টিকটকার লায়লা গ্রেফতার হননি, প্রায় বিশ লাখ ভিউ পেয়েছে ভুয়া দাবি

গত ১৪ জুন টিকটকে একটি ভিডিও প্রকাশ করে দাবি করা হচ্ছে, লায়লাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ ও ভিডিও শেয়ারিং মাধ্যমে টিকটকার আব্দুল্লাহ আল মামুন ওরফে প্রিন্স মামুনের সাথে কন্টেন্ট বানিয়ে ইন্টারনেটে নিয়মিত আলোচনায় থাকেন টিকটকার লায়লা আক্তার ফারহাদ।

টিকটকে প্রচারিত ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

এই প্রতিবেদন প্রকাশের সময় উক্ত ভিডিওটি বিশ লক্ষেরও অধিক বার দেখা হয়েছে। ৬২ হাজারেরও অধিক পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওটিতে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, টিকটকার লায়লাকে গ্রেফতার করা হয়নি বরং বোরকা পরে আদালতে এসে মামুনের বিষয়ে বক্তব্য দেওয়ার দাবিতে প্রচারিত একটি ভিডিও ব্যবহার করে ভুয়া এই দাবি প্রচার করা হয়েছে।

এই বিষয়ে অনুসন্ধানে অনলাইন ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম বাংলাদেশ টাইমস এর ফেসবুক পেজে চলতি বছরের গত ১১ জুন তারিখে প্রচারিত মূল ভিডিওটি খুঁজে পাওয়া যায়। টিকটকে প্রচারিত ভিডিওটিতে ভিডিওটির ব্যাকগ্রাউন্ডে থাকা রিপোর্টারের কণ্ঠে “বাংলাদেশ টাইমস” প্ল্যাটফর্মটির নামের উল্লেখ শুনেও এই বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়।

Comparison : Rumor Scanner

উক্ত ভিডিওটিতে দেখা যায়, বোরকা পরে কোনো এক ভবনের সিঁড়ি দিয়ে পুলিশের নিরাপত্তায় নিচে নেমে আসেন লায়লা। মূল ভিডিওটিতে রিপোর্টারের কন্ঠে মামুনের গ্রেফতারের বিষয় উল্লেখ করা হলেও লায়লার গ্রেফতারের বিষয় উল্লেখ করা হয়নি। তাছাড়া, ভিডিওটির শিরোনামে বলা হয়েছে, “বোরকা পরে আদালতে এসে মামুনের বিষয়ে যা বলছেন লায়লা, সরাসরি”। লায়লাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে মর্মে কিছু বলা হয়নি৷ উল্লেখ্য ভিডিওটি ফেসবুক থেকে সরাসরি সম্প্রচারিত হয়েছিল। ভিডিওটিতে লায়লাকে উল্লেখ্য ভবনটি থেকে নিচে নেমে এসে দাঁড়াতে দেখা যায়। তবে, মূল ভিডিওটি লায়লার বক্তব্যের আগেই সমাপ্ত হয়ে যাওয়ায় লায়লার বক্তব্য শোনা সম্ভব হয়নি। তবে, উক্ত পেজে একই দিন রাতে সাংবাদিকদের সাথে লায়লার বক্তব্যের আলাদা আরেকটি ভিডিও প্রচার করা হয় যেখানে মামুন ও মামুনের আত্মীয় দ্বারা লায়লার সাথে ঘটাসহ নানা বিষয় লায়লা শেয়ার করেন। ৷ 

লায়লার গ্রেফতারের দাবির বিষয়ে অধিকতর নিশ্চিত হতে বাংলাদেশের প্রথম সারির কোনো গণমাধ্যমে এমন কোনো সংবাদের সত্যতা পাওয়া যায়নি।

তাছাড়া, ১১ জুন তারিখে ধারণকৃত ফেসবুক লাইভ ভিডিওকে লায়লার গ্রেফতার ভিডিও দাবি করা হলেও, তার পরবর্তী সময়ে গত ১৫ জুন তারিখে নাগরিক টিভির ইউটিউব চ্যানেলে লায়লার একটি সাক্ষাৎকার ভিডিও প্রকাশ করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ৯ জুন টিকটকার প্রিন্স মামুনের বিরুদ্ধে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন টিকটকার লায়লা। অতঃপর, গত ১০ জুন রাত সাড়ে ৯টার দিকে কুমিল্লার পুলিশ প্রিন্স মামুনকে গ্রেফতার করে। 

মূলত, গত ১১ জুন বোরকা পরে আদালতে এসে মামুনের বিষয়ে লায়লা যা বলছেন শীর্ষক শিরোনামে বাংলাদেশ টাইমস নামক একটি অনলাইন সংবাদমাধ্যম থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে সরাসরি একটি ভিডিও সম্প্রচার করা হয়। উক্ত ভিডিওটির ফুটেজ ব্যবহার করে কোনোরকমের তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই টিকটকার লায়লাকে গ্রেফতার করা হয়েছে দাবিতে শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে টিকটকার লায়লা গ্রেফতার হননি।

সুতরাং, টিকটকার লায়লাকে গ্রেফতার করা হয়েছে শীর্ষক দাবিটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img