শনিবার, জুলাই 20, 2024
spot_img

ব্যারিস্টার সুমনের পক্ষ নিয়ে সাকিবের বিরুদ্ধে কোনো মন্তব্য করেননি তামিম

গত ১২ জানুয়ারি Sports Center নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ‘সাকিবের মতো খারাপ মানুষ দুইটা হয় না! ব্যারিস্টার সুমনের পক্ষ নিয়ে সাকিবকে ধুয়ে দিলো তামিম’ শীর্ষক শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে।

সুমনের পক্ষ

ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

এই প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়া অবধি ভিডিওটি প্রায় ১৪ হাজার বার দেখা হয়েছে। ভিডিওটিতে প্রায় আড়াই শত পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের সাথে ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের পুরোনো দ্বন্দ্ব ইস্যুতে সুমনের পক্ষ নিয়ে সাকিবের বিরুদ্ধে কোনো মন্তব্য করেননি তামিম ইকবাল বরং তামিম ইকবালের ভিন্ন প্রেক্ষাপটের পুরোনো একটি ভিডিও ক্লিপের সাথে ভিন্ন ভিন্ন ঘটনার পুরোনো কিছু ছবি যুক্ত করে তাতে  চটকদার শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনার মাধ্যমে আলোচিত ভিডিওটি তৈরি করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। ভিডিওটিতে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক তামিম ইকবাল, বর্তমান অধিনায়ক সাকিব আল হাসান এবং ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের পুরোনো কিছু ছবি ও ভিডিও ক্লিপ প্রদর্শিত হতে দেখা যায়।

ভিডিওটি’র সংবাদপাঠ অংশে দাবি হয়, ‘মাগুরা-১ আসন থেকে এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর সুমনকে আবারও মারার হুমকি দিয়েছেন সাকিব। সাকিবের এমন কর্মকাণ্ড দেখে সংবাদমাধ্যমে এসে তামিম ইকবাল বলেন, “খেলার মাঠ আর রাজনীতির মাঠ এক নয়, সে এখন এমপি হয়েছে। একজন সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষ একাজ করতে পারে না। সাকিব অতিরিক্ত বেড়ে গেছে। ওর বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।”

প্রাসঙ্গিক একাধিক কি ওয়ার্ড সার্চ করেও গণমাধ্যম কিংবা সংশ্লিষ্ট অন্যকোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে তামিম ইকবালের এরূপ কোনো মন্তব্যের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পরবর্তীতে আলোচিত ভিডিওটিতে থাকা ভিডিও ক্লিপটির বিষয়ে আলাদাভাবে অনুসন্ধান চালায় রিউমর স্ক্যানার টিম।

ভিডিওটিতে দেখানো তামিম ইকবালের বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপটি থেকে কিছু স্থিরচিত্র নিয়ে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে বেসরকারি টেলিভিশন ‘এখন টিভি’র ইউটিউব চ্যানেলে ২০২৩ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ‘সাকিবের সঙ্গে সম্পর্কের টানাপোড়েন নিয়ে খোলামেলা কথা বললেন তামিম?’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

এই ভিডিওর একটি অংশের সাথে আলোচিত ভিডিওটিতে প্রচারিত তামিম ইকবালের বক্তব্যের অংশের হুবহু মিল পাওয়া যায়।

Video Comparison by Rumor Scanner

ভিডিওতে উল্লেখিত বিস্তারিত তথ্য থেকে জানা যায়, এটি ২০২৩ সালে আলোচিত তামিম-সাকিব দ্বন্দ্ব ইস্যুতে তামিমের বক্তব্যের ভিডিও। উক্ত ভিডিওটিতে সাকিব আল হাসানের বিপক্ষে সেসময় তাকে কোনো নেতিবাচক মন্তব্য করতে দেখা যায়নি।

অর্থাৎ, এই ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ের নয় এবং এর সাথে আলোচিত দাবির কোনো সম্পর্ক নেই।

এছাড়াও, অতীতে কিংবা সাম্প্রতিক সময়ে সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে তামিম ইকবালকে প্রকাশ্যে কোনো ধরনের বিরূপ মন্তব্য করতে দেখা যায়নি।

তবে, ২০২৩ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের স্কোয়াড থেকে তামিম ইকবালের বাদ পড়াসহ দলের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে নিয়ে বিশ্বকাপের পূর্বেই সাকিব আল হাসান টি স্পোর্টসে একটি সাক্ষাৎকার দেন। পরবর্তীতে স্কোয়াডে না থাকা ইস্যুতে তামিম ইকবালও তার ফেসবুক পেজে একটু ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেন। তাদের দুজনের এই পৃথক দুই বার্তার মাধ্যমে তাদের মধ্যে দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে আসে। যা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনা হয়। কিন্তু তামিম ঐ ভিডিও বার্তায় সাকিবকে উল্লেখ করে তাকে নিয়ে সরাসরি কোনো মন্তব্য করেননি।

মূলত, ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমনের অফিশিয়াল  ফেসবুক পেজে ২০২৩ সালের ১৬ মার্চ প্রকাশিত এক ভিডিও বার্তায় তিনি সাকিব আল হাসানের দুবাইয়ে গিয়ে আলোচিত স্বর্ণ ব্যবসায়ী আরাভ খানের জুয়েলারি শপ উদ্ভোধন করতে যাওয়ার বিষয়ের সমালোচনা করে সাকিবের বিরুদ্ধে তার (সুমন) ওপর হামলার চেষ্টার অভিযোগ করেন। পরবর্তী উক্ত বিষয়টি ব্যাপক ভাইরাল হলে তা নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। উক্ত বিষয়টিকেই সাকিব এবং ব্যারিস্টার সুমনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হওয়ার পরের ঘটনা দাবি করে সে প্রেক্ষিতে গত ১২ জানুয়ারি Sports Center নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ‘সাকিবের মতো খারাপ মানুষ দুইটা হয় না! ব্যারিস্টার সুমনের পক্ষ নিয়ে সাকিবকে ধুয়ে দিলো তামিম’ শীর্ষক শিরোনাম ও থাম্বনেইল ব্যবহার করে একটি ভিডিও প্রচার করা হয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে উক্ত দাবির সত্যতা পাওয়া যায়নি। সাম্প্রতিক সময়ে কিংবা অতীতে তামিম ইকবাল এমন কোনো মন্তব্য করেননি। প্রকৃতপক্ষে ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে সাকিবের সাথে দ্বন্দ্ব নিয়ে গণমাধ্যমের প্রশ্নের মুখোমুখি তামিম ইকবাল। তবে সেসময় তিনি সাকিব আল হাসান সম্পর্কে কোনো নেতিবাচক মন্তব্য করেননি। সম্প্রতি ঐ ঘটনার ভিডিও প্রচার করেই ব্যারিস্টার সুমনের পক্ষ নিয়ে তামিম ইকবাল সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে মন্তব্য করেছেন শীর্ষক দাবিতে প্রচার করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, পূর্বেও ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন এবং ক্রিকেটার সাকিব আল হাসানের বিষয়ে ভুল তথ্য প্রচারের প্রেক্ষিতে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, ব্যারিস্টার সুমনের পক্ষ নিয়ে তামিম ইকবাল ‘সাকিবের মতো খারাপ মানুষ দুইটা হয় না’ শীর্ষক মন্তব্য করেছেন দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img