ছবিটি একটি নদীরই, গভীরতার তারতম্যের কারণে পানির রঙ দুইরকম

সম্প্রতি দুইটি রঙের পানি সম্বলিত জলধারার একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করে দাবি করা হচ্ছে, “সিলেটের লালাখালে দুই নদীর পানি একসাথে কখনোই মিশে না।” 

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ছবির দৃশ্যটি দুইটি নদীর নয় বরং এটি একটি নদীরই দৃশ্য। প্রকৃতপক্ষে, গভীরতার তারতম্যের কারণে নদীর পানি দুইরকমের রঙ ধারণ করে থাকে। ছবিটি সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার লালাখালের সারি গোয়াইন নদীর। 

অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতি অবলম্বন করে ভিন্ন ভিন্ন কোণ থেকে ধারণকৃত একই স্থানের বেশ কিছু ছবি এবং ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। ২০২২ সালে Ashiknama নামের একটি চ্যানেলে “সারি নদী, লালাখাল, সিলেট Sari River, Lalakhal, Sylhet” শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও এর ড্রোন ভিউ এর সাথে আলোচিত ছবিটির মিল খুঁজে পাওয়া যায়৷ 

Comparison : Rumor Scanner

তাছাড়া, স্টক ছবি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান Getty Image এর ওয়েবসাইটেও একই স্থানের ভিন্ন আঙ্গিকে তুলা আরেকটি ছবি খুঁজে পাওয়া যায়৷ ছবিটির শিরোনামে এটি বাংলাদেশের লালাখালের জিরো পয়েন্ট নামের স্থান থেকে তুলা। 

Comparison : Rumor Scanner

অতঃপর, উক্ত স্থানে কতটি নদী আছে এবং নদীর দুইরকম রঙ ধারণ করার বিষয়ে জানতে রিউমার স্ক্যানার টিম যোগাযোগ করে স্থানীয় সাংবাদিক এবং মূলধারার দৈনিক সংবাদপত্র ইত্তেফাকের জৈন্তাপুর প্রতিনিধি নাজমুল ইসলামের সাথে। 

নাজমুল ইসলাম জানান, উক্ত স্থানে একটি নদীই আছে৷ নদীটির নাম সারি নদী৷ নদীটির গভীরতার তারতম্যের কারণে নদীটি দুই রঙের পানি প্রবাহিত করে৷ নদীটির এক পাশ দিয়ে নীল স্বচ্ছ পানি প্রবাহিত হয় এবং অপর পাশ দিয়ে সাদা পানি প্রবাহিত হয়৷ তুলনামূলক গভীর স্থানের পানি নীল রঙ ধারণ করে এবং তুলনামূলক কম গভীর স্থানের পানি সাদা রঙ ধারণ করে থাকে। তাছাড়া, স্রোতেরও তারতম্য উক্ত স্থানে লক্ষ্য করা যায়৷

এছাড়া, Hannan Miah নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ২০২২ সালে “Lalakhal in Sylhet, Bangladesh (লালাখাল) 2022” শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। ভিডিওটির থাম্বনেলে ব্যবহৃত ছবির সাথে আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ছবির স্থানের মিল খুঁজে পাওয়া যায়। 

Comparison : Rumor Scanner

ভিডিওটিতে উক্ত নদীর পানি ও রঙ অত্যন্ত নিকট থেকে দেখা সম্ভব হয় এবং লক্ষ্য করা যায়, অগভীর স্থানের তলদেশে থাকা বালুর তামাটে রঙ ও তুলনামূলক কম পানির সংমিশ্রণে নদীর এক পাশের পানি সাদা রঙ ধারণ করেছে এবং উপর থেকে তলদেশ দেখা সম্ভবপর না হওয়া তুলনামূলক গভীর অপর পাশের পানি নীল রঙ ধারণ করেছে৷ ভিডিওটিতে সাদা রঙের পানির উপর দিয়ে মানুষকে দিব্যি হাঁটতে দেখা যায় এবং খালিচোখেই পানির তলদেশের বালুকণা দেখা যায়। অপরদিকে নীল রঙের পানিতে মানুষকে সাঁতার কাটতে ও ইঞ্জিনচালিত নৌকার চলাচল দেখা যায়৷

Screenshot : YouTube 

তাছাড়া, DH Travelling Info নামের আরেকটি জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেলে ২০২৪ সালের ৪ জানুয়ারি তারিখে “Lalakhal Sylhet | বাংলার নীলনদ লালাখাল সিলেট | জাফলং – লালাখাল একদিনের সিলেট ভ্রমণ তথ্য” শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও এর ৭ মিনিট ৩০ সেকেন্ড থেকে ভিডিও নির্মাতাকে নদীটির দুইটি রঙের পানি দেখাতে দেখা যায়। পানির নিকটবর্তী জায়গা থেকে দৃশ্য ধারণ করার ফলে পানির গভীরতা পরিষ্কারভাবে দেখা সম্ভবপর হয়। দেখা যায়, অগভীর স্থানের তলদেশের বালু খালিচোখেই দৃশ্যমান এবং উক্ত স্থানের পানির রঙ সাদা বা তামাটে। অপরদিকে তুলনামূলক গভীর স্থানের পানির রঙ নীল।

Screenshot : YouTube

মূলত, সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার লালাখাল এলাকার স্বচ্ছ পানির সারি নদী একটি জনপ্রিয় পর্যটন এলাকা। নদীটির এক পাশ তুলনামূলক গভীর এবং অন্যপাশ তুলনামূলক অগভীর। গভীরতর স্থানটিতে পানি নীল রঙ ধারণ করে থাকে এবং অগভীর স্থানের পানি সাদা বা তামাটে রঙ ধারণ করে থাকে। ভালো সময়ে অগভীর স্থানটির তলদেশের বালুকণাও খালিচোখে দেখা সম্ভব হয়ে থাকে৷ গভীরতার এই তারতম্যের কারণেই একই নদী হওয়া সত্ত্বেও পানির রঙের মধ্যে তারতম্য দেখা যায়।

অর্থাৎ, আলোচিত ছবিটি দুইটি আলাদা নদীর মর্মে প্রচারিত দাবিটি মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img