বুধবার, জুলাই 24, 2024
spot_img

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নতুন নির্বাচনের ঘোষণা দেওয়ার গুজব

সম্প্রতি, “ নতুন করে নির্বাচনের ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী।। Bangladesh Election Update News।। BnP News Update” শীর্ষক শিরোনাম এবং “নতুন নির্বাচনের ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী ৭ জানুয়ারি নির্বাচন বাতিল হলো” শীর্ষক থাম্বনেইলে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার

ফেসবুকে প্রচারিত পোস্টগুলো দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আগামী ৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাতিল হয়নি এবং প্রধানমন্ত্রীও নতুন নির্বাচনের ঘোষণা দেননি বরং অধিক ভিউ পাবার আশায় চটকদার শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে নির্ভরযোগ্য কোনো তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই আলোচিত ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, এটি ভিন্ন ভিন্ন ঘটনার পুরনো কয়েকটি ভিডিও এবং ছবি যুক্ত করে সম্পাদনার মাধ্যমে তৈরি একটি ভিডিও প্রতিবেদন যেখানে ভিডিওটির শুরুতেই একটি সংবাদ প্রতিবেদনের খণ্ডাংশ এবং কয়েকটি পুরনো ঘটনার ভিডিও ক্লিপ দেখানো হয়। পরবর্তীতে ভিডিওটিতে আলোচিত দাবিটি প্রসঙ্গে কয়েকটি ভিডিও দেখানো হয়। 

ভিডিওটি’র সংবাদপাঠ অংশে বলা হয়, “নির্বাচন হয়ে যাওয়ার পরে সেই নির্বাচনে সরকার গঠনের পর সেই সরকার ভেঙ্গে দিয়ে আবার সুষ্ঠু নির্বাচন করবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা৷ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই কথাটি বলেছেন। এখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য শুনতে হবে কারন তিনি এখানে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ কিছু কথা বলেছেন এবং ইউরোপীয় ইউনিয়ন ৭ জানুয়ারি যেন নির্বাচন না হয় সেই লক্ষ্যেই কাজ করছেন৷ সুতরাং ৭ তারিখ নির্বাচন না হওয়ার কিন্তু জোর দাবি রয়েছে..।”

সংবাদপাঠ অংশে থাকা বিষয়গুলো নিয়ে অনুসন্ধানে মূলধারার গণমাধ্যম কিংবা সংশ্লিষ্ট অন্যকোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে আলোচিত দাবিটি’র সত্যতা পাওয়া যায়নি।

পরবর্তীতে উক্ত ভিডিওটিতে দেখানো ভিন্ন ভিন্ন ভিডিও ক্লিপের বিষয়ে পৃথকভাবে অনুসন্ধান চালায় রিউমর স্ক্যানার টিম।

প্রথম ও দ্বিতীয় ভিডিও যাচাই 

অনুসন্ধানে দেখা যায়, আলোচিত ভিডিওতে যুক্ত প্রথম দুইটি ভিডিও ক্লিপই গত ২৮ ডিসেম্বর আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বয়কট করে আন্দোলনে থাকা বিএনপির সঙ্গে ঢাকায় সফররত ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এর নির্বাচন বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধি দলের বৈঠকের ঘটনায় এটিএন নিউজ ও কালবেলা’য় (,) প্রকাশিত ভিডিও প্রতিবেদন থেকে নেওয়া।

Video Comparison : Rumor Scanner 
Video Comparison : Rumor Scanner 

তৃতীয় ভিডিও যাচাই 

আলোচিত ভিডিওতে দেখানো তৃতীয় ভিডিওটির অনুসন্ধানে কিওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে দেশ টিভির ইউটিউব চ্যানেলে গত ২৯ ডিসেম্বর “বিএনপির রাজনীতি করার অধিকার বাংলাদেশে নেই :প্রধানমন্ত্রী। Sheikh Hasina । Barisal । Election 2024” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। এই ভিডিও প্রতিবেদনের একটি অংশকে আলোচিত ভিডিওটিতে যুক্ত করা হয়েছে। 

