শনিবার, এপ্রিল 13, 2024
spot_img

নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ খুনোখুনিতে ৪৬০ জন নিহতের বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রচার

সম্প্রতি ‘নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ খুনোখুনি, ৪৬০ মৃত্যু‘ শীর্ষক শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত উক্ত পোস্টটি দেখুন এখানে(আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ খুনোখুনির ঘটনায় ৪৬০ জনের মৃত্যু হয়নি বরং রাশিয়ার সামরিক অভিযানে ৪৬০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত হওয়ার অভিযোগ ওঠেছে এবং অধিক ভিউ পাবার আশায় কোন দেশ তা উল্লেখ না করে চটকদার শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে বিভ্রান্তির উদ্দেশ্যে উক্ত দাবিটি প্রচার করা হচ্ছে। 

গত ২৮ এপ্রিল News Plus নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে ‘নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ খুনোখুনি, ৪৬০ মৃত্যু’ শীর্ষক শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়। 

Screenshot: Facebook

ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায়, এটি কয়েকটি প্রতিবেদন নিয়ে তৈরি একটি নিউজ বুলেটিন ভিডিও। ৭ মিনিট ০২ সেকেন্ডের এই ভিডিওটিতে ৩ মিনিট ৪৫ সেকেন্ডের সময়ে রাশিয়ার সামরিক অভিযানে ৪৬০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহতের বিষয়ে বলা হয়। এবিষয়ে সংবাদ পাঠ ৩ মিনিট ৪৫ সেকেন্ড থেকে শুরু হয়ে ৪ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড পর্যন্ত চলে। 

এবিষয়ে বিস্তারিত সংবাদে বলা হয়, “রাশিয়ার আক্রমণকারী দলগুলি আর্টিওমভস্কে (ইউক্রেনীয় নাম বাখমুত) ইউক্রেনীয় সৈন্য এবং ভাড়াটে সৈন্যদের ধ্বংস করে চলেছে যখন প্যারাট্রুপার এবং সাউদার্ন ব্যটালগ্রুপ ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযানের সময় গত দিনে তাদের সমর্থন প্রদান করেছে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ বুধবার রিপোর্ট করেছেন। রাশিয়ান বাহিনী গত ২৪ ঘন্টায় কুপিয়ানস্ক এলাকায় ৪০ জনেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনা, একটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান ও দুটি মোটর গাড়ি, ক্রাসনি লিমানে ৬৫ জন ইউক্রেনীয় সেনা, একটি আকাতসিয়া মোটরচালিত আর্টিলারি বন্দুক, একটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, একটি পিকআপ ট্রাক, একটি মোটর গাড়ি ও একটি ডি-২০ হাউইটজার, ডোনেৎস্ক এলাকায় প্রায় ৩০০ ইউক্রেনীয় সেনা, দুটি পদাতিক যুদ্ধ যান, চারটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, সাতটি মোটর গাড়ি, ডি-২০ এবং এমস্টা-বি হাউইটজার, একটি আকাতসিয়া মোটরচালিত আর্টিলারি বন্দুক এবং একটি যুক্তরাজ্যের তৈরি এল১১৮ হাউইটজার ধ্বংস করেছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।”

উক্ত প্রতিবেদনের সূত্র ধরে প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে মূলধারার গণমাধ্যম দৈনিক ইনকিলাবের অনলাইন সংস্করণে ‘বাখমুতে রুশ অগ্রযাত্রা অব্যাহত, ৪৬০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহত’ শীর্ষক শিরোনামে গত ২৭ এপ্রিল প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot dailyinqilab

প্রতিবেদনে বলা হয়, “রাশিয়ার আক্রমণকারী দলগুলি আর্টিওমভস্কে (ইউক্রেনীয় নাম বাখমুত) ইউক্রেনীয় সৈন্য এবং ভাড়াটে সৈন্যদের ধ্বংস করে চলেছে যখন প্যারাট্রুপার এবং সাউদার্ন ব্যটালগ্রুপ ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযানের সময় গত দিনে তাদের সমর্থন প্রদান করেছে, প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট-জেনারেল ইগর কোনাশেনকভ বুধবার রিপোর্ট করেছেন। রাশিয়ান বাহিনী গত ২৪ ঘন্টায় কুপিয়ানস্ক এলাকায় ৪০ জনেরও বেশি ইউক্রেনীয় সেনা, একটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান ও দুটি মোটর গাড়ি, ক্রাসনি লিমানে ৬৫ জন ইউক্রেনীয় সেনা, একটি আকাতসিয়া মোটরচালিত আর্টিলারি বন্দুক, একটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, একটি পিকআপ ট্রাক, একটি মোটর গাড়ি ও একটি ডি-২০ হাউইটজার, ডোনেৎস্ক এলাকায় প্রায় ৩০০ ইউক্রেনীয় সেনা, দুটি পদাতিক যুদ্ধ যান, চারটি সাঁজোয়া যুদ্ধ যান, সাতটি মোটর গাড়ি, ডি-২০ এবং এমস্টা-বি হাউইটজার, একটি আকাতসিয়া মোটরচালিত আর্টিলারি বন্দুক এবং একটি যুক্তরাজ্যের তৈরি এল১১৮ হাউইটজার ধ্বংস করেছে,’ মুখপাত্র বলেছেন।”

