শনিবার, জুলাই 13, 2024
spot_img

ইরান কর্তৃক ইসরায়েলের আক্রমণের ঘটনার নয়, ভিডিওটি আর্জেন্টিনার

গত ১ এপ্রিল সিরিয়ায় ইরানের দূতাবাসের নিকটে ইসরায়েলের হামলায় ইসলামিক রেভল্যুশনারি গার্ড কর্পসের একজন সিনিয়র কমান্ডার ও ছয় কর্মকর্তা নিহত হলে এই হামলার প্রতিবাদে গত ১৩ এপ্রিল রাতে ইসরায়েলে কয়েকশ ড্রোন ও মিসাইল হামলা চালায় ইরান। এরই প্রেক্ষিতে ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিবে মিসাইল আঘাত করার পর ঘর ছেড়ে পালাচ্ছে ইসরায়েলিরা দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে।

ফেসবুকে উক্ত দাবিতে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রচারিত ভিডিওটি ইরান কর্তৃক ইসরায়েলে মিসাইল হামলায় ইসরায়েলিদের ঘর ছেড়ে পালানোর ভিডিও নয় বরং আর্জেন্টিনার ভিন্ন ঘটনার ভিডিওকে উক্ত দাবিতে প্রচার করা হয়েছে।

ভিডিওটির সত্যতা যাচাইয়ে agustomlinson নামক টিকটক একাউন্ট থেকে ২০২৪ সালের ৮ই এপ্রিল “LOU TE AMOO” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

উক্ত ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ডের সাথে আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওর ব্যাকগ্রাউন্ডের সাদৃশ্য পাওয়া যায়৷ 

Video Comparison: Rumor Scanner

টিকটক ভিডিওটিতে স্থান হিসেবে আর্জেন্টিনার বুয়েন্স আয়ার্সের Four Seasons Hotel এর নাম উল্লেখ করা হয়েছে। গুগল ম্যাপে Four Season Hotel লিখে সার্চ করলে হোটেলটির অবস্থান আর্জেন্টিনায় বলে নিশ্চিত হওয়া যায়। তুলনা করার সুবিধার্থে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে ভিডিওতে লেখাবিহীন একই ভিডিও খুঁজলে ১৪ এপ্রিল ২০২৪ সালে এক্সে প্রচারিত একই দাবির এই ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

তাছাড়া, এবার গুগল ম্যাপের স্ট্রিট ভিউ থেকে আলোচিত ভিডিওর সাথে হোটেলের পারিপার্শ্বিক দৃশ্যেরও বেশ কিছু মিল খুঁজে পাওয়া যায়। 

Comparison: Rumor Scanner

টিকটক ভিডিওটিতে ব্রিটিশ গায়ক লুইস টমলিনসনের হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করা দেখে কীওয়ার্ড সার্চ করলে ৮ এপ্রিল তারিখে আর্জেন্টিনায় উক্ত গায়ককে নিয়ে আর্জেন্টিনার সংবাদপত্র Infobae এ একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। তাছাড়া, ঐদিনই গায়কের টিম থেকে এক্সে (সাবেক টুইটার) প্রকাশিত একটি ভিডিও পাওয়া যায়, যেখানে বুয়েন্স আয়ার্সে ভক্তদের সাথে গায়ককে সাক্ষাৎ করতে দেখা যায়। যদিও, প্রচারিত ভিডিওটির দৃশ্যধারণের পিছনের ঘটনা বা উদ্দেশ্য সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে কিছু জানা যায়নি, তবে কিছু এক্স ব্যবহারকারী ঘটনাটিকে টমলিনসনের সাথে ছবি তুলার জন্য ভক্তদের হুড়োহুড়ির ঘটনা বলে দাবি করেছেন। এরকম একজন ইউজারের ভাষ্যমতে তিনি নিজেও সেখানে উপস্থিত ছিলেন। 

Screenshot : X

অর্থাৎ, ভিডিওটির দৃশ্যধারণের পিছনের প্রকৃত ঘটনা সম্পর্কে নিশ্চিতভাবে কোনো তথ্য জানা না গেলেও এটি নিশ্চিত যে ভিডিওটি ইসরায়েলের নয়।

মূলত, গত ১ এপ্রিল সিরিয়ার রাজধানী দামেস্কে অবস্থিত ইরানি কনস্যুলেটে ইসরায়েলি হামলার জবাবে ১৩ এপ্রিল ইরান নিজেদের ভূখন্ড থেকে সরাসরি ইসরায়েলে হামলা চালায়। এরই প্রেক্ষিতে ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিবে মিসাইল আঘাত করার পর ঘর ছেড়ে পালাচ্ছে ইসরায়েলিরা দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত ভিডিওটি ইসরায়েলের নয়। প্রকৃতপক্ষে, ভিডিওটি আর্জেন্টিনার রাজধানী বুয়েন্স আয়ার্সে ধারণকৃত।

সুতরাং, ইন্টারনেটে বিদ্যমান আর্জেন্টিনার একটি ভিডিওকে ইরান কর্তৃক ইসরায়েলে ড্রোন হামলার পর ইসরায়েলিদের ঘর ছেড়ে পালানোর দৃশ্য দাবিতে প্রচার করা হয়েছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img