যে কেউই নাইজেরিয়ায় গিয়ে বিয়ে করলে নাগরিকত্ব এবং হানিমুন সুবিধা প্রদানের ঘোষণা দেয়নি দেশটি

গত ২৯ জানুয়ারি, শর্ট ভিডিও প্ল্যাটফর্ম টিকটকে এক ব্যক্তির ছবি ব্যবহার করে তাকে নাইজেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পরিচয় দিয়ে দাবি করা হচ্ছে, তিনি ঘোষণা করেছেন বাইরের দেশ থেকে কেউ নাইজেরিয়ায় এসে বিয়ে করলে, তাকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে এবং বিদেশে হানিমুন পাঠানো হবে।”

টিকটকে প্রচারিত ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

এ প্রতিবেদন প্রকাশ অবধি টিকটকে ভিডিওটি দেখা হয়েছে ১ লাখ ৯২ হাজারের বেশিবার।   

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ভিডিওতে যে ব্যক্তির ছবি রয়েছে তিনি নাইজেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী নন, বরং রাষ্ট্রপতি এবং তিনি এমন কোনো ঘোষণা দেননি। বাইরের দেশ থেকে এসে নাইজেরিয়ায় এসে বিয়ে করলে তাকে নাগরিকত্ব দেওয়ার বিধান শুধু নারীদের ক্ষেত্রে রয়েছে সেখানে। তবে বিয়ের পর বিদেশে হানিমুন পাঠানো হবে শীর্ষক কোনো বিধান দেশটিতে চালু নেই।  

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে ভিডিওতে বিদ্যমান ছবিটি রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখা যায়, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আখ্যায়িত  ব্যক্তি মূলত নাইজেরিয়ার বর্তমান রাষ্ট্রপতি বোলা আহমেদ টিনুবু। টিনুবু গত বছরের ২৯ মে রাষ্ট্রপতি হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছিলেন। রাষ্ট্রপতিশাসিত শাসনব্যবস্থায় রাষ্ট্রপতি একই সাথে রাষ্ট্র ও সরকারের প্রধান। 

আলোচিত দাবিটির বিষয়ে জনাব বোলা আহমেদ টিনুবু কোনো ঘোষণা দিয়েছেন কিনা সে বিষয়ে অনুসন্ধানে নাইজেরিয়ায় বা আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে কোনো তথ্য মেলেনি। 

বিষয়টি নিশ্চিত হতে রিউমর স্ক্যানার টিম কথা বলেছে নাইজেরিয়ার ডেইলি ট্রাস্ট পত্রিকার বিজনেস রিপোর্টার ফারুক উমর শুয়াইবুর সাথে। তিনি বলছেন, সম্প্রতি নাগরিকীকরণ নিয়ে রাষ্ট্রপতির দ্বারা কোনও নতুন ঘোষণা বা সংবিধানে কার্যকর কোনও পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত জানানো হয়নি, যেখানে নাইজেরিয়ায় এসে বিয়ে করলে নাগরিকত্ব প্রদান করা হবে এমন কিছু বলা হয়েছে।

রাষ্ট্রপতি এমন কোনো ঘোষণা দেননি এমন তথ্য নিশ্চিত হওয়ার পর আমরা জানার চেষ্টা করেছি নাইজেরিয়ায় নাগরিকত্ব লাভের বিষয়ে আইনে কী বলা হয়েছে। নাইজেরিয়ার সংবিধানের ধারা ২৫ মোতাবেক, দেশটিতে জন্মগতভাবে জাতীয়তার জন্য যোগ্য তারাই হয়ে থাকেন যারা  যে কোনো স্থানে জন্মগ্রহণকারী হলেও তাদের পিতামাতা নাইজেরিয়ান নাগরিক। অথবা নাইজেরিয়ায় জন্মগ্রহণকারী ব্যক্তি যাদের অন্তত একজন দাদা-দাদি নাইজেরিয়ান ছিলেন বা স্বাধীনতার আগে নাইজেরিয়ার একটি আদিবাসী সম্প্রদায়ের অন্তর্ভুক্ত ছিলেন তারা নাইজেরিয়ার নাগরিকত্ব পাবেন।

