শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দলে ফিরছেন না তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস 

সম্প্রতি, অধিনায়ক নাজমুল হাসান শান্ত’র আবেদনের প্রেক্ষিতে ক্রিকেটার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দলে ফিরছেন দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে। 

টিকটকে প্রচারিত এমন ভিডিও দেখুন এখানে(আর্কাইভ), এখানে(আর্কাইভ)

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায় যে, ক্রিকেটার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দলে ফিরছেন না। দলের অধিনায়ক নাজমুল হাসান শান্তও তামিম ও ইমরুলকে দলে ফেরানোর বিষয়ে কোনো আবেদন করেছেন বলে জানা যায়নি। প্রকৃতপক্ষে, কোনো নির্ভরযোগ্য তথ্যসূত্র ছাড়াই আলোচিত ভিডিওটি প্রচার করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতেই একাধিক প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড সার্চ করেও আলোচিত দাবির বিষয়ে কোনো সত্যতা খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

পরবর্তীতে, প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে, যমুনা টিভির ওয়েবসাইটে গত ১৮ মার্চ “চমক রেখে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম টেস্টের স্কোয়াড ঘোষণা করলো বিসিবি” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

Source: Jamuna TV

উক্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায় বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কার মধ্যে অনুষ্ঠিতব্য টেস্ট সিরিজকে সামনে রেখে ১৫ সদস্যের টেস্ট স্কোয়াড ঘোষণা করেছে বিসিবি। উক্ত স্কোয়াডের সদস্যরা হলেন নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), জাকির হাসান, মাহমুদুল হাসান জয়, সাদমান ইসলাম, লিটন কুমার দাস, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম, শাহাদাত হোসেন দীপু, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাঈম হাসান, তাইজুল ইসলাম, শরিফুল ইসলাম, সৈয়দ খালেদ আহমেদ, মুশফিক হাসান ও নাহিদ রানা।

অর্থাৎ, শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট স্কোয়াডে ওপেনার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েসকে রাখা হয়নি।

উল্লেখ্য, আলোচিত ভিডিওটি প্রচারিত হওয়ার পর গত ১৮ মার্চ অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ ও শ্রীলঙ্কার মধ্যকার তৃতীয় ওডিআই ম্যাচের স্কোয়াডেও ছিলেন না তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস।

২০২৩ সালের ৬ জুলাই অকস্মাৎ আন্তজার্তিক ক্রিকেটকে বিদায় জানান ওপেনার তামিম ইকবাল। তার অবসর ক্রিকেট মহলে জন্ম দেয় নানা আলোচনা-সমালোচনার। পরবর্তীতে ১ দিনের মধ্যেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অনুরোধে অবসরের ঘোষণা প্রত্যাহার করেন তামিম ইকবাল। তবে অবসরের সিদ্ধান্ত থেকে ফিরলেও তাকে সেসময়ের পর থেকে এখন পর্যন্ত আর জাতীয় দলের খেলতে দেখা যায়নি।

সম্প্রতি বিপিএল ২০২৪ আসরে তামিম ইকবাল সর্বোচ্চ রান করে টুর্নামেন্ট সেরা হওয়ার পর পরই চাঙ্গা হয় তাকে জাতীয় দলে ফেরানোর দাবি। 

তবে, এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত গণমাধ্যমে প্রকাশিত একাধিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে জানা যায় তামিম ইকবালের আন্তজার্তিক ক্রিকেটে ফেরার বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছতে পারে নি কোনো পক্ষই। বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের সাথে আলোচনার পরই এ বিষয়ে সিধান্ত নেওয়া হবে বলে প্রতিবেদনগুলোতে জানানো হয়। 

এ সংক্রান্ত কিছু প্রতিবেদন দেখুন-

এসব প্রতিবেদন থেকে স্পষ্টতই প্রতীয়মান হয় যে অবসর ভেঙে ক্রিকেটার তামিম ইকবালের আন্তজার্তিক ক্রিকেটে ফেরার বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি।

পরবর্তীতে, আলোচিত ভিডিওতে প্রচারিত বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের ভিডিও ফুটেজটির ব্যাপারে আলাদাভাবে অনুসন্ধান চালায় রিউমর স্ক্যানার টিম।

ভিডিও যাচাই

প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে, News 24 sports এর ইউটিউব চ্যানেলে ২০২৪ সালের ৭ মার্চ “তামিমের মতো ওপেনার বাংলাদেশেই নাই: পাপন | News24 Sports” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

উক্ত ভিডিওর একটি অংশের সাথে আলোচিত ভিডিওতে প্রচারিত ফুটেজের মিল খুঁজে পাওয়া যায়। 

Comparison Image By Rumor Scanner

উক্ত ভিডিওতে নাজমুল হাসান পাপন শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টি টুয়েন্টি সিরিজে সাকিব, তামিম, মুশফিকের মতো সিনিয়র প্লেয়ার ছাড়াই বাংলাদেশ যেভাবে খেলছে তার প্রশংসা করেন। এছাড়াও তিনি এও বলেন, তামিমের মত ওপেনার দেশে আর নেই।

মূলত, গত ৭ মার্চ বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কা টি টুয়েন্টি সিরিজ চলাকালীন দলের সিনিয়র খেলোয়াড়দের ছাড়াই দলের ভালো খেলার প্রশংসা করেন বিসিবি সভাপতি এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রী নাজমুল হাসান পাপন। তার সে বক্তব্যের একটি ভিডিও ফুটেজ ব্যবহার করেই সম্প্রতি “অধিনায়ক নাজমুল হাসান শান্ত’র আবেদনের প্রেক্ষিতে ক্রিকেটার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দলে ফিরছেন” শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে, তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েসকে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চলমান সিরিজে বাংলাদেশ জাতীয় দলে ফেরানোর বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।

সুতরাং, অধিনায়ক নাজমুল হাসান শান্তর আবেদনের প্রেক্ষিতে ক্রিকেটার তামিম ইকবাল ও ইমরুল কায়েস শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ দলে ফিরছেন দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচারিত তথ্যটি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img