সোমবার, সেপ্টেম্বর 26, 2022
spot_img

উদ্বোধনের সময় সেতু ভেঙে পড়ার ঘটনাটি মেক্সিকোর, বাংলাদেশের নয়

সম্প্রতি, “উদ্বোধনের সময় ভেঙে পড়ল সেতু, মেয়রসহ আহত ২০” শীর্ষক শিরোনামে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারিত হয়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে এবং এখানে। পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে উদ্বোধনের সময়ে সেতু ভেঙে পড়ে মেয়রসহ ২০ জন লোক আহত হওয়ার ঘটনাটি বাংলাদেশের কোনো স্থানের নয় বরং উক্ত ঘটনাটি মেক্সিকোর দক্ষিণে কুয়ের্নাভাকা শহরের।

ফেসবুকে প্রকাশিত পোস্টগুলোর সূত্র ধরে কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে, দেশীয় অনলাইন সংবাদমাধ্যম ‘ঢাকা পোস্ট‘ ওয়েবসাইটে গত ৯ জুন এবং মূলধারার গণমাধ্যম ‘একাত্তর টিভি‘ ও ‘একুশে ইটিভি‘ এর অনলাইন সংস্করণে গত ১০ জুন “উদ্বোধনের সময় ভেঙে পড়লো সেতু, মেয়রসহ আহত ২০” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। এছাড়াও উক্ত ঘটনাটি নিয়ে দেশীয় মূলধারার সংবাদমাধ্যম ‘সময় টিভি‘, ‘এনটিভি‘, ও ‘বাংলাদেশ প্রতিদিন‘ এর ওয়েবসাইটে এবং অনলাইন সংবাদমাধ্যম ‘জাগোনিউজ২৪‘ এর প্রায় একই ধরণের শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। তবে সবগুলো প্রতিবেদন বিস্তারিত অংশেই এটি মেক্সিকোর ঘটনা তা উল্লেখ করা হয়েছে।

তবে বাংলাদেশের অনেক ফেসবুক ব্যবহারকারীরা বিষয়টি যথাযথ যাচাই না করে শুধুমাত্র শিরোনামটি কপি-পেস্ট করে ফেসবুকে প্রচার করছেন ফলে ঘটনাটি মেক্সিকোর হলেও মেক্সিকো শব্দটি উল্লেখ না করে বাংলাদেশে প্রচার করায় ঘটনাটি বাংলাদেশের কোনো স্থানের ভেবে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়। ঘটনাটিকে বাংলাদেশের ঘটনা ভেবে অনেকেই সরকারের সমালোচনাও করেছেন।

পরবর্তীতে, আলোচিত ঘটনাটি নিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানএবিসি নিউজ এবং দ্য ওয়াশিংটন পোস্ট এবং দেশীয় সংবাদমাধ্যম ইনকিলাব এর অনলাইন সংস্করণ এ প্রকাশিত প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

সেতু
Screenshot The Guardian

মূলত, সম্প্রতি মেক্সিকোর রাজধানী মেক্সিকো সিটির উপকণ্ঠে দক্ষিণে কুয়ের্নাভাকা শহরে নবনির্মিত সেতু উদ্বোধনের সময় ভেঙে পড়ে। উক্ত ঘটনায় নতুন সেতুটির উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতে আসা স্থানীয় মেয়র ও তার স্ত্রী আহত হন। এছাড়াও শহরের চার কাউন্সিলর, দুই সিটি কর্মকর্তা এবং স্থানীয় একজন সাংবাদিকও এই ঘটনায় আহত হয়েছেন বলে গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়।

গণমাধ্যমগুলোতে যেকোনো সংবাদকে চটকদার করে উপস্থাপন করার প্রবণতা লক্ষ্যনীয়। এ ঘটনাটিও তার ব্যতিক্রম নয়। মেক্সিকোর একটি ঘটনাকে এমনভাবে প্রচার করা হয়েছে যে যারা লিংকে গিয়ে মূল ঘটনা দেখবে না তারা সত্যিটাও জানবে না। এতেই ঘটনা নিয়ে পাঠক মনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হয় এবং মেক্সিকোর সেতুটিকে তারা বাংলাদেশের সেতু ভেবে নেতিবাচক মতামত দেয়।

উল্লেখ্য, রিউমর স্ক্যানার টিম পূর্বেও ভিনদেশের ঘটনাকে বাংলাদেশের ঘটনা সন্দেহে প্রচারিত তথ্যকে বিভ্রান্তিকর হিসেবে শনাক্ত করে একাধিক ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

অর্থাৎ, মেক্সিকোর সেতু উদ্বোধনের সময় সেতু ভাঙা ও মেয়র সহ ২০ জন আহত হওয়ার ঘটনাটি বাংলাদেশে ‘মেক্সিকো’ শব্দ উল্লেখ না করে গণমাধ্যম ও সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img