রিউমর স্ক্যানার যাচাই করে দেখেছে, দৈনিক ইনকিলাবে প্রকাশিত উক্ত প্রতিবেদনটি দাবিকৃত ভিডিওতে প্রতিবেদনের শেষ অংশ পর্যন্ত হুবহু পাঠ করা হয়েছে। 

অন্যদিকে প্রচারিত ভিডিওটি’র ৪ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের সময়ে নারায়ণগঞ্জের ৭ খুনের ঘটনায় ৯ বছর পূর্ণ হওয়ার বিষয়ে বলা হয়। এবিষয়ে সংবাদ পাঠ ৪ মিনিট ৫১ সেকেন্ড থেকে শুরু হয়ে ৫ মিনিট ৫৫ সেকেন্ড পর্যন্ত চলে।

রিউমর স্ক্যানার যাচাই করে দেখেছে, উক্ত বিষয়ে সংবাদ পাঠের অংশটি মূলধারার গণমাধ্যম নয়া দিগন্ত’র অনলাইন সংস্করণে ‘নারায়ণগঞ্জে ৭ খুনের ৯ বছর : চোখের পানিতে নিহতদের স্মরণ’ শীর্ষক শিরোনামে গত ২৭ এপ্রিল প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে হুবহু পাঠ করা হয়েছে।

Screenshot: Naya Dinganta

পাশাপাশি দেশীয় কিংবা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বা অন্যকোনো সূত্রে নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ খুনোখুনিতে ৪৬০ জনের মৃত্যু সম্পর্কিত কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

অর্থাৎ, প্রচারিত ভিডিও’র বিস্তারিত প্রতিবেদন এবং এবিষয়ে গণমাধ্যমের প্রতিবেদন পর্যালোচনা করলে এটা স্পষ্ট যে, নারায়ণগঞ্জে খুনোখুনিতে ৪৬০ জনের মৃত্যুর দাবিটি সঠিক নয়। 

মূলত, সম্প্রতি রাশিয়ার সামরিক অভিযানে ৪৬০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহতের ঘটনা ঘটে। তবে বাংলাদেশের একটি নিউজ বুলেটিন ভিডিওতে উক্ত ঘটনার সাথে নারায়নগঞ্জে ৯ বছর আগে সংঘঠিত ৭ খুনের ঘটনার নিহতদের আত্মীয়দের স্মরণের অন্য একটি সংবাদ যুক্ত করে ‘নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ খুনোখুনি, ৪৬০ মৃত্যু’ শীর্ষক শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে প্রচার করা হয়। প্রকৃতপক্ষে চটকদার ক্যাপশন ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে অধিক ভিউ পাবার আশায় উক্ত দাবিতে ভিডিওটি প্রচার করা হয়েছে। 

উল্লেখ্য, ক্যাপশন এবং থাম্বনেইলে চটকদার শিরোনাম ব্যবহার করে বিভিন্ন সময় বিভ্রান্তিকর তথ্য প্রচার করা হচ্ছে। এসব ঘটনা নিয়ে পূর্বেও ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, রাশিয়ার সামরিক অভিযানে ৪৬০ ইউক্রেনীয় সেনা নিহতের ঘটনা এবং নারায়ণগঞ্জের ৭ খুনে নিহতদের আত্মীয়দের স্মরণ করার বিষয় দুটোকে উক্ত নিউজ বুলেটিন ভিডিও’র ক্যাপশন ও থাম্বনেইলে শুধুমাত্র ‘নারায়ণগঞ্জে ভয়াবহ খুনোখুনি, ৪৬০ মৃত্যু’ লিখে প্রচার করা হচ্ছে; যা বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img