শনিবার, মে 18, 2024
spot_img

ঢাবির সমাবর্তন ঘিরে রিকশাচালকের ছবির সাথে ভুয়া গল্প সংযুক্ত করে প্রচার

সম্প্রতি “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় চোখে পড়ল এই রিকশা ওয়ালা মামা’কে।” শীর্ষক শিরোনামের পোস্টে একজন রিকশাচালকের একটি ছবি যুক্ত করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

যা দাবি করা হচ্ছে

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলোর ক্যাপশনে বলা হয়, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় চোখে পড়ল এই রিকশা ওয়ালা মামা’কে। সামনে গিয়ে প্রশ্ন করলাম এভাবে কি দেখেন মামা? উত্তরে সে আমাকে বলল মামা “উনাগো আনন্দ দেখি, আমার একটা মাইয়া আছে এইবার এইচএসসি পরীক্ষা দিতাছে, আমার খুব সখ আমার মাইয়াডারেও এমন কালা পোশাকে এমনে দেখমু! দেহেন মামা কত সুন্দর লাগতাছে হে’গোরে! আমার মাইয়ারেও এমন সুন্দর লাগব” আমার ভিটা মাটি বেইচা দিয়া আমি ঢাকায় আইছি মাইয়াডার লিগা, বলেই তিনি কেঁদে দিলেন! বাবা রা এমন ই হয়।”

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এখানে
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এখানে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ঢাবি ক্যাম্পাসে তোলা রিকশাচালকের ছবির সঙ্গে সংযুক্ত ক্যাপশনের গল্পটি সত্য নয় বরং উক্ত ছবির সাথে একটি কল্পিত বানোয়াট গল্প যুক্ত করে প্রচার করা হচ্ছে।

যেভাবে অনুসন্ধান

ফেসবুক মনিটরিং টুল ব্যবহার করে “বেলা বোস” নামের ফেসবুক পেজে উক্ত পোস্টটি গত ১৯ নভেম্বর দুপুরে প্রথম প্রকাশ হতে দেখা যায়। পোস্টে রিকশাচালকের ছবিটির ফটোগ্রাফার হিসেবে ‘Prottoy’ নামক এক ব্যক্তির নাম উল্লেখ করা হয়। একইসাথে ক্যাপশনটির লেখক হিসেবে ‘নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক’ উল্লেখ করা হয়।

ছবিটির ফটোগ্রাফারের নামের সূত্র ধরে ফেসবুকে এডভান্স সার্চ পদ্ধতিতে একাধিক কিওয়ার্ড ব্যবহার করে অনুসন্ধানের এক পর্যায়ে ‘Castway On The Moon-COTM’ নামক একটি গ্রুপে ‘Fahim Rahman Prottoy’ নামক একটি অ্যাকাউন্ট থেকে গত ১৯ নভেম্বর সকালে প্রকাশিত একাধিক ছবি সম্বলিত “DU on eve of convocation” শিরোনামের একটি পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়। 

উক্ত পোস্টের একাধিক ছবির মধ্যে আলোচিত ছবিটিও খুঁজে পাওয়া যায়। তবে ছবিটির আলাদা কোনো ক্যাপশন ছিল না।

পরবর্তীতে ‘Fahim Rahman Prottoy’ এর সাথে যোগাযোগ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। জনাব প্রত্যয় রিউমর স্ক্যানারকে জানান, “গল্পটি সম্পূর্ন মিথ্যা। রিকশাচালকের সাথে আমি কোনো কথাই বলিনি। এই প্রশ্নের উত্তর দিতে দিতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। আমি একজন স্ট্রিট ফটোগ্রাফার। বিভিন্ন সময়ে আমার তোলা ছবি এভাবে নানারকম গল্প জুড়ে দিয়ে পেইজগুলো বিভ্রান্ত করে দেয় আমাকে। আমার ওয়াটারমার্ক মুছে দেয়। প্রচন্ড বিরক্ত লাগে। মাঝে মাঝে ইচ্ছে করে ছবি তোলাই বন্ধ করে দেই।”

অর্থাৎ, প্রত্যয় তার তোলা ছবিটি আপলোড করার সময়ে এতে কোনো ক্যাপশন দেননি। এমনকি ঐ রিকশাচালকের সাথে তার কোনো কথাই হয়নি। অথচ, ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলোর প্রথম লাইনটি লক্ষ্য করলে দেখা যায়, সেখানে লেখা, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় চোখে পড়ল এই রিকশা ওয়ালা মামা’কে।” অর্থাৎ, উক্ত ক্যাপশনের মাধ্যমে ঐ রিকশাচালককেই বোঝানো হচ্ছে। কিন্তু ছবিটির ফটোগ্রাফারই বলছেন, রিকশাচালকের সাথে তার কোনো কথাই হয়নি। 

গল্পটির সূত্রের খোঁজে

গল্পটির সূত্রের খোঁজে ফেসবুক মনিটরিং টুলের সূত্র ধরে আলোচিত পোস্টটির প্রথম প্রকাশকারী ‘বেলাবোস’ নামক পেজের এডমিনের সাথে যোগাযোগ করে রিউমর স্ক্যামার টিম। এডমিন প্যানেল থেকে রিউমর স্ক্যানারকে জানানো হয়, তারা অন্য একটি গ্রুপ থেকে উক্ত ছবি ও গল্প সংগ্রহ করেছে। ওই গ্রুপ সম্পর্কে জানতে চাইলে তারা কোনো সদুত্তর দিতে পারেনি।

মূলত, স্ট্রিট ফটোগ্রাফার ফাহিম রহমান প্রত্যয় ঢাবির ক্যাম্পাসে সমাবর্তন কেন্দ্রিক বেশ কিছু ছবি তোলার সময় একজন রিকশাচালকের আলোচিত এই ছবিটি তোলেন। ছবিটি তিনি কোনো ক্যাপশন ছাড়াই গত ১৯ নভেম্বর সকালে একটি ফেসবুক গ্রুপে পোস্ট করেন। পরবর্তীতে উক্ত ছবিটির সাথে একটি কাল্পনিক গল্প যুক্ত করে এটিকে রিকশাচালকের বাস্তব গল্প দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে। কিন্তু প্রত্যয় রিউমর স্ক্যানারকে জানান, ছবিটি তোলার সময় তার সাথে রিকশাচালকের কোনো কথাই হয়নি এবং তিনি এমন কোনো ক্যাপশনও ছবিটির সাথে জুড়ে দেননি।

প্রসঙ্গত, রিউমর স্ক্যানার টিম পূর্বেও ছবির সঙ্গে ভুয়া গল্প জুড়ে দেওয়া পোস্ট শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

সুতরাং, ঢাবির টিএসসিতে রিকশাচালকের ছবির সাথে সংযুক্ত গল্পটি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

  • Catsaway on The Moon- DU on eve of convocation.
  • ফাহিম রহমান প্রত্যয়ের রিউমর স্ক্যানারকে দেওয়া বক্তব্য 
  • বেলা বোস পেজের এডমিনের রিউমর স্ক্যানারকে দেওয়া বক্তব্য 
RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img