রবিবার, জুলাই 21, 2024
spot_img

ভারত থেকে বাংলাদেশে পানি প্রবেশের ভিডিও দাবিতে চীন ও ইকুয়েডরের ভিডিও প্রচার

সম্প্রতি, প্রবল বর্ষণের ফলে ভারতের চেরাপুঞ্জি এবং সিকিম রাজ্যের পানি উজান থেকে বাংলাদেশে নেমে আসায় সিলেটসহ দেশের উত্তরাঞ্চলে বন্যার আশংকা তৈরি হয়েছে। ইতোমধ্যেই দেশের সিলেট অঞ্চলের অধিকাংশ এলাকা বন্যা কবলিত হয়েছে। এরই মাঝে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভারত থেকে বাংলাদেশে পানি আসার ভিডিও দাবিতে দুটি পৃথক ভিডিও প্রচার করা হয়েছে।

ভারত থেকে বাংলাদেশে

ফেসবুকে প্রচারিত ভিডিও দুটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

এই প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়া অবধি ফেসবুকে প্রচারিত উক্ত দাবির একটি ভিডিওই দেখা হয়েছে প্রায় ৩০ লাখ ৫০ হাজার বার। এছাড়াও ভিডিওটিতে প্রায় ৬২ হাজার পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়াও দেখানো হয়েছে। পাশাপাশি ভিডিওটি ৭ হাজার বার শেয়ার করা হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রচারিত ভিডিগুলো ভারত থেকে বাংলাদেশে পানি প্রবেশের কোনো ঘটনার নয়। প্রকৃতপক্ষে, চীনের টাইগার লিপিং গর্জ নামের একটি পর্যটন কেন্দ্র এবং ইকুয়েডরের সাম্প্রতিক বন্যায় তৈরি হওয়া পাহাড়ি ঢলের একটি ভিডিওকে ভারত থেকে বাংলাদেশে নেমে আসার পানির দৃশ্য দাবিতে প্রচার করা হয়েছে।

ভিডিও যাচাই ১

আলোচিত দাবিতে প্রচারিত প্রথম ভিডিওটি অনুসন্ধানে @EyeFood-uf6nn ইউজারনেমের একটি ইউটিউব চ্যানেলে গত ১৫ জুন You must go to the Tiger Leaping Gorge in Shangri La The Tiger Leaping Gorge in Shangri La is a gre শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একই ভিডিওটি খুঁজে পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner

ভিডিওর শিরোনাম থেকে জানা যায়, এটি টাইগার লিপিং গর্জ নামের একটি স্থানের ভিডিও।

পরবর্তীতে উক্ত তথ্যের সূত্র ধরে কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে trillionareelife নামের একটি ইন্সটাগ্রাম আইডিতে টাইগার লিপিং গর্জ-এর আরেকটি ভিডিওর সন্ধান পাওয়া।

Screenshot: Instagram

ভিডিওটি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, এর সাথে আলোচিত ভিডিওর স্থানের মিল রয়েছে। এছাড়াও ভিডিওটির শিরোনাম থেকে জানা যায়, টাইগার লিপিং গর্জ মূলত চীনের ইউনান প্রদেশের জিনশা নদীর দ্বারা তৈরি একটি গিরিখাত। পাহাড়ের ‍উপরের দিকে অবস্থিত ইয়াংসি নদীর প্রাথমিক একটি উপনদী এই জিনশা নদী। 

কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে Yunnan Exploration নামের একটি ওয়েবসাইটে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, টাইগার লিপিং গর্জ একটি জনপ্রিয় পর্যটর কেন্দ্র। এছাড়াও একাধিক প্ল্যাটফর্মে টাইগার লিপিং গর্জ-এর ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। (ইউটিউব), (ফেসবুক)।

ভিডিও যাচাই ২

আলোচিত দাবিতে প্রচারিত দ্বিতীয় ভিডিওটির উৎস অনুসন্ধানে রির্ভাস ইমেজ সার্চের মাধ্যমে ইকুয়েডরের টেলিভিশন চ্যানেল TC Television এর ভেরিফাইড ইন্সটাগ্রাম অ্যাকাউন্টে গত ১৮ জুন প্রচারিত একটি সংবাদ প্রতিবেদনের ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner

ভিডিওটি পর্যালোচনা করে দেখা যায়, উক্ত ভিডিওর একটি অংশই আলোচিত দাবিতে প্রচার করা হয়েছে। পরবর্তীতে উক্ত পোস্টের ক্যাপশন গুগল ট্রান্সলেটরের সহায়তায় অনুবাদের মাধ্যমে জানা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে ইকুয়েডরের ১০ টি প্রদেশে প্রায় ৫৪ বার ভারী বর্ষণ হয়েছে। যাতে করে বন্যা এবং পাহাড়ি ধ্বসের ঘটনাও ঘটেছে।

পরবর্তীতে ‍উক্ত তথ্যের সূত্র ধরে কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে Radio La Voz de la Confeniae নামের একটি ইকুয়েডরিয়ান রেডিও চ্যানেলের ফেসবুক পেজে গত ২০ জুন প্রচারিত আরেকটি ভিডিও প্রতিবেদনের সন্ধান পাওয়া যায়। 

Screenshot: Facebook

প্রতিবেদনটিতেও আলোচিত ভিডিওটি দেখতে পাওয়া যায়। প্রতিবেদনটি পড়ে জানা যায়, ভিডিওটি মূলত ইকুয়েডরিয়ান অ্যামাজনের। সাম্প্রতিক বর্ষায় ইকুয়েডরিয়ান অ্যামাজনের হওয়া পাহাড়ি ঢলের দৃশ্য এটি।

অর্থাৎ, চীন এবং ইকুয়েডরের দুটি পৃথক ভিডিওকে বাংলাদেশে ভারতের পানি প্রবেশের ভিডিও দাবিতে প্রচার করা হয়েছে। 

মূলত, টানা বর্ষণে ভারতের সিকিম থেকে আসা পানিতে তিস্তা নদীর পানি ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পায়। যার ফলে গত মাসে তিস্তা ব্যারেজের ৪৪টি গেল খুলে দেওয়া হয়। এতে দেশের উত্তরাঞ্চলে দেখা দেয় বন্যার আশঙ্কা। অপরদিকে ভারতের চেরাপুঞ্জির ভারী বর্ষার পানি উজান থেকে নেমে আসায় সিলেটের বিভিন্ন অঞ্চলে ইতোমধ্যেই বন্যা কবলিত হয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে সম্প্রতি, ভারত থেকে বাংলাদেশে পানি আসার ভিডিও দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দুটি ভিডিও প্রচার হতে দেখেছে রিউমর স্ক্যানার টিম। তবে অনুসন্ধানে দেখা যায়, আলোচিত দাবিটি সত্য নয়। ভিডিওগুলো ভারত থেকে বাংলাদেশে পানি প্রবেশের নয়। প্রকৃতপক্ষে, চীনের ইউনান প্রদেশের জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র টাইগার লিপিং গর্জ একটি ভিডিও এবং সাম্প্রতিক সময়ে ইকুয়েডরে হওয়া বন্যার ভিডিওকে আলোচিত দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে।

সুতরাং, ভারতের উজান থেকে বাংলাদেশে পানি প্রবেশের দৃশ্য দাবিতে চীনের এবং ইকুয়েডরের দুটো পৃথক ভিডিও প্রচার করা হয়েছে; যা বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img