সোমবার, জুলাই 22, 2024
spot_img

বুক চিন চিন করছে হায় শীর্ষক নাচের ভিডিওটি নতুন শিক্ষাক্রমের সাথে সম্পর্কিত নয়

সম্প্রতি, নতুন জাতীয় শিক্ষাক্রমের বিষয়ে ইন্টারনেটের বিভিন্ন মাধ্যমে আলোচনা-সমালোচনা দেখেছে রিউমর স্ক্যানার টিম। এর মধ্যেই একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যাতে দেখা যাচ্ছে, একটি স্কুলের মাঠে একজন মেয়ে ও একজন পুরুষ বুক চিন চিন করছে নামক গানের সাথে নাচে অংশ নিয়েছেন। দাবি করা হচ্ছে, এটি বাংলাদেশ সরকারের নতুন শিক্ষাক্রমের দৃশ্য৷ 

বুক চিন চিন করছে হায়

উক্ত দাবিতে প্রচারিত এ সংক্রান্ত ফেসবুকের ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

একই ভিডিও পোস্ট করে একাধিক ফেসবুক ব্যবহারকারী ক্যাপশনে বাংলাদেশের শিক্ষা ব্যবস্থার সমালোচনা করেছেন। দাবি করছেন, এখানে যে মেয়েকে নাচতে দেখা যাচ্ছে সে তৃতীয় শ্রেনীর শিক্ষার্থী৷  

উক্ত দাবিতে প্রচারিত এ সংক্রান্ত ফেসবুকের ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

এছাড়া, কিছু পোস্টে এই ভিডিওর দৃশ্যকে ছাত্রীর সাথে শিক্ষকের নাচের দৃশ্য বলে দাবি করেছেন।

উক্ত দাবিতে প্রচারিত এ সংক্রান্ত ফেসবুকের ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

উল্লিখিত দাবিগুলোতে সংযুক্ত পোস্টগুলো বিশ্লেষণ করে দেখা যায়, এই প্রতিবেদন প্রকাশ অবধি ভিডিওটি প্রায় ১৫ লক্ষ বা ১.৫ মিলিয়ন বার দেখা হয়েছে। ভাইরাল পোস্টগুলোর মন্তব্যঘর ঘুরে পোস্টটির দাবির প্রেক্ষিতে অধিকাংশ নেটিজেনকে নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া জানাতে দেখা যায়।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, বুক চিন চিন করছে শীর্ষক নাচের ভিডিওটি নতুন শিক্ষাক্রমের সাথে সম্পর্কিত নয় বরং কুমিল্লার ‘মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশন’ নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গত ফেব্রুয়ারিতে প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের একটি অনুষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিক্ষার্থী ও একজন যাদু শিল্পীর নাচের দৃশ্য এটি৷ 

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে আলোচিত ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে অনুষ্ঠানস্থলের নাম ‘মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশন’ উল্লেখ পাওয়া যায়। 

Screenshot: Facebook 

এই বিদ্যালয়টি কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় অবস্থিত। 

প্রাসঙ্গিক কিওয়ার্ড সার্চ করে Al Mamun Chhoton নামের একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্টে গত ১০ ডিসেম্বর প্রকাশিত একটি ভিডিওর (আর্কাইভ) অনুষ্ঠানস্থলের সাথে আলোচিত ভিডিওটির অনুষ্ঠানস্থলের দৃশ্যমান মিল পাওয়া যায়। 

ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, এটি মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশনের ‘শিক্ষক কর্মচারীদের অবসরোত্তর সম্মাননা, কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও উপহার প্রদান এবং প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের ১৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন’ অনুষ্ঠানের ভিডিও। গত ২১ ফেব্রুয়ারি এই অনুষ্ঠানটি হয়েছিল। জনাব ছোটন সেসময়েও এ সংক্রান্ত একাধিক ভিডিও প্রকাশ করেছিলেন। দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

Screenshot: Facebook

জনাব ছোটনের অ্যাকাউন্ট (আর্কাইভ) পর্যবেক্ষণ করে জানা যাচ্ছে, তিনি মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশনের প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের সভাপতি। এই পরিষদই আলোচিত অনুষ্ঠানটির আয়োজক ছিল। 

আমরা ছোটনের সাথে আলোচিত ভিডিওটির বিষয়ে কথা বলেছি। তিনি রিউমর স্ক্যানারকে বলেছেন, এটা একটা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের দৃশ্য। এখানে যে দুইজনকে নাচতে দেখা যাচ্ছে তাদের একজন ভাড়াটে যাদুশিল্পী এবং আরেক জন ক্লাস সিক্সে পড়ুয়া ছাত্রী।

এই অনুষ্ঠানের বিষয়ে ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশিত গণমাধ্যমের সংবাদ দেখুন Gnews24, আলোকিত সকাল। 

মূলত, গত ২১ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লার তিতাসের ‘মাছিমপুর আর আর ইনস্টিটিউশন’ নামে একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে  প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের একটি অনুষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিক্ষার্থী ও একজন যাদু শিল্পী বুক চিন চিন শীর্ষক গানের মাধ্যমে নাচ পরিবেশন করেন। উক্ত নাচের ভিডিও সম্প্রতি ইন্টারনেটে প্রচার করে দাবি করা হচ্ছে, এটি নতুন শিক্ষাক্রমের দৃশ্য। 

উল্লেখ্য, নতুন শিক্ষাক্রমের বিষয়ে ছড়িয়ে পড়া ভুল তথ্য প্রতিরোধে অবদান রাখায় গত ০৯ ডিসেম্বর ‘পজেটিভ ইনফ্লুয়েন্সার অ্যাওয়ার্ড’-এ ভূষিত হয়েছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, কুমিল্লার একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গত ফেব্রুয়ারিতে প্রাক্তন ছাত্র পরিষদের একটি অনুষ্ঠানে ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিক্ষার্থী ও একজন যাদু শিল্পীর নাচের দৃশ্যকে নতুন শিক্ষাক্রমের দৃশ্য দাবিতে ইন্টারনেটে প্রচার করা হয়েছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

  • Al Mamun Chhoton: Facebook Post
  • Statement from Al Mamun Chhoton
  • Rumor Scanner’s own investigation 
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img