সোমবার, জুলাই 22, 2024
spot_img

সাবেক পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদ গ্রেপ্তার হননি রিমান্ডে নেওয়ার ভুয়া দাবি ইউটিউবে    

গত ৩১ মার্চ সাবেক পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদের অবৈধ সম্পদের বিষয়ে একটি জাতীয় দৈনিকে ‘বেনজীরের ঘরে আলাদীনের চেরাগ’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশ করা হয়। পরবর্তীতে, বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম এই বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ করে। এসব সংবাদে বেনজীর আহমেদের বিরুদ্ধে বেশকিছু অভিযোগ উঠে আসে। এসব অভিযোগর প্রেক্ষিতে গত ১৮ এপ্রিল অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক এবং গত ২৩ মে তার সম্পত্তি ও ব্যাংক হিসাব জব্দ করার আদেশ দেয় আদালত। এরই প্রেক্ষিতে গত ০৭ মে ইউটিউবে তাজ টিভি নামে একটি চ্যানেলে একটি ভিডিও পোস্ট করে দাবি করা হচ্ছে, বেনজির আহমেদ গ্রেফতার হয়েছেন এবং তাকে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রাণ ভিক্ষা চেয়েছেন। 

বেনজীর আহমেদ গ্রেপ্তার

প্রচারিত ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

এই প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়া অবধি ভিডিওটি দেখা হয়েছে তিন লক্ষাধিক বার।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, বেনজীর আহমেদকে গ্রেপ্তার বা রিমান্ডে নেওয়ার দাবিটি সঠিক নয় বরং, অধিক ভিউ পাওয়ার আশায় চটকদার থাম্বনেইল ব্যবহার করে ভুয়া এই দাবি প্রচার করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে ভিডিওটির কোথাও বেনজীর আহমেদকে রিমান্ডে নেওয়ার দাবি সম্পর্কিত কোনো সংবাদ ও সূত্র উপস্থাপন করা হয়নি। ভিডিওটি’র থাম্বনেইলে প্রচারিত দাবিটির সাথে বিস্তারিত অংশেরও অসামঞ্জস্যতা রয়েছে।

০৯ মিনিট ১১ সেকেন্ডের ভিডিওর শুরুতে যমুনা টেলিভিশনের গত ২১ মে ২০২৪ এর রাতের সংবাদ’র সংবাদ পাঠিকের ফুটেজ দেখানো হয়। এরপরই যমুনা টেলিভিশনের ২০২৩ সালের ২৯ অক্টোবরের ‘বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল আটক’ সংক্রান্ত সংবাদের সংবাদ পাঠিকার ফুটেজ যুক্ত করা হয়। তারপর, ২০১৯ সালের ২৪ জুলাইয়ের যমুনা টেলিভিশনের ‘তসলিমার ঘাতক হৃদয় ৫ দিনের রিমান্ডে’ শিরোনামের একটি সংবাদের সংবাদ পাঠিকার ক্লিপ যুক্ত করা হয়েছে প্রচারিত ভিডিওতে। পরবর্তীতে, চলতি বছরের ২১ এপ্রিল বেনজীর আহমেদ সম্পর্কে প্রচারিত ‘বেনজীর আহমেদ:সব অভিযোগই কি মিথ্যা?’ শিরোনামের দেশ টিভির টকশোর ফুটেজ জুড়ে দেয়া হয়। এই প্রত্যেকটি ফুটেজই হরিজন্টালি ফ্লিপ করে যুক্ত করা হয়েছে।

Screenshot Collage: Rumor Scanner

তারপর একজন উপস্থাপক বেনজীর আহমেদকে নিয়ে সূত্র ছাড়াই কিছু তথ্য দেন। পরবর্তীতে পুরো ভিডিওজুড়ে দেশ টিভির টকশোটি দেখানো হয়। 

পুলিশের সাবেক একজন গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার ও রিমান্ডে নেওয়া হলে তা অবশ্যই মূলধারার গণমাধ্যমগুলোতে গুরুত্বের সাথে প্রচার করা হত। অনুসন্ধানে মূলধারার গণমাধ্যমে এমন কোনো সংবাদ পাওয়া যায়নি।

মূলত, সাম্প্রতিক সময়ে Taj tv নামের একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে প্রকাশিত এক ভিডিওতে সাবেক পুলিশ প্রধান বেনজীর আহমেদকে রিমান্ডে নেওয়া হয়েছে ও তিনি প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রাণ ভিক্ষা চেয়েছেন দাবি করা হয়। কিন্তু রিউমর স্ক্যানার যাচাই করে দেখেছে ল দাবিটি সঠিক নয়। বেনজীর আহমেদকে গ্রেপ্তার বা রিমান্ডে নেওয়ার কোনো ঘটনা ঘটেনি। 

সুতরাং, বেনজীর আহমেদকে রিমান্ডে নেয়া ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রাণ ভিক্ষা চাওয়ার দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img