সোমবার, সেপ্টেম্বর 26, 2022
spot_img

পাকিস্তানের বন্যার্তদের অর্থ সহায়তা দেননি বলিউড তারকারা

সম্প্রতি “অনিল কাপুর, আলিয়া ভাট ও রণবীর কাপুর বন্যা কবলিত পাকিস্তানকে অর্থসাহায্য করেছে” শীর্ষক দাবিতে একটি তথ্য বাংলাদেশের মূলধারার গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়েছে।

মূলধারার গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনগুলো দেখুন; সময় টিভিজাগো নিউজ, মানবজমিন, ঢাকাটাইমস২৪.কম ডেইলি বাংলাদেশ

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, পাকিস্তানের বন্যা কবলিত মানুষদের জন্য অনিল কাপুর, আলিয়া ভাট ও রণবীর কাপুরের অর্থ সাহায্য প্রদানের বিষয়টি সত্য নয় বরং কোনো ধরনের তথ্যসূত্র যাচাই-বাছাই ছাড়াই তথ্যটি গণমাধ্যমে প্রচার করা হয়েছে।

পাকিস্তানের বন্যা কবলিতদের জন্য আলিয়া ভাট ও রণবীর কাপুরের অর্থ সাহায্য প্রদানের বিষয়টির সত্যতা যাচাই করতে গিয়ে BBC News Hindi এর টুইটার একাউন্টে “Fake News Alert” শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি টুইট বার্তা খুঁজে পাওয়া যায়।

হিন্দি ভাষায় দেওয়া টুইটটির ইংরেজি অনুবাদ করে দেখা যায়, পাকিস্তানের বন্যা, রনবীর কাপুর ও আলিয়া বাটের চলচ্চিত্র ব্রহ্মাস্ত্র নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিবিসি হিন্দি নামে একটি ভুয়া টুইট বার্তা ছড়িয়ে পড়েছে। এই টুইট বার্তাটি ভুয়া এবং এই ধরনের কোনো সংবাদ বা টুইট বার্তা বিবিসি হিন্দি প্রচার করেনি।

অপরদিকে অনিল কাপুরের পাকিস্তানের বন্যার্তদের জন্য ৫ কোটি রূপি অর্থ সহায়তার ব্যাপারে অনুসন্ধানে ভারতীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে বিশ্বস্ত সূত্রে এ সংক্রান্ত কোনো প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পরবর্তীতে ভারতীয় ফ্যাক্টচেকিং প্রতিষ্ঠান vishvasnews.com এ ৭ সেপ্টেম্বর Fact Check: अनिल कपूर ने पाकिस्तान बाढ़ पीड़ितों को नहीं दिए 5 करोड़ रुपये (Fact Check: Anil Kapoor did not give Rs 5 crore to Pakistan flood victims-[হিন্দি থেকে অনুবাদিত]) শীর্ষক শিরোনামে হিন্দি ভাষায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

এই প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়, অনিল কাপুরের পাকিস্তানের বন্যার্তদের জন্য ৫ কোটি রূপি প্রদানের বিষয়টি মিথ্যা। তিনি এমন কোনো অর্থ সহযোগিতা দেননি। 

প্রতিবেদনটিতে এই সম্পর্কে অনিল কাপুরের প্রতিষ্ঠান অনিল কাপুর ফিল্ম অ্যান্ড কমিউনিকেশন নেটওয়ার্ক প্রাইভেট লিমিটেডের মুম্বাই অফিসকে উদ্ধৃত করে জানায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলো ভুল। একই বিষয়ে মুম্বাইয়ের পরাগ চাছেকার নামের একজন জৈষ্ঠ্য বিনোদন সাংবাদিককে উদ্ধৃত করে প্রতিবেদনে প্রতিষ্ঠানটি জানায়, অনিল কাপুর পাকিস্তানের বন্যার্তদের জন্য কোনো সহায়তা দেননি। এটি সম্পূর্ণ গুজব।

