বুধবার, ফেব্রুয়ারি 28, 2024
spot_img

আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় পানে মৃত্যুর দাবিটি মিথ্যা

সম্প্রতি ‘আম খাওয়ার পর ঠাণ্ডা পানীয় পান করবেন না’ শীর্ষক শিরোনামে কিছু পোস্ট ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিয়ে দাবি করা হচ্ছে, ভারতের চণ্ডীগড়ে আম খাওয়ার পরপরই কোল্ড ড্রিংক (ঠান্ডা পানীয়) পান করে কিছু পর্যটক মারা যান। 

কী দাবি করা হচ্ছে?

উক্ত পোস্টগুলোতে দাবি করা হচ্ছে,“কয়েকজন পর্যটক ভারতের চণ্ডীগড়ে গিয়ে আম খাওয়ার পরপরই কোল্ড ড্রিংক পান করেছিলেন এবং তারা সবাই অসুস্থ এবং অজ্ঞান বোধ করতে শুরু করে। হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাদের সবাইকে মৃত ঘোষণা করা হয়। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, আম খাওয়ার পর কোনো কোল্ড ড্রিংক বা কোমল পানীয় পান করা উচিত নয়। আমের সাইট্রিক অ্যাসিড এবং কোল্ড ড্রিংকের জৈব অ্যাসিড একত্রিত হয়ে বিষ তৈরি করে।”

Screenshot source: Facebook 

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

একই দাবি ফেসবুকের মেসেঞ্জারেও ছড়িয়ে পড়তে দেখেছে রিউমর স্ক্যানার টিম।

Screenshot source: Messenger 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় পানে মৃত্যুর দাবিটি সঠিক নয় বরং উক্ত দাবিটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীনভাবে প্রচার করা হচ্ছে। তাছাড়া আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় পান করা যাবে না শীর্ষক কোনো পরামর্শ বৈজ্ঞানিকভাবে প্রমাণিত নয়।

আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় পান করলে মৃত্যু হতে পারে শীর্ষক ঘটনাটি ভারতের চন্ডীগড়ের দাবিতে প্রচারের সূত্রে তথ্যটির বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ এবং ম্যানুয়াল পদ্ধতি ব্যবহার করে উক্ত দাবিটির কোনো সত্যতা ভারতের গণমাধ্যমে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ভারত ছাড়াও বাংলাদেশ এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এ সংক্রান্ত কোনো খবর অনুসন্ধানে মেলেনি।

ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলোতে দাবি করা হয়েছে, আমে বিদ্যমান সাইট্রিক এসিড এবং ঠান্ডা পানীয়তে থাকা জৈব এসিড মিলিত হয়ে বিষ তৈরি হতে পারে। 

এ বিষয়ে অনুসন্ধানে স্বাস্থ্য এবং পুষ্টি বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘Live Strong’ কর্তৃক ‘A List of Fruits With Low Citrus Levels’ শিরোনামে প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ক্লেমসন বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, একটি আমের pH মান সচরাচর ৫.৮ থেকে ৬ এর মধ্যে থাকে, যা তুলনামুলক বেশি উল্লেখ করা হলেও ২০১৯ সালের অক্টোবর মাসে Frontiers in Plant Science জার্নালে প্রকাশিত একটি রিসার্চ পেপারে বলা হয়, আমের মধ্যে জৈব এসিডের পরিমাণ খুবই কম। এসব জৈব এসিডের মধ্যে রয়েছে অক্সালিক এসিড, সাইট্রিক এসিড — কিন্তু তাদের আণবিক ওজন কম, মানে আমে খুব বেশি সাইট্রিক এসিড নেই।”

Screenshot Source: Live Strong

অপরদিকে, ‘Live Strong’ কর্তৃক প্রকাশিত অন্য আরেকটি আর্টিকেলে বলে হয়, কোমল পানীয়গুলোতে সচরাচর যে তিনটি জৈব এসিড ব্যাবহৃত হয় সেগুলো হচ্ছে সাইট্রিক এসিড, কার্বনিক এসিড এবং ফসফরিক এসিড। 

