মৃত গবাদিপশুর ছবিটি বাংলাদেশের চলমান বন্যার ঘটনার নয়

সম্প্রতি, “যেখানে একটা গরুর দাম ৬০ হাজার থেকে ১ লাখ পর্যন্ত সেই গরু এভাবে মরে পরে আছে। সিলেট বাসী কতোটা অসহায়” শীর্ষক শিরোনামে একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

গবাদি

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। পোস্টগুলো আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত মৃত গবাদিপশুর ছবিটি সিলেটের চলমান বন্যার নয় বরং এটি ভারতের মেঘালয়ের বন্যার ছবি।

রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতি ব্যবহার করে, ভারতের উত্তর-পূর্ব অঞ্চল ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম North East Now এর ওয়েবসাইটে গত ১০ জুন “Meghalaya: Floods, landslides wreak havoc in Garo Hills” শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে মূল ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot North East Now website

পরবর্তীতে কিওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে, ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের ওয়েবসাইটে গত ১৫ জুন “Incessant rains, fierce winds wreak havoc in western Meghalaya, 4 dead” শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে মেঘালয়ের বৃষ্টি ও বন্যা পরিস্থিতি সম্পর্কিত তথ্য পাওয়া যায়।

মূলত, ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চল মেঘালয়ে ভারী বর্ষণের ফলে বন্যার সৃষ্টি হয়েছে। একইসাথে ভূমিধ্বসও ঘটছে। মেঘালয়ের পশ্চিম গারো পাহাড় এবং দক্ষিণ পশ্চিম গারো পাহাড়ি জেলাগুলো ভূমিধ্বসের কারণে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। অতিবৃষ্টির ফলে সৃষ্ট বন্যা ও ভূমিধ্বসে গারো পাহাড় অঞ্চলে বসবাসরত কয়েকজন মানুষসহ কিছু গবাদিপশুর মৃত্যু হয়েছে। ভারতের মেঘালয়ে মৃত গবাদিপশুদের একটি ছবিই বর্তমানে বাংলাদেশের বন্যা পরিস্থিতিতে সিলেটের ছবি দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে।

আরো পড়ুনঃ পানিতে ভাসমান মৃত শিশুর ছবিটি বাংলাদেশে চলমান বন্যার ঘটনার নয়

প্রসঙ্গত, ভারতের মেঘালয়ের চেরাপুঞ্জিতে ভারী বর্ষণের কারণে বৃহস্পতিবার (১৬ জুন) রাত থেকে ১২ ঘন্টাতেই সুনামগঞ্জে চার ফুট পানি বেড়ে যায়। ফলে বন্যার ভয়াবহতায় দিশেহারা হয়ে পড়ে সুনামগঞ্জের মানুষ। সুনামগঞ্জ ছাড়াও এই বন্যায় সিলেট বিভাগের প্রায় সব এলাকাই পানিতে ডুবে যায়।  আগামী দুই দিনে এই পানি আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। সর্বশেষ পাওয়া তথ্যমতে আজ সিলেটে ভারী বৃষ্টি থেমেছে এবং ৪দিন পর সূর্যের দেখা মিলেছে। তবে নদ-নদী দিয়ে ভারতের উজান থেকে পাহাড়ি ঢল আসা অব্যাহত আছে। সিলেট নগরের কিছু উঁচু স্থানে পানি কমলেও সার্বিক অর্থে বন্যা পরিস্থিতি এখনো অপরিবর্তিত আছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) তথ্য অনুযায়ী, সিলেটের সব কটি নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত আছে।

সুতরাং, ভারতের মেঘালয়ের বন্যায় মৃত গবাদিপশুর ছবিকে বাংলাদেশের চলমান বন্যা পরিস্থিতির ছবি দাবিতে ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img