এছাড়া ভারতীয় গণমাধ্যম zeenews.india.com এর ওয়েবসাইটে ৬ সেপ্টেম্বর “Pakistan Flood: आलिया-रणबीर के बाद बॉलीवुड एक्टर ने पाकिस्तान को दिया डोनेशन? (Pakistan Flood: After Alia-Ranbir, Bollywood actors donated to Pakistan?)” শীর্ষক শিরোনামে হিন্দি ভাষায় প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

এই প্রতিবেদনটি থেকে জানা যায়,(স্বয়ংক্রিয়ভাবে অনুবাদিত) কিছু দিন আগে অনিল কাপুর সম্পর্কিত ‘সত্য হাই সনাতন’ নামে একটি টুইটার একাউন্টে অনিল কাপুরের পাকিস্তানের বন্যার্তদের সাহায্যের বিষয়টি প্রচারিত হয়।

যেখানে দাবি করা হয়, “অনিল কাপুর পাকিস্তানের বন্যার জন্য 5 কোটি টাকা দান করেছেন। আমি চাই ভারতের সমস্যা কী ছিল? যদি মন্দিরে দিতাম?”

এই টুইট বার্তাটিকে সূত্র ধরে ভারতীয় গণমাধ্যম অমৃতবাজারে “কোটি টাকা অনুদান দিয়ে বন্যা বিপর্যস্ত পাকিস্তানের পাশে দাঁড়ালেন অভিনেতা অনিল কাপুর” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। এছাড়া আরেকটি ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময়েও একই তথ্য বিশিষ্ট একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

তবে দান করার বিষয়ে অনিল কাপুরের কোনো মন্তব্য পাওয়া যায়নি। এছাড়া অনিল কাপুরের টুইটার একাউন্টেও এ সম্পর্কিত কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি।

উল্লেখ্য, এই প্রতিবেদনগুলোকে গুজব হিসেবে চিহ্নিত ভারতের একাধিক মূলধারার গণমাধ্যম ও ফ্যাক্টচেকিং প্রতিষ্ঠান News18, boomlive.in, Newschecker.in, সংবাদ প্রতিদিন প্রতিবেদনও প্রকাশ করেছে।

মূলত, কিছু ভুয়া টুইট বার্তাকে কেন্দ্র করে ভারতীয় বলিউড অভিনেতা, অনিল কাপুর, রনবীর কাপুর ও অভিনেত্রী আলিয়া বাট কর্তৃক পাকিস্তানের বন্যার্তদের অর্থ সহায়তার একটি তথ্য ভারতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে৷ এমন একটি টুইট বার্তাকে সূত্র ধরে ভারতের কয়েকটি নিউজ পোর্টালে পাকিস্তানের বন্যার্তদের জন্য ৫ কোটি রুপি সহায়তা দিচ্ছে অনিল কাপুর শীর্ষক সংবাদ প্রচারিত হয়। পরবর্তী সেই সংবাদ যাচাই না করেই বাংলাদেশের মূলধারার গণমাধ্যমে প্রচারিত হয়।

প্রসঙ্গত, চলতি বর্ষা মৌসুমে প্রবল বৃষ্টিপাতের ফলে সৃষ্ট সাম্প্রতিক বন্যায় পাকিস্তানের এক–তৃতীয়াংশ অঞ্চল ডুবে গেছে। বিশেষ করে দেশটির বেলুচিস্তান এবং পাঞ্জাব ও সিন্ধু প্রদেশের কিছু অঞ্চল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সবচেয়ে বেশি। বন্যায় সরাসরি গৃহহীন হয়েছে প্রায় সাড়ে তিন কোটি মানুষ। এছাড়া এই বন্যায় আর্থিক ক্ষতি সাড়ে ১২০০ কোটি ডলারের আনুমানিক হিসাব পিছনে ফেলে ১৮০০ কোটি ডলার ছুঁয়ে ফেলেছে।

সুতরাং, অনিল কাপুর, আলিয়া-রনবীরের  পাকিস্তানের বন্যায় সহায়তা পাঠানোর বিষয়টি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img