Video Comparison : Rumor Scanner 

উক্ত প্রতিবেদনে গত ২৯ ডিসেম্বর বরিশালের বঙ্গবন্ধু উদ্যানে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী জনসভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বক্তব্য তুলে ধরা হয়।

সর্বশেষ আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য সম্বলিত একটি ভিডিও যুক্ত করা হয়। ভিডিওটির অনুসন্ধানে Surma Times নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৫ সালের ১৬ মার্চ “শীঘ্রই আরও একটি নির্বাচন হবে। Sheikh Hasina।  Hasina Talks about Election” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায় ২০১৩ সালের ১৯ ডিসেম্বর গণভবনে দেওয়া প্রধানমন্ত্রীর একটি বক্তব্যের খণ্ডাংশ বর্তমানে আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আলোচিত দাবিতে যুক্ত করা হয়েছে। 

এছাড়া, একটি দেশের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পরবর্তীতে যদি নির্বাচনের নতুন তারিখ ঘোষণা করা হয় অর্থাৎ পূর্ব ঘোষিত তারিখে যদি নির্বাচন না হয় তাহলে সে বিষয়গুলো নিয়ে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সংবাদ হওয়া স্বাভাবিক। তবে, রিউমর স্ক্যানার টিম অনুসন্ধান করে আগামী ৭ জানুয়ারি নির্বাচন বাতিল কিংবা নির্বাচনের নতুন তারিখ ঘোষণা সংক্রান্ত কোনো সংবাদ পায়নি। এতে প্রতীয়মান হয় যে প্রচারিত দাবিগুলো মিথ্যা। 

মূলত, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন ও অসহযোগ আন্দোলনের পক্ষে দফায় দফায় কর্মসূচি ঘোষণা করছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)। কর্মসূচির অংশ হিসেবে সারা দেশে গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করছে দলটি। অপরদিকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ উপলক্ষে ক্লান্তিহীন প্রচারণা চালাচ্ছে স্বতন্ত্র, আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন দলের মনোনীত প্রার্থীরা। এরই মধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সাথে আলাদা আলাদা বৈঠক করেছে ঢাকায় সফররত ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) নির্বাচন – বিশেষজ্ঞ প্রতিনিধি দল। উক্ত বৈঠকে আগামী ৭ জানুয়ারি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন দলগুলো। এরই মধ্যে উক্ত ঘটনার একাধিক ভিডিও যুক্ত করে “ নির্বাচনের নতুন তারিখ ঘোষণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী ৭ তারিখ নির্বাচন বাতিল ” শীর্ষক দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে জানা যায়, উক্ত দাবিগুলো সঠিক নয়। প্রকৃতপক্ষে অধিক ভিউ পাবার আশায় ভিন্ন ভিন্ন ঘটনার কয়েকটি পুরোনো ভিডিও ক্লিপ ও ছবি যুক্ত করে তাতে চটকদার শিরোনাম ও একাধিক ছবি ব্যবহার করে কোনোপ্রকার নির্ভরযোগ্য তথ্যপ্রমাণ ছাড়াই আলোচিত দাবিগুলো প্রচার করা হয়েছে। এছাড়া, গণমাধ্যম কিংবা সংশ্লিষ্ট অন্যকোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে বিষয়টির সত্যতা খুঁজে পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, আগামী ৭ জানুয়ারি রোববার ভোটগ্রহণের দিন রেখে দ্বাদশ সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আউয়াল। গত ১৫ নভেম্বর সন্ধ্যায় জাতির উদ্দেশ্যে দেওয়া এক ভাষনে এই ঘোষণা দেন তিনি।

সুতরাং, প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক নতুন নির্বাচনের ঘোষণা এবং আগামী ৭ তারিখ অনুষ্ঠিতব্য দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাতিল দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচারিত বিষয়গুলো মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img