ওমান ট্রেনবিহীন বিশ্বের একমাত্র দেশ নয়

সম্প্রতি, ‘ওমান পৃথিবীর একমাত্র দেশ যে দেশে কোন ট্রেন নেই’ শীর্ষক দাবিতে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

ওমান

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ওমানই বিশ্বের একমাত্র দেশ নয় যে দেশে ট্রেন নেই বরং বিশ্বের আরও কয়েকটি দেশে ট্রেন বা রেলওয়ে নেই।

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে নামের ভারতীয় গণমাধ্যম India Today এর ওয়েবসাইটে ২০২৩ ‘Countries without Raiway Network’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

উক্ত প্রতিবেদনে রেলওয়ে না থাকা দেশের তালিকায় ভুটান, মালদ্বীপ, পাপুয়ানিউগিনি, সলোমন দীপপুঞ্জ, পূর্ব তিমুর, মোনাকো, অ্যান্ডোরা ও সেন ম্যারিনোর নাম পাওয়া যায়।

তাছাড়া, যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যম Mirror এর ওয়েবসাইটে চলতি বছরের জানুয়ারিতে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, আইসল্যান্ডে কোনো পাবলিক রেলওয়ে নেই। দেশটির চরম আবহাওয়া, তুষারঝড় ইত্যাদি প্রতিকূলতার কারণে এখানে পাবলিক রেলওয়ে বানানো লাভজনক নয়। তাছাড়া, রেলওয়েতে বিশাল পাহাড় ও আগ্নেয়গিরি মোকাবেলা করে চলা লাগবে যা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ। তবে, গত শতাব্দীতে আইসল্যান্ডে কিছু রেললাইন বানানো হয়েছিল। সেগুলো মূলত শিল্পকাজে ও মালামাল যাতায়াতে ব্যবহার হয়েছে। এগুলো বেশিদিন টিকে নি। বেশ কয়েকবার চেষ্টা করা হলেও সেগুলো বেশিদিনের জন্য বাস্তবায়িত হয়নি।

এছাড়াও, যুক্তরাজ্যের গণমাধ্যম Express এর ওয়েবসাইটে ২০২৪ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি ‘The 10 biggest countries in the world without a single train station or railway line’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

উক্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, লিবিয়া, চাঁদ, সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক, ইয়েমেন, পাপুয়া নিউগিনি, ওমান, আইসল্যান্ড ও ভুটানে রেলওয়ে নেই।

উক্ত প্রতিবেদনে এসব দেশে রেলওয়ে না থাকার কারণ হিসেবে কম জনসংখ্যা, দারিদ্রতা ও প্রাকৃতিক বিষয়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এছাড়া, লিবিয়াতে ১৯৬৫ সাল থেকে চালু রেলপথ নেই। সেখানে পরবর্তীতে রেলপথ চালু করার কথা থাকলেও ২০১১ সালে গৃহযুদ্ধের কারণে তা আলোর মুখ দেখেনি।

চাঁদে ২০১২ সালে রেলওয়ে নির্মাণের পরিকল্পনা থাকলেও দুর্বল অবকাঠামো ও বিভিন্ন সীমাবদ্ধতার কারণে তা বাস্তবায়িত হয়নি।

সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিকে ২০০২ সালে ক্যামেরুন থেকে CAR এর রাজধানী পর্যন্ত একটি রেললাইন প্রস্তাবিত ছিল, কিন্তু বর্তমানে দেশে কোনো রেললাইন নেই।

দুর্বল অবকাঠামো ও অনুন্নত রাস্তাঘাটের ইয়েমেনে বর্তমানে কোনো রেলওয়ে নেই। যদিও সেখানে সরকার রেলওয়ে নির্মাণের পরিকল্পনা করেছে।

তাছাড়া, ভারতীয় গণমাধ্যম The Economic Times এ ২০২৩ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ‘Maldives to Kuwait: Countries without a railway network’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, অ্যান্ডোরা, ভুটান, কুয়েত, সান মেরিনো, কুয়েত, মালদ্বীপ, মেনাকো, লিবিয়া ও সাইপ্রাসে রেলওয়ে নেই।

এসবের দেশের কোনো কোনোটিতে রেলওয়ের পরিকল্পনা থাকলেও তা পরবর্তীতে অর্থনৈতিক ও অন্যান্য কারণে বাস্তবায়িত হয়নি। তাছাড়া এসব দেশের কোনটিতে পূর্বে রেলওয়ে থাকলেও বর্তমানে তা বন্ধ আছে।

অর্থাৎ, উপরিউক্ত বিষয়গুলো পর্যালোচনা করলে এটা স্পষ্ট যে, ওমানই একমাত্র দেশ নয় যেখানে ট্রেন বা রেলওয়ে নেই। 

মূলত, সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের বিভিন্ন পেজ, গ্রুপ ও ব্যাক্তিগত অ্যাকাউন্ট থেকে প্রচারিত একাধিক পোস্টে দাবি করা হয়েছে, ওমান পৃথিবীর একমাত্র দেশ, যে দেশে কোন ট্রেন নেই। রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, দাবিটি সঠিক নয়। ওমানই বিশ্বের একমাত্র দেশ নয় যে দেশে ট্রেন নেই। প্রকৃতপক্ষে বিশ্বের আরও কয়েকটি দেশ আছে যেখানে ট্রেন নেই।

উল্লেখ্য, ওমানের  সোহার থেকে আবুধাবির সাথে দ্রুতগতির রেলওয়ে নেটওয়ার্ক বাস্তবায়নের কাজ শুরু হয়েছে। এখানে যাত্রীবাহী ট্রেনগুলো ঘন্টায় দুইশত কিলোমিটারের বেশি গতিতে  আবুধাবি থেকে সোহারে পৌঁছাবে মাত্র ১০০ মিনিটে। আর সোহার থেকে ছেড়ে আল আইনে পৌছতে লাগবে মাত্র ৪৭ মিনিট।

সুতরাং, ওমান পৃথিবীর একমাত্র দেশ, যে দেশে কোন ট্রেন নেই শীর্ষক দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img