Screenshot Source: Live Strong

লিভ স্ট্রং কর্তৃক প্রকাশিত উপরোক্ত দুইটি আর্টিকেল বিশ্লেষণ করলে দেখা যায়, আম এবং কোমল পানীয়, এই দুইটি খাবারেই সাইট্রিক এসিডসহ বিভিন্ন প্রকার জৈব এসিডই রয়েছে। 

অর্থাৎ, সাইট্রিক এবং জৈব এসিড একত্রিত হওয়ার জন্য আম এবং কোমল পানীয়কে একত্র করারই প্রয়োজন পড়ে না। আমে যেমন এই দুই উপাদান আছে তেমনি কোমল পানীয়তেও উক্ত দুই উপাদানের অস্তিত্ব রয়েছে।  

তাছাড়া বিস্তর অনুসন্ধান করেও চিকিৎসা বিজ্ঞানের এমন কোনো গবেষণাপত্র খুঁজে পাওয়া যায়নি যেখানে বলা হয়েছে যে আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় কিংবা কোমল পানীয় পান করলে মৃত্যু হতে পারে। 

আলোচিত দাবিটির বিষয়ে ভারতের এ্যাপোলো হাসপাতালের চিফ ক্লিনিক্যাল ডায়েটিশিয়ান Dr Priyanka Rohatgi জানিয়েছেন, এই ধরনের বার্তা গত দুই-তিন বছর ধরে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার হচ্ছে এবং সেগুলির কোনও সত্যতা নেই।”

তাছাড়া, ম্যাক্স হাসপাতালের সিনিয়র গ্যাস্ট্রো এনটারোলজিস্ট Dr Ashwani Setya বলেছেন,“সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়া এই দাবিটি মোটেও সত্য নয়, এটি কেবল মানুষের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি করে।”

“কিছু ভারতীয় পর্যটক চীনে গিয়ে আম খাওয়ার পর কোকাকোলা খেয়ে মারা গিয়েছে” দাবিতে সমজাতীয় আরেকটি দাবি ২০১৭ সালে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়লে তৎকালীন সময় কোকোকোলা ইন্ডিয়া কর্তৃপক্ষ দাবিটিকে মিথ্যা আখ্যায়িত করে।  

মূলত, সম্প্রতি ‘আম খাওয়ার পর ঠাণ্ডা পানীয় পান করবেন না’ শীর্ষক শিরোনামে কিছু পোস্ট ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিয়ে দাবি করা হয় ভারতের চণ্ডীগড়ে আম খাওয়ার পরপরই কোল্ড ড্রিংক পান করে কিছু পর্যটক মারা যান। কিন্তু রিউমর স্ক্যানার টিম অনুসন্ধানে দেখেছে, উক্ত দাবিটি বানোয়াট। ভারতে এমন ঘটেনি। তাছাড়া, আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় পান করা যাবে না শীর্ষক কোনো পরামর্শ বৈজ্ঞানিকভাবেও প্রমাণিত নয়।

সুতরাং, আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় কিংবা কোমল পানীয় পান করলে মৃত্যু হওয়া এবং আম খাওয়ার পর ঠান্ডা পানীয় পান করা যাবে না শীর্ষক ডাক্তারের পরামর্শের দাবিতে প্রচারিত তথ্যগুলো সম্পূর্ণ মিথ্যা।   

তথ্যসূত্র 

  • Live Strong: A List of Fruits With Low Citrus Levels
  • Frontiers: Chemical Composition of Mango (Mangifera indica L.) Fruit: Nutritional and Phytochemical Compounds
  • Live Strong: What Kind of Acids Are in Sodas?
  • The Quint: Is It Fatal to Have Cold Drinks Post Eating Mangoes?
  • Social Media Hoax Layer: Can Coke after Mango take your life ?
  • Rumor Scanner’s Own Analysis 

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img