বুধবার, মে 22, 2024
spot_img

ফিফা সভাপতি ইনফান্তিনোর নাম উদ্ধৃত করে প্রচারিত বক্তব্যটি মিথ্যা 

সম্প্রতি “আর্জেন্টিনা দাবি তুললে এমবাপ্পে গোল্ডেন বুট টাও হারাবে।” শীর্ষক শিরোনামের একটি ছবি সম্বলিত তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচারিত হচ্ছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এরকম কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। 
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ফিফার প্রেসিডেন্ট ইনফান্তিনো উক্ত মন্তব্য করেন নি বরং কোনোরূপ তথ্যসূত্র ছাড়াই ভিত্তিহীনভাবে বক্তব্যটি ইনফান্তিনোর বক্তব্য দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে।

গুজবের সূত্রপাত

ফেসবুক মনিটরিং টুল ব্যবহার করে জানা যায়, PSG Fan Club Bangladesh নামক ফেসবুক পেজে গত ২৫ ডিসেম্বর সন্ধ্যা ৬ টা ২৬ মিনিটে উক্ত দাবিতে প্রথম পোস্টটি করা হয়।

পরবর্তী ইনফান্তিনোর নাম উদ্ধৃত করে প্রচারিত বক্তব্যটি ফেসবুকের বিভিন্ন পেজ এবং গ্রুপে ছড়িয়ে পড়ে।

যা দাবি করা হচ্ছে

কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ এর ফাইনালে রেফারিং সমালোচিত হলে উক্ত বক্তব্যটি ইনফান্তিনোর বক্তব্য দাবিতে গত ক’দিন ধরে ফেসবুকে প্রচারিত হতে দেখা যায়।

ফিফার সভাপতি ইনফান্তিনোর ছবি ব্যবহার করে উক্ত ছবিতে বলা হচ্ছে, “ফ্রান্সের দাবি হিসেবে আর্জেন্টিনার গোল বাতিল হয় ১ টা আর ম্যাচে রেফারি সঠিক সিদ্ধান্ত দিলে ফ্রান্সের গোল বাতিল হতো ২ টা। গোল্ডেন বুট ও মেসির গাতে যেত।”

অনুসন্ধানে যা জানা যায়

অনুসন্ধানে, ফিফার প্রেসিডেন্ট ইনফান্তিনোর উক্ত বক্তব্যটি নির্ভরযোগ্য কোনো সূত্রে পাওয়া যায় নি।

এছাড়াও, মূলধারার গণমাধ্যম পর্যবেক্ষণ করেও ইনফান্তিনোর উক্ত বক্তব্যের কোনো ভিত্তি খুঁজে পাওয়া যায় নি।

ফিফার অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ এবং ওয়েবসাইটেও ফাইনাল ম্যাচ সংক্রান্ত উক্ত বক্তব্যের কোনো ভিত্তি খুঁজে পায় নি রিউমর স্ক্যানার।

মূলত, কাতার বিশ্বকাপ ফাইনালে পেনাল্টির সময় সাইডবেঞ্চের খেলোয়াড়দের মাঠে থাকা নিয়ে প্রশ্ন তোলে ফ্রান্সের ফুটবলপ্রেমীরা। উক্ত বিষয়ে রেফারির সিদ্ধান্তে সমালোচনা হয়। উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে ফিফার সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনোর নাম উদ্ধৃত করে উক্ত বক্তব্যটি প্রচারিত হচ্ছে। 

উল্লেখ্য, জিয়ান্নি ইনফান্তিনো ২০১৬ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারী থেকে ফিফার সভাপতি হিসেবে দায়িত্বপালন করছেন। ফিফা ছাড়াও তিনি সুইজারল্যান্ড ও ইতালির ফুটবল প্রশাসক হিসেবে কাজ করেছেন। এছাড়াও, উয়েফা চ্যাম্পিয়ন লীগের মহাসচিবের দায়িত্বও পালন করেন ইনফান্তিনো।

প্রসঙ্গত, ফাইনালে লিওনেল মেসির দ্বিতীয় গোলের মুহূর্তে আর্জেন্টিনার দুই বদলি খেলোয়াড় মাঠে ঢুকে পড়েছিলেন—এমন অভিযোগে গোলটি বাতিলযোগ্য বলে দাবি উঠেছে ফরাসি সংবাদমাধ্যমে। উক্ত ঘটনার প্রেক্ষিতে বাংলাদেশের গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচারিত হয়।  

সুতরাং, “আর্জেন্টিনা দাবি তুললে এমবাপ্পে গোল্ডেন বুট  টাও হারাবে।” শীর্ষক বক্তব্যটি ফিফার সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনোর বক্তব্য দাবিতে প্রচারিত হচ্ছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img