কামরুন্নাহার জেসিকা নামক কাল্পনিক ব্যক্তির নাম উদ্ধৃত করে ভুয়া গল্প প্রচার

সম্প্রতি “স্বামী একদিন অফিসে যাবার আগে আমাকে তার জুতা মুছে দিতে বলায় তার সংসারকে লাথি দিয়ে কাবিনের টাকা নিয়ে চলে এসেছিলাম। বর্তমানে আমি একজন সফল বিমানবালা ; স্বাবলম্বী ও ক্ষমতাধর নারী। এখন আমি বিমানে প্রথম শ্রেনীর যাত্রীদের জুতা খুলে-পরিয়ে দিয়ে, খাবার-মদ পরিবেশন করে, ব্যবহৃত টিস্যু পরিষ্কার করেই লাখ টাকা কামাই করি” শীর্ষক শিরোনামের একটি ছবি সম্বলিত তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারিত হচ্ছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এরকম কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। 
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, উক্ত ঘটনাটি সত্য নয় বরং ইন্টারনেট থেকে শ্রীলঙ্কান বিমানবালার ছবি সংগ্রহ করে কাল্পনিক ঘটনাটি প্রচার করা হচ্ছে।

গুজবের সূত্রপাত

অনুসন্ধানে আনন্দবাজার বিশ্ববিদ্যালয় পুরুষ নারীবাদী সমিতি শীর্ষক শিরোনামের ফেসবুক পেজে গত ৯ ডিসেম্বর উক্ত বিষয়ে পোস্ট পাওয়া যায়। উক্ত পোস্টে ছবির সাথে কামরুন্নাহার জেসিকা নামক একজন বিমানবালার নাম উদ্ধৃত করে উক্ত ঘটনাটি বর্ণনা করা হয়।

পরবর্তীতে, উক্ত পোস্টের সূত্র ধরেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তথ্যটি ছড়িয়ে পড়ে। 

তথ্যযাচাই

অনুসন্ধানে, আনন্দবাজার বিশ্ববিদ্যালয় পুরুষ নারীবাদী সমিতি ফেসবুক পেজটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, এটি একটি সার্কাজম পেজ। নারীবাদ বিষয়ক বিভিন্ন সার্কাজম পোস্ট করা হয়।

এছাড়াও, রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে ‘Pinterest’ এর ওয়েবসাইটে Cozy 4649 নামক আইডিতে Sri Lankan Airlains Cabin Crew শীর্ষক শিরোনামের একটি ছবি পাওয়া যায়। উক্ত ছবির সাথে ফেসবুকে প্রচারিত ছবিটির হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়। 

এছাড়া বিস্তর অনুসন্ধানে, SirLankan Airlines এর ওয়েবসাইটে বিমানবালার ছবি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, উক্ত ছবির সাথে শ্রীলঙ্কান বিমানবালার পোশাকের সম্পূর্ণ মিল রয়েছে।

অর্থাৎ, উক্ত ঘটনার সাথে ব্যবহৃত ছবিটি বাংলাদেশের কামরুন্নাহার জেসিকা নামক কোনো ব্যক্তির নয় বরং ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করা একজন শ্রীলঙ্কান বিমানবালার ছবি।

পরবর্তীতে, গুগল, বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং ফ্যালকন এয়ারলাইন্সের ওয়েবসাইট অনুসন্ধান করে ফ্যালকন এয়ারলাইন্সে কর্মরত নারীবাদী নেত্রী ও মোটিভেশনাল বক্তা কামরুন্নাহার জেসিকা নামের কারো অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি।

এছাড়াও, ফ্যালকন এয়ারলাইন্সের ওয়েবসাইট পর্যবেক্ষণ করে জানা যায়, এটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের একটি বিমান পরিবহন সংস্থা। ফ্যালকন এয়ারলাইন্স বাংলাদেশের একটি ওয়েবসাইট পাওয়া গেলেও উল্লেখযোগ্য কোনো তথ্য উক্ত ওয়েবসাইটে পাওয়া যায়নি।

মূলত, আনন্দবাজার বিশ্ববিদ্যালয় পুরুষ নারীবাদী সমিতি নামক ফেসবুকের একটি ট্রল পেজ থেকে কামরুন্নাহার জেসিকা নামক ফ্যালকন এয়ারলাইন্সের বিমানবালা পরিচয়ের একজন কাল্পনিক ব্যক্তির নাম উদ্ধৃত করে ইন্টারনেট থেকে সংগৃহিত শ্রীলঙ্কান বিমানবালার একটি ছবি ব্যবহার করে উক্ত ঘটনাটি ভিত্তিহীনভাবে প্রচার করা হয়। পরবর্তীতে ফেসবুকের বিভিন্ন পেজ এবং গ্রুপে উক্ত ঘটনাটি ছড়িয়ে পড়ে।

সুতরাং, কামরুন্নাহার জেসিকা নামক কাল্পনিক ব্যক্তির নাম উদ্ধৃত করে উক্ত ঘটনাটি প্রচার করা হচ্ছে ; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img