চ্যানেল২৪ এর ফটোকার্ড বিকৃত করে ঢাবির শিক্ষার্থীর ভুল ছবি প্রচার

সম্প্রতি, “ফেসবুকে সুইসাইড নোট পোস্ট, পুলিশ গিয়ে দেখে আড্ডা দিচ্ছে ঢাবি শিক্ষার্থী” শীর্ষক শিরোনামের সাথে এক ব্যক্তির ছবি ব্যবহার করে মূলধারার গণমাধ্যম ‘চ্যানেল২৪’ এর আদলে তৈরি করা একটি ফটোকার্ডের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)  এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, “ফেসবুকে সুইসাইড নোট পোস্ট, পুলিশ গিয়ে দেখে আড্ডা দিচ্ছে ঢাবি শিক্ষার্থী” শীর্ষক তথ্যে যে ব্যক্তির ছবি সম্বলিত ফটোকার্ডটি চ্যানেল২৪ এর দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে তা চ্যানেল২৪ প্রকাশ করেনি বরং সম্প্রতি চ্যানেল২৪ এর ফেসবুক পেজে একই শিরোনামে প্রচারিত একটি ফটোকার্ডে থাকা ঢাবির এক শিক্ষার্থীর ছবির স্থলে উক্ত ব্যক্তির ছবি বসিয়ে আলোচিত ফটোকার্ডটি তৈরি করা হয়েছে। 

অনুসন্ধানের শুরুতে চ্যানেল২৪ এর প্রচারিত ফটোকার্ডটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। এতে সংবাদটি প্রচারের তারিখ দেখানো হয়েছে ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩।

দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে ফটোকার্ডটিতে থাকা তারিখ এবং চ্যানেল২৪ এর লোগোর সূত্র ধরে চ্যানেল২৪ এর ফেসবুক পেজে গত ০৬ সেপ্টেম্বর প্রচারিত একটি ফটোকার্ড পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়। এই ফটোকার্ডে একই শিরোনাম থাকলেও আলোচিত ব্যক্তির ছবির স্থলে ভিন্ন আরেক ব্যক্তির ছবি দেখা যায়।

Photocard Comparison by Rumor Scanner 

অর্থাৎ, চ্যানেল২৪ এর ফেসবুক পেজে প্রকাশিত একটি ফটোকার্ডে থাকা সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির ছবি বদলে দিয়ে ভিন্ন ব্যক্তির ছবি বসিয়ে প্রচার করা হয়েছে। 

পরবর্তী অনুসন্ধানে একই তারিখে চ্যানেল২৪ এর ওয়েবসাইটে “ফেসবুকে সুইসাইড নোট পোস্ট, পুলিশ গিয়ে দেখে আড্ডা দিচ্ছে ঢাবি শিক্ষার্থী” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, প্রেমের সম্পর্কে ভাটা পড়ায় রাজবাড়ী শহরের ৭নং ওয়ার্ডের ভবানিপুর গ্রামের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের তৃতীয় বর্ষ পড়ুয়া শিক্ষার্থী ফেরদৌস নাঈম ফেসবুকে সুইসাইড নোট লিখে আত্মহত্যার মিথ্যে হুমকি দিয়েছেন। সেই সুইসাইড নোটটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে রাজবাড়ী জেলা পুলিশের নজরে আসে। তাৎক্ষণিক পুলিশের মোবাইল টিম ওই যুবককে উদ্ধার করতে বাড়িতে গিয়ে দেখে পরিবারের সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছে যুবক।  

এ বিষয়ে আরো অনুসন্ধান করে ফেসবুকে ছড়িয়েপড়া ফটোকার্ডটিতে থাকা ব্যক্তির সন্ধান পেয়েছে রিউমর স্ক্যানার। শামিম হোসেন নামে উক্ত ব্যক্তি আলোচিত ছবিটি তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে প্রোফাইল পিকচার হিসেবে আপলোড করেন গত ০২ সেপ্টেম্বর। শামিমের অ্যাকাউন্ট থেকে জানা যায়, তিনিও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী। বর্তমানে তিনি ইংরেজি বিভাগে পড়াশোনা করছেন। 

Screenshot source: Facebook 

মূলত, রাজবাড়ীতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের তৃতীয় বর্ষ পড়ুয়া শিক্ষার্থী ফেরদৌস নাঈম ফেসবুকে সুইসাইড নোট লিখে আত্মহত্যার মিথ্যে হুমকি দেওয়ার পর পুলিশের মোবাইল টিম ওই যুবককে উদ্ধার করতে বাড়িতে গিয়ে দেখে পরিবারের সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছে যুবক। এ বিষয়ে গত ০৬ সেপ্টেম্বর ‘চ্যানেল২৪’ এর ফেসবুক পেজে উক্ত ব্যক্তির ছবি সম্বলিত একটি ফটোকার্ড প্রচারিত হয়। পরবর্তীতে উক্ত ফটোকার্ডে থাকা ব্যক্তির ছবিটির স্থলে ঢাবির আরেক শিক্ষার্থীর ছবি বসিয়ে ফেসবুকে প্রচার করা হয়। 

উল্লেখ্য, গত আট মাসে বিভিন্ন গণমাধ্যমের নাম, লোগো, শিরোনাম এবং নকল ফটোকার্ড ব্যবহার করে অপপ্রচারের বিষয়ে বিস্তারিত ফ্যাক্ট ফাইল প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, চ্যানেল২৪ এর ফটোকার্ডে থাকা ঢাবির এক শিক্ষার্থীর ছবির স্থলে ঢাবির আরেক শিক্ষার্থীর ছবি বসিয়ে ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে; যা এডিটেড বা বিকৃত।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img