বঙ্গবন্ধু টানেল ছিদ্র হয়ে পানি ঢুকে পড়েছে দাবিতে ছড়ালো চীনের ভিডিও

গত ২৬ মে রাতে ঘূর্ণিঝড় রিমাল বাংলাদেশ ও ভারতের উপকূলে আঘাত হানে। প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা থাকায় চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে নির্মিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেল সাময়িকভাবে বন্ধের সিদ্ধান্ত জানায় টানেল কর্তৃপক্ষ। পরবর্তীতে গতকাল (২৭ মে) সকালে টানেলটি পুনরায় খুলে দেওয়া হয়।

এই পরিস্থিতিতে, বঙ্গবন্ধু টানেল ছিদ্র হয়ে পানি ঢুকার কারণে টানেলটি বন্ধ করা হয়েছে এমন দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে।

গতকাল ‘Mohammad Shahjahan’ নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে ভিডিওটি প্রচার করে লেখা হয়, “গতকালকে চিন্তায় পড়ে গেলাম হঠাৎ কর্ণফুলী টানেল বন্ধ করে দিল কেন এখন বুঝতে পারছি উন্নয়নের ঠেলায় ছিদ্র হয়ে গেল।”

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

টিকটকে প্রচারিত এমন ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি চট্টগ্রামের বঙ্গবন্ধু টানেলের নয় বরং এটি চীনের চংকিং তুঝু টানেলের ভিডিও।

প্রাসঙ্গিক কি-ওয়ার্ড সার্চ করে ‘ZOOM Tv 2.0’ নামক একটি ইউটিউব চ্যানেলের শর্টসে একই ভিডিওর স্পষ্ট সংস্করণ পাওয়া যায়।

উক্ত ভিডিওর শিরোনামে লেখা ছিল, “টানেলের ভেতর পানির লিকেজ” (ভাবানুবাদ)। তবে শিরোনামে ভিডিওটির প্রেক্ষাপট সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দেওয়া হয়নি।

পরবর্তীতে উক্ত ইউটিউব চ্যানেলের স্পষ্ট ভিডিওটির স্থিরচিত্র রিভার্স ইমেজ সার্চ করে, চায়নিজ ম্যাগাজিন চায়না নিউজউইকের অফিসিয়াল সিনা ওয়েইবো অ্যাকাউন্টে গতকাল ২৭ মে প্রকাশিত একটি পোস্টে (আর্কাইভ) একই ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। উক্ত পোস্টটি অনুবাদ করে জানা যায়, ভিডিওতে থাকা টানেলের নাম চংকিং তুঝু টানেল (Chongqing Tuzhu Tunnel)।

Screenshot: Weibo. (Translated)

গত ২৬ মে ‘Byron Wan’ নামক একটি এক্স (সাবেক টুইটার) অ্যাকাউন্টে একই ঘটনার ভিন্ন একটি ভিডিও পাওয়া যায়। এই অ্যাকাউন্ট থেকে প্রচারিত ভিডিওটির ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, “মে ২৬: মাত্র তিন বছর আগে চালু হওয়া চংকিংয়ের তুঝু টানেলে সকাল থেকে পানির প্রবাহ দেখা যাচ্ছে।”

চীনের একাধিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনেও একই তথ্য পাওয়া যায়। এছাড়া চীনা জিমু নিউজের একটি প্রতিবেদনে একই টানেলের আরও একটি ভিডিও পাওয়া যায়, যেখানে কিছু ব্যক্তিকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। যাদের চেহারা এবং পোশাক চীনা ব্যক্তিদের মতো।

Screenshot: Weibo. (Translated)

দাবিকৃত ভিডিওতে থাকা টানেলের সাথে বঙ্গবন্ধু টানেলের তুলনা করলে দেখা যায়, গঠনগতভাবে দুটি টানেলের অবকাঠামো ভিন্ন। এছাড়া বিশ্বস্ত কোনো সূত্রেও বঙ্গবন্ধু টানেলে ছিদ্র হওয়ার কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

Image Comparison: Rumor Scanner.

অর্থাৎ, বিভিন্ন সূত্র যাচাই করে নিশ্চিত হওয়া যায় যে, প্রচারিত ভিডিওটি আসলে চীনের চংকিং তুঝু টানেলের।

মূলত, গত ২৬ মে রাতে ঘূর্ণিঝড় রিমাল বাংলাদেশের উপকূলে আঘাত হানে। প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কায় চট্টগ্রামের বঙ্গবন্ধু টানেল সাময়িকভাবে বন্ধ রেখে পরবর্তীতে খুলে দেওয়া হয়। এই পরিস্থিতিতে বঙ্গবন্ধু টানেল ছিদ্র হয়ে পানি ঢুকে পড়েছে দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায় যে, দাবিকৃত ভিডিওটি আসলে চীনের চংকিং তুঝু টানেলের। গত ২৬ মে চংকিং তুঝু টানেলে ছিদ্র হওয়ার ঘটনা ঘটে।

সুতরাং, বঙ্গবন্ধু টানেল ছিদ্র হয়ে পানি ঢুকে পড়ার কারণে বন্ধ রাখা হয়েছে দাবিতে চীনের একটি টানেলের ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে; যা মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img