সোমবার, জুলাই 22, 2024
spot_img

ডিপফেকের শিকার চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস

সম্প্রতি, “অপুর নিউ ভিডিও” শীর্ষক শিরোনামে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে। 

অপু বিশ্বাস

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত ভিডিওটি অপু বিশ্বাসের নয় বরং প্রিয়া সেন নামক দিল্লির এক মডেল ও অভিনেত্রীর। ভিডিওতে উক্ত নারীর মুখের স্থলে অপু বিশ্বাসের মুখ ডিপফেক প্রযুক্তির সহায়তায় বসিয়ে এই ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে। 

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে “that_twinklegirl” নামক একটি ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে গত ৩১ জানুয়ারি প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

এই ভিডিওর একটি অংশের সাথে আলোচিত ভিডিওর মিল খুঁজে পাওয়া যায়। আলোচিত ভিডিওতে দেখানো অপু বিশ্বাসের পোষাক, শারীরিক অঙ্গভঙ্গি, ব্যাকগ্রাউন্ড এবং আনুষঙ্গিক বিষয়বস্তুর সাথে উক্ত ভিডিওতে দেখানো প্রিয়া সেন নামক নারীর পোষাক, শারীরিক অঙ্গভঙ্গি, ব্যাকগ্রাউন্ড এবং আনুষঙ্গিক বিষয়বস্তুর হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

Video Comparison : Rumor Scanner 

অর্থাৎ, আলোচিত ভিডিওতে দেখানো এই নারী অপু বিশ্বাস নন। 

মূলত, দিল্লির এক অভিনেত্রী ও মডেল প্রিয়া সেন তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে গত ৩১ জানুয়ারি একটি ভিডিও পোস্ট করেন। উক্ত ভিডিওতে থাকা নারীর মুখের স্থলে চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাসের মুখ ডিপফেক প্রযুক্তির সহায়তায় যুক্ত করে দাবি করা হচ্ছে ভিডিওতে থাকা নারী অপু বিশ্বাস।

প্রসঙ্গত, ডিপফেক হলো বাস্তবসম্মত দেখতে কিন্তু নকল বা কিছুটা পরিবর্তিত কন্টেন্ট যা ভিডিও বা অডিওর উপাদান সম্পাদনা করে তৈরি করা হয়। ডিপফেক ভিডিওতে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার (AI) প্রযুক্তি ব্যবহার করে একজন ব্যক্তির মুখের অবয়ব বা ভয়েসকে অন্য কারোর সাথে বিশ্বাসযোগ্যভাবে প্রতিস্থাপন করা হয়। এই প্রযুক্তির সহায়তায় একজন ব্যক্তির এমন কিছু ভিডিও বা অডিও কন্টেন্ট তৈরি করা সম্ভব যা তিনি নিজে বলেননি বা করেননি।

উল্লেখ্য, পূর্বেও একাধিক ডিপফেক ভিডিও শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার টিম। সেসব প্রতিবেদন একত্রে দেখুন এখানে

সুতরাং, দিল্লির এক অভিনেত্রী ও মডেলের ভিডিওতে অপু বিশ্বাসের মুখ ডিপফেক প্রযুক্তির সহায়তায় বসিয়ে ভিডিওটি অপু বিশ্বাসের দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে ; যা এডিটেড বা বিকৃত। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img