রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

ভিডিওটি ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুতে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে প্রতিশোধ নিতে তৈরি সামরিক সরঞ্জামের নয়

গত ১৯ মে ইরান-আজারবাইজানের যৌথ উদ্যোগে নির্মিত একটি বাঁধের উদ্বোধন করা শেষে ফেরার পথে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে নিহত হন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। ঐ হেলিকপ্টারে তার সাথে সফরসঙ্গী হিসেবে থাকা দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আব্দোল্লাহিয়ানসহ সব আরোহী নিহত হয়েছেন। এরই প্রেক্ষিতে সম্প্রতি শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে একটি ভিডিও প্রচার করে দাবি করা হচ্ছে, “ইব্রাহিম রাইসির হত্যার জবাবে চীন রাশিয়া পাকিস্তান উত্তর কোরিয়ার সামরিক বাহিনী তৈরি | যে কোনও সময় ইজরায়েলে ভয়ংকর হামলা”।

ইব্রাহিম

উক্ত দাবিতে টিকটকে প্রচারিত ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)। 

এই প্রতিবেদনটি প্রকাশ হওয়া অবধি ভিডিওটি ১ লক্ষেরও অধিক বার দেখা হয়েছে। ১০ হাজার ৬ শত এরও অধিক পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওটিতে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমার স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি ইরানের সদ্য প্রয়াত প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে চীন, রাশিয়া, পাকিস্তান ও উত্তর কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর সমন্বয়ে তৈরি কোনো যুদ্ধ সরঞ্জামের দৃশ্যের নয়, বরং এটি লিবিয়ার অপারেশন ডিগনিটির দশম বার্ষিকী উপলক্ষে সামরিক কুচকাওয়াজের দৃশ্য যা ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর আগেই ধারণ করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতি অবলম্বন করে ১৬ মে ২০২৪ তারিখে “⭕️ مباشر | العرض العسكري بمناسبة الذكرى العاشرة لعملية الكرامة . #ليبيا #” শিরোনামে শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে একই স্থানের আলাদা কোণ থেকে ধারণ করা একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। উক্ত টিকটক ভিডিওটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে ভাষান্তরিত করে জানা যায়, আলোচিত দৃশ্যটি লিবিয়ার অপারেশন ডিগনিটির দশম বার্ষিকী উপলক্ষে সামরিক কুচকাওয়াজের ভিডিও। 

Comparison : Rumor Scanner 

তাছাড়া, ১৯ মে ২০২৪ তারিখে উক্ত স্থানের আলাদা কোণ থেকে ধারণ করা অন্য আরেকটি ভিডিও এক্সে (সাবেক টুইটার) পোস্ট হতে দেখা যায়। উক্ত এক্স ভিডিওটির ক্যাপশনেও ভিডিওটিকে লিবিয়ার সেনাবাহিনীর দৃশ্য দাবি করা হয়।

Comparison : Rumor Scanner

অধিকতর নিশ্চিত হতে উক্ত বিষয়ে অনুসন্ধান অব্যাহত রাখলে লিবিয়া সিকিউরিটি মনিটর নামের লিবিয়ার নানা বিষয় সম্পর্কে সংবাদ প্রকাশ করা একটি ওয়েবসাইটে ১৬ মে ২০২৪ তারিখে “HAFTAR ANNOUNCES MILITARY CITY TO BE BUILT” শিরোনামে উক্ত বিষয়ে একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। প্রতিবেদনটি পড়ে জানা যায়, অপারেশন ডিগনিটি শুরুর দশম বার্ষিকী উপলক্ষে গত ১৬ মে তারিখে লিবিয়ার Benghazi-Benina এ একটি কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়। 

পাশাপাশি লিবিয়ার নানা বিষয় নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করা ওয়েবসাইট The Libya Update এর একটি প্রতিবেদন পড়েও উক্ত সময়ে লিবিয়ায় একটি কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হওয়ার ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়া যায়।

তাছাড়া, গত ১৯ মে ইরান-আজারবাইজানের যৌথ উদ্যোগে নির্মিত একটি বাঁধের উদ্বোধন করা শেষে ফেরার পথে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে নিহত হন ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি। অপরদিকে আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি তারও তিনদিন আগে অর্থাৎ ১৬ মে তারিখে টিকটকে প্রচার হতে দেখা যায়। ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর আগেই ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে সামরিক বাহিনী গঠন করার কোনো সুযোগ নেই। 

মূলত, গত ১৯ মে তারিখে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি নিহত হন। কিন্তু, লিবিয়ার সেনাবাহিনীর কুচকাওয়াজের দাবিতে তারও আগে প্রচারিত একটি ভিডিওকে ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে ইসরায়েলে হামলা করতে চীন, রাশিয়া,পাকিস্তান ও উত্তর কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর তৈরি যুদ্ধ সরঞ্জামের ভিডিও দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে।

সুতরাং, ভিন্ন ঘটনার ভিডিওকে ইব্রাহিম রাইসির মৃত্যুর প্রতিশোধ নিতে ইসরায়েলে হামলা করতে চীন, রাশিয়া, পাকিস্তান ও উত্তর কোরিয়ার সামরিক বাহিনীর তৈরি যুদ্ধ সরঞ্জামের দৃশ্য  দাবিতে প্রচার করা হয়েছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img