শনিবার, এপ্রিল 13, 2024
spot_img

এটি মুসলিম প্রেমিক কর্তৃক হিন্দু প্রেমিকাকে হত্যার কোনো ঘটনার ছবি নয়

সম্প্রতি ‘ সংবাদ জানাচ্ছে মেয়েটির নাম বিনীতা। বাড়ি রাজস্থান। মেয়েটি এক ফল বিক্রেতার সাথে প্রেম করে বাইশ দিন ধরে ঘর ছাড়ে। বাইশ দিন পরে তার প্রেমিক তাকে খুন করে এভাবেই বস্তাবন্দী করে মোটর বাইকে করে নিয়ে যাচ্ছিল। ঘটনাক্রমে মেয়েটির পা বেরিয়ে যায়। একজন গাড়ি চালক সেটা দেখে ছবি তুলে পুলিশকে খবর দেয়।‘ শীর্ষক দাবিতে একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও টুইটারে প্রচার করা হচ্ছে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

মুসলিম প্রেমিক দাবিতে একই বিষয়ে ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)। 

টুইটারে প্রচারিত এমন একটি টুইট দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রচারিত ছবিটি ভারতের রাজস্থানে মুসলিম প্রেমিক কর্তৃক তার হিন্দু প্রেমিকাকে খুন করে বস্তাবন্দি করে বাইকে নিয়ে যাওয়ার কোনো ঘটনার নয় বরং এটি মিশরের কায়রোর একটি ঘটনা এবং ছবিতে মোটরসাইকেল চালক বস্তাবন্দি কোনো মৃতদেহ বহন করছেন না বরং তিনি কাপড় মোড়ানো একটি ম্যানিকুইন বহন করছিলেন।

দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে মিশর ভিত্তিক গণমাধ্যম Cairo24 এর ওয়েবসাইটে গত ২ জুন ‘After the publication of Cairo 24, the Ministry of Interior revealed the truth about a photo of a dead body on a motorcycle on a public road‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: Cairo24 

প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, আলোচিত ছবিটি মিশরের কায়রো থেকে গত মে মাসের ২৭ তারিখ ধারণ করা, যা মূলত দোকানে কাপড় প্রদর্শনের জন্য ব্যবহৃত একটি ম্যানিকুইন। 

Screenshot: Cairo24 

কায়রো২৪ এর  প্রতিবেদনে প্রদত্ত তথ্যানুযায়ী, একটি তৈরী পোশাক দোকানের মালিক তার মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান থেকে একটি ভাস্কর্যকে কায়রোর মোকাত্তাম এলাকায় পৌঁছে দিতে একটি পরিবহন কোম্পানিকে দায়িত্ব দেয়। পরবর্তীতে পরিবহন কোম্পানিটি মোটর সাইকেলে করে এই ভাস্কর্য বা ম্যানিকুইনটি পরিবহন করে নিয়ে যাওয়ার সময় এটির একটি পা বের হয়ে আসে। 

উক্ত ছবিটির সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে  বিনীতা নামের এক হিন্দু মেয়ের খুন হওয়ার দাবিতে প্রচারিত ছবিটির মিল খুঁজে পাওয়া যায়। 

পরবর্তীতে তথ্যটি নিয়ে অধিকতর অনুসন্ধানে মিশরের BG Collection নামে একটি শপিং স্টোরের ফেসবুক পেইজে গত ৩০ মে আলোচিত ছবিটি সহ একটি ফেসবুক পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: BG Collection Facebook Post 

আরবি ভাষায় প্রদত্ত পোস্টটির শিরোনামটি ইংরেজিতে অনুবাদ করে দেখা যায়, ‘This is the men of our stores when you wanted to move a mannequin from Gamal Abdel Nasser branch to Mokattam.

Manager: You guys will know how to behave and move the mannequin, or you will shame us the men of the shop.’ অর্থাৎ জামাল আব্দেল নাসের থেকে মোকাত্তামে একটি ম্যানিকুইন নিয়ে যাচ্ছে এক কর্মচারী। ম্যানেজার: তোমরা কি জানো, কিভাবে ম্যানিকুইনকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় হস্তান্তর করতে হয়? 

উক্ত পোস্টটি ছাড়াও একই পেইজে আলোচিত এই ছবিটি নিয়ে আরও একাধিক ছবি খুঁজে পাওয়া যায়। এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে

Image Collage: Rumor Scanner 

এসব পোস্ট থেকে প্রতীয়মান হয়, উল্লেখিত ঘটনাটির সাথে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া দাবিটির কোনো সম্পৃক্ততা নেই।

পাশাপাশি watanserb নামের মিশরীয় আরেকটি ওয়েবসাইটে গত ৩ জুন ‘The owner of the image of the corpse on a “motorcycle” that worried the Egyptians breaks his silence and reveals a surprise!‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে মৃতদেহ সদৃশ বস্তুটি বহনকারী মোটরসাইকেল চালক মুহাম্মদ নাসরের একটি সাক্ষাৎকারও খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot: watanserb

প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, মিশরীয় গণমাধ্যম কায়রো২৪কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মুহাম্মদ নাসর বলেন, তিনি মৃতদেহ সদৃশ যে বস্তুটি বহন করছিলেন সেটি আসলে একটি ম্যানিকুইন। তার ডেলিভারি অ্যাপে একজন কাস্টমারের অনুরোধে তিনি এই ম্যানিকুইনটি ডেলিভারি করছিলেন। 

অপরদিকে অনুসন্ধানে সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের রাজস্থানের বিনীতা নামের কোনো মেয়ের প্রেমিকের হাতে খুন হওয়া ও প্রেমিক কর্তৃক মোটরসাইকেলে করে মৃতদেহ বহন সম্পর্কিত কোনো ঘটনার অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি।

মূলত, মিশরের জামাল আব্দেল নাসের থেকে মোকাত্তামে একটি কাপড়ের দোকানের জন্য মোটরসাইকেলে করে ম্যানিকুইন ডেলিভারি করে নিয়ে যাচ্ছিলেন একটি পরিবহন কোম্পানির ডেলিভারিম্যান৷ এই সময় ম্যানিকুইনটির একটি পা বের হয়ে আসে। রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, সেই মুহূর্তের ধারণকৃত একটি ছবিকেই সম্প্রতি ভারতের রাজস্থানের বিনীতা নামের কোনো মেয়ের ভিন্ন ধর্মী প্রেমিকের হাতে খুন হওয়া ও প্রেমিক কর্তৃক মোটরসাইকেলে করে মৃতদেহ বহন সম্পর্কিত ঘটনা দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। 

সুতরাং, মিশরের একজন ডেলিভারিম্যানের মোটরসাইকেলে করে ম্যানিকুইন ডেলিভারি করার মুহূর্তের একটি ছবিকে ভারতে ভিন্ন ধর্মী প্রেমিক কর্তৃক প্রেমিকাকে খুন করে লাশ বহনের দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img