‘ফেসবুক ব্যবহারে মাসে ১২০০ টাকা দিতে হবে’ শীর্ষক দাবিটি বিভ্রান্তিকর

সম্প্রতি ‘ফেসবুক আর ফ্রিতে ব্যবহার করা যাবে না। মাসে ১২০০ টাকা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ব্যবহার  করতে হবে’ শীর্ষক শিরোনামে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানেএখানে
আর্কাইভ  দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানেএখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ফেসবুক ব্যবহারে প্রতি মাসে দিতে হবে ১২০০ টাকা দিতে শীর্ষক দাবিটি বিভ্রান্তিকর। প্রকৃতপক্ষে, ভবিষ্যতে ফেসবুকের ব্লু বেইজ সুবিধা নিতে হলে বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১২০০ টাকা দিতে হবে এমন নিয়ম শীঘ্রই চালু হবে বলে জানিয়েছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। এছাড়া, সাধারণ ব্যবহারকারীদের ফেসবুক ব্যবহারে টাকা দিতে হবে এমন কোনো তথ্য জানায়নি ফেসবুক।

গুজবের সূত্রপাত

কি-ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে দেশীয় মূলধারার গণমাধ্যমে এই সংক্রান্ত প্রতিবেদনে বিভ্রান্তিকর শিরোনাম খুঁজে পাওয়া যায়। যার ফলে নেটিজেনদের মধ্যেও বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে। যেমন, জাতীয় দৈনিক যুগান্তর গত ২২ ফেব্রুয়ারি ‘ফেসবুক ব্যবহারে মাসে লাগবে ১ হাজার ২৫০ টাকা!‘ শীর্ষক শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে৷ 

Screenshot: Daily Jugantor

প্রতিবেদনটিতে গণমাধ্যমটি বিবিসির সূত্রে জানায়, ‘নতুন নিয়ম করতে যাচ্ছে ফেসবুক। এখন থেকে জনপ্রিয় এই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমটি চালাতে হলে প্রতিমাসে পরিশোধ করতে হবে ১১ দশমিক ৯৯ মার্কিন ডলার। যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ১ হাজার ২৫০ টাকারও বেশি। 

তবে এ টাকা পরিশোধ করতে হবে ‘ব্লু টিক ভেরিফিকেশন’ সুবিধা নেওয়া ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানগুলো। এদিকে আইফোন ব্যবহারকারীদের বেলায় এ খরচ আরেকটু বেশি। তাদের পরিশোধ করতে হবে ১৪ দশমিক ৯৯ ডলার।’  অর্থাৎ কেউ ফেসবুকের ব্লু বেইজ সুবিধা নিতে চাইলে তাকে বাংলাদেশি টাকায় মাসিক হারে উক্ত অর্থ পরিশোধ করতে হবে। 

কিন্তু শিরোনামে মূল বিষয়টি উল্লেখ না করে সরাসরি ফেসবুক ব্যবহারে মাসে ১ হাজার ২৫০ টাকা লাগবে উল্লেখ করায় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে। 

Image: Claim Post

ব্লু বেইজ ও অর্থের বিনিময়ে ফেসবুক ব্যবহার নিয়ে মার্ক জাকারবার্গ কি বলছেন?

ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গ তার ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে গত ২০ ফেব্রুয়ারি  ‘New Product Announcement‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি স্ট্যাটাসে জানান,

Good morning and new product announcement: this week we’re starting to roll out Meta Verified — a subscription service that lets you verify your account with a government ID, get a blue badge, get extra impersonation protection against accounts claiming to be you, and get direct access to customer support. This new feature is about increasing authenticity and security across our services. Meta Verified starts at $11.99 / month on the web or $14.99 / month on iOS. We’ll be rolling out in Australia and New Zealand this week and more countries soon.

Screenshot: Mark Zuckerberg Facebook Post 

অর্থাৎ, ফেসবুকের মূল প্রতিষ্ঠান মেটা ভ্যারিফাইড সাবস্ক্রিপশন সেবা চালু করতে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে ভ্যারিফাইড একাউন্ট ব্যবহার ও ব্লু বেইজ পেতে এন্ড্রয়েড বা ওয়েব ব্যবহারকারীদের গুণতে হবে ১১.৯৯ ডলার (বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১২০০ টাকা) এবং আইওএস বা আইফোন ব্যবহারকারীদের গুণতে হবে ১৪.৯৯ ডলার (বাংলাদেশি টাকায়  প্রায় ১৪০০ টাকা)। এই সুবিধাটি এই সপ্তাহে মি অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডে চালু হবে এবং শীঘ্রই অন্যান্য দেশেও চালু হবে৷ 

মূলত, ফেসবুকের মূল প্রতিষ্ঠান মেটার নির্বাহী মার্ক জাকারবার্গ গত ১৯ ফেব্রুয়ারি জানান, মেটা ভ্যারিফাইড সাবস্ক্রিপশন সেবা চালু করতে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে ভ্যারিফাইড একাউন্ট ব্যবহার ও ব্লু বেইজ পেতে এন্ড্রয়েড বা ওয়েব ব্যবহারকারীদের গুণতে হবে ১১.৯৯ ডলার (বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১২০০ টাকা) এবং আইওএস বা আইফোন ব্যবহারকারীদের গুণতে হবে ১৪.৯৯ ডলার (বাংলাদেশি টাকায়  প্রায় ১৪০০ টাকা)। এই বিষয়টি নিয়ে মূলধারার গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের শিরোনামে বিষয়টি উল্লেখ না করে সরাসরি ফেসবুক ব্যবহারে মাসে ১ হাজার ২৫০ টাকা লাগবে উল্লেখ করায় ফেসবুক ব্যবহারকারীদের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়িয়ে পড়ে। এরই প্রেক্ষিতে ফেসবুকে প্রচার করা হয় যে, ‘ফেসবুক আর ফ্রিতে ব্যবহার করা যাবে না। মাসে ১২০০ টাকা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে ব্যবহার  করতে হবে।’

সুতরাং, ‘ফেসবুক আর ফ্রিতে ব্যবহার করা যাবে না এবং ব্যবহার করতে মাসে দিতে হবে ১২০০ টাকা’ শীর্ষক দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img