শনিবার, এপ্রিল 13, 2024
spot_img

মদ খেয়ে নেশাগ্রস্থ অবস্থায় চিতাবাঘের ঘুরাফেরার দাবিটি মিথ্যা

সম্প্রতি, “দেশী মদ খেয়ে নেশাগ্রস্ত অবস্থায় চিতাবাঘ” শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

মদ

ফেসবুকে প্রচারিত এমনকিছু ভিডিও পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, চিতাবাঘটি মদ খেয়ে নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ঘুরাফেরা করেনি বরং চিতাবাঘটি জলাতঙ্কের সংক্রমণের কারণে মস্তিষ্কের বিরল রোগে আক্রান্ত। যার ফলে চিতাবাঘটি  অচেতন অবস্থায় গ্রামে ঘুরাফেরা করেছিল।

অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে ভারতের NDTV এর টুইটার অ্যাকাউন্টে গত ৩০ আগস্ট প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

১১ সেকেন্ডের ভিডিওটির ক্যাপশন থেকে জানা যায়, ভারতের মধ্যপ্রদেশের একটি গ্রামে অসুস্থ একটি চিতাবাঘ ঘুরে বেড়াচ্ছে।

NDTV তে প্রকাশিত ভিডিওটির সাথে প্রচারিত ভিডিওটির হুবহু মিল পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner

পরবর্তীতে কি ওয়ার্ড সার্চ করে NDTV এর ওয়েবসাইটে গত ৩০ আগস্ট “Sick Leopard Wanders Into Madhya Pradesh Village, This Happens Next” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইকলেরা গ্রামের লোকেরা একটি চিতাবাঘকে হয়রানি করছে এমন একটি ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়ে। ভিডিওটিতে দেখা যাচ্ছে অসুস্থ চিতাবাঘটিকে কিছু মানুষ তাড়া করছে এবং লাল প্যান্ট পরা একজন ব্যক্তি চিতাবাঘের পিঠে বসে আছে। চিতাবাঘটিকে মধ্যপ্রদেশের দেওয়াস জেলার ইকলেরার কাছে জঙ্গলে ঘুরে বেড়াতে দেখা গেছে। কিছু গ্রামবাসী প্রথমে ভয় পেয়ে যায়। কিন্তু যখন তারা দেখেছিল যে চিতাটি অলস এবং আক্রমণাত্মক নয়, তখন তারা বুঝতে পারে বাঘটি অসুস্থ।

একই তারিখে THE NEW INDIAN EXPRESS এর ওয়েবসাইটে “Locals in MP village try to ride on ailing leopard; animal rescued and hospitalised” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত আরেকটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

এই প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ভারতের মধ্যপ্রদেশের দেওয়াস জেলায় একটি অসুস্থ বন্য চিতাবাঘকে একদল গ্রামবাসী ঘিরে ফেলে বাঘটির সাথে তারা সেলফি তুলেছে এবং বাঘটির উপর চড়ার চেষ্টা করেছে। মঙ্গলবার (২৯ আগস্ট) দেওয়াসের ইকলেরা গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। পরবর্তীতে বন বিভাগ চিতাবাঘটিকে উদ্ধার করেছে। এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, প্রাণীটি মস্তিষ্কের কিছু ব্যাধিতে ভুগছে বলে সন্দেহ করা হচ্ছে। বুধবার গুরুতর অবস্থায় ইন্দো শহরের একটি চিড়িয়াখানায় ভর্তি করা হয়েছিল। প্রাণীটি জীবনের জন্য লড়াই করছে।

অসুস্থ চিতাবাঘটির চিকিৎসার দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক ডা. উত্তম যাদব ভারতীয় গণমাধ্যম আজতক বাংলাকে বলেন, চিতাবাঘটি ক্যানাইন ডিস্টেম্পার ভাইরাস বা জলাতঙ্কের সংক্রমণের কারণে মস্তিষ্কের বিরল রোগে আক্রান্ত। 

অর্থাৎ, বাঘটি নেশাগ্রস্থ অবস্থায় নয় অসুস্থ অবস্থায় ঘুরাফেরা করছিল।

মূলত, ভারতের মধ্যপ্রদেশের ইকলেরা গ্রামে একটি চিতাবাঘকে ঘুরাফেরা করতে দেখে গ্রামবাসীরা লাঠিসোঁটা দিয়ে এগিয়ে যায়। কিন্তু, বাঘটিকে আক্রমণ করতে না দেখে তাঁরা বাঘটির সাথে সেলফি তুলে এবং উপরে চড়তে চেষ্টা করে। পরবর্তীতে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘বাঘটি দেশী মদ খেয়ে অচেতন অবস্থায় ঘুরাফেরা করছে’ শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। তবে অনুসন্ধানে জানা যায়, চিতাবাঘটি জলাতঙ্কের সংক্রমণের কারণে মস্তিষ্কের বিরল রোগে আক্রান্ত হয়ে অচেতন অবস্থায় গ্রামে ঢুকে পড়ে। বাঘের এই আচরণের সাথে মদ খেয়ে নেশা করার কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

সুতরাং, মদ খেয়ে নেশাগ্রস্ত অবস্থান চিতাবাঘের ঘুরাঘুরি দাবিতে প্রচারিত এই তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img