ইন্টারন্যাশনাল বার অ্যাসোসিয়েশনের  প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, নাইজেরিয়ার সংবিধানের ধারা ২৬ (২) অনুযায়ী বাইরের দেশের কোনো নারী নাইজেরিয়ার একজন পুরুষকে বিয়ে করলে তিনি নাইজেরিয়ায় নাগরিকত্ব লাভ করবেন। তবে বাইরের দেশের কোনো পুরুষের ক্ষেত্রে এই সুবিধা নেই।   

এছাড়াও প্রাকৃতিককরণের মাধ্যমে নাইজেরিয়ায় নাগরিকত্ব প্রদান (নাইজেরিয়ার ফেডারেল রিপাবলিক অফ নাইজেরিয়ার সংবিধানের ধারা ২৭ এর অধীনে ১৯৯৯ সংশোধিত) করা হয় যা শুধুমাত্র বিদেশীদের জন্য প্রযোজ্য। যারা নাইজেরিয়াতে ১৫ বছর বা তার বেশি সময় ধরে বসবাস করেছেন এবং নাইজেরিয়ার নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে চান ৷

এছাড়াও বিনিয়োগের মাধ্যমে নাগরিকত্ব লাভ করা যায়, যেখানে নাইজেরিয়ায় বিনিয়োগ করতে ইচ্ছুক বিদেশী নাগরিকদের স্থায়ী বসবাসের অনুদান দেওয়া হয়। মানব ও খনিজ সম্পদ উভয় ক্ষেত্রেই বিপুল সম্ভাবনার নাইজেরিয়া বিপুল পুঁজি বিনিয়োগের সাথে বিদেশীদেরকে তাদের তহবিল আনার এবং দেশে বিনিয়োগের সুযোগে উৎসাহিত করছে।

অনুসন্ধানে নাইজেরিয়ার সংবিধান মোতাবেক নাগরিকত্ব লাভের যে ধারাগুলো পাওয়া গিয়েছে, সেখানে নাইজেরিয়ায় এসে বিয়ে করলে নাগরিকত্ব এবং পরবর্তীতে হানিমুনের পাঠানোর সুবিধার বিষয়ে কোনো তথ্য উল্লেখ পাওয়া যায়নি। 

মূলত, টিকটকে এক ব্যক্তির ছবি ব্যবহার করে তাকে নাইজেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পরিচয় দিয়ে দাবি করা হচ্ছে, তিনি ঘোষণা করেছেন বাইরের দেশ থেকে কেউ নাইজেরিয়ায় এসে বিয়ে করলে, তাকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে এবং বিদেশে হানিমুন পাঠানো হবে। কিন্তু রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, এই ব্যক্তিই দেশটির প্রধানমন্ত্রী নয়, তিনি দেশটির রাষ্ট্রপতি। তিনি এমন কোনো ঘোষণা দেননি। দেশটির সংবিধান অনুযায়ী, বাইরের দেশ থেকে কোনো নারী এসে নাইজেরিয়ার পুরুষকে বিয়ে করলে তিনি নাগরিকত্ব পাবেন। তবে বিদেশী পুরুষদের ক্ষেত্রে এমন বিধান নেই। তাছাড়া, বিয়ের পর বিদেশে হানিমুন পাঠানো হবে শীর্ষক কোনো বিধানও দেশটিতে চালু নেই।

সুতরাং, বাইরের দেশ থেকে কেউ নাইজেরিয়ায় এসে বিয়ে করলে তাকে নাগরিকত্ব দেওয়া হবে এবং বিদেশে হানিমুন পাঠানো হবে শীর্ষক একটি ঘোষণা নাইজেরিয়ার প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে; যা বিভ্রান্তিকর। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img