেখা যায় যে, তিনি মূলত ভারতের আসামের আম্বারি শিশুকল্যাণ এলপি স্কুলের (AMBARI SISHUKALYAN LP SCHOOL) একজন শিক্ষক, যিনি আনন্দময় পাঠদানের জন্য বহুল আলোচিত।

তার প্রশিক্ষণ দানের এই ভিডিওটি বাংলাদেশে ভাইরাল হওয়ার পর, বাংলাদেশের একটি ভিডিও শেয়ার (আর্কাইভ) করে তিনি তার পেজে লিখেছেন, “২০২২ সালে আসামে ভাইরাল হওয়ার পর আনন্দদায়ক পাঠের এই ভিডিওটি এবার বাংলাদেশেও ভাইরাল।”

Screenshot: Facebook

এছাড়া, একই ভিডিও সম্বলিত অন্য আরেকটি পোস্ট শেয়ার (আর্কাইভ) করে তিনি লিখেছেন, “আসাম সরকারি স্কুলের প্রথম শ্রেণির চতুর্থ পাঠের টিলিং টিলিং চাইকেল চলাই কবিতার আনন্দময় পাঠটি বাংলাদেশে ভাইরাল হয়েছে।”

Screenshot: Facebook 

পরবর্তীতে ভাইরাল ভিডিওতে থাকা প্রশিক্ষক অর্থাৎ রতন লাল সাহার সাথে যোগাযোগ করেছে রিউমর স্ক্যানার টিম। তিনি আমাদের জানান, আসামের একটি প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে নানা প্রতিকূলতা মোকাবেলা করে জয়ফুল লার্নিং নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। শিক্ষার্থীদের পড়ানোর পাশাপাশি বর্তমানে শিক্ষকদেরও এ বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিচ্ছেন। তাছাড়া, যে ভিডিওটি বাংলাদেশে ভাইরাল হয়েছে, সেটি গত নভেম্বরের ১৬ কিংবা ১৭ তারিখের। এর আগে ২০২২ সালে একই ছড়ার আনন্দময় পাঠদানের অন্য একটি ভিডিও-ও আসামে ভাইরাল হয়েছিল বলে তিনি জানান আমাদের।

অনুসন্ধানে, আসামের প্রথম শ্রেণির বই Ankuran (অংকুরান) প্রথম পাঠের ৪২তম পৃষ্ঠায় টিলিং টিলিং নামের ছড়াটি খুঁজে পেয়েছে রিউমর স্ক্যানার টিম।

Screenshot: Ankuran Book

মূলত, গত ১৭ নভেম্বর ভারতের আসামের শিক্ষক রতন লাল সাহা তার ফেসবুক পেজে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ সংশ্লিষ্ট টিলিং টিলিং চাইকেল চলাই শীর্ষক একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। উক্ত ভিডিওকে সম্প্রতি বাংলাদেশের নতুন শিক্ষা কারিকুলামের প্রশিক্ষণের দৃশ্য দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে; যা সঠিক নয়।

প্রসঙ্গত, একই বিষয়ে ইতোমধ্যে ফ্যাক্টচেক ভিডিও প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।  

সুতরাং, ভারতের আসামের শিক্ষক প্রশিক্ষণের ভিডিওকে বাংলাদেশের নতুন শিক্ষা কারিকুলামের অধীনে শিক্ষক প্রশিক্ষণের ভিডিও দাবি দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।  

তথ্যসূত্র

  • Ratan Lal Saha: Facebook Video 
  • Statement from Ratan Lal Saha, India
  • Rumor Scanner’s own investigation 
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img