বৃহস্পতিবার, মে 30, 2024
spot_img

ভিডিওটি ইসরায়েলের কোনো সামরিক কর্মকর্তা আটকের নয়

সম্প্রতি, ‘ ইসরায়েলের কমান্ডার, যার কথামত ফিলিস্তিনে হামলা করা হতো। সে এখন ফিলিস্তিনের পুলিশের হাতে আটক হয়েছে‘- শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও ইন্টারনেটে প্রচার করা হচ্ছে। 

ইসরায়েলের

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু ভিডিও পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

টিকটকে প্রচারিত এমন কিছু ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক 

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর কমান্ডারকে আটকের দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি চলমান ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাতের নয়। বরং  আজারবাইজানে সন্ত্রাসী কার্যক্রমে জড়িত থাকার অভিযোগে আটককৃত আরাইক হারুটিউনিয়ান নামে এক ব্যক্তিকে কারাগারে প্রেরণের ভিডিওকে উক্ত দাবিতে প্রচার করা হয়েছে।   

দাবিটি নিয়ে অনুসন্ধানে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে আজারবাইজানের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বাহিনী ডিটিএক্সের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে গত ০৫ অক্টোবর “Arayik Harutyunyan was brought to criminal responsibility” (আজারবাইজানি ভাষা থেকে অনুদিত)’ শীর্ষক শিরোনামে একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়। 

Screenshot comparison: Rumor Scanner

এই ভিডিওটির সাথে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর কমান্ডার আটকের দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটির হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

এছাড়া ভিডিওটির বিস্তারিত বিবরণী থেকে জানা যায়, ভিডিওটিতে থাকা ব্যক্তিটি আজারবাইজানের কারাবাখ অঞ্চলে সন্ত্রাসী কার্যক্রমে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া আরাইক হারুটিউনিয়ান নামে এক ব্যক্তি। তাকে গত ৩ অক্টোবর দেশটির খানকেন্দি শহর থেকে গ্রেফতার করে আজারবাইজানের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা সংস্থা। বর্তমানে তার বিরুদ্ধে তদন্ত চলমান রয়েছে। 

অপরদিকে গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, ইসরায়েল-ফিলিস্তিন চলমান সংঘাত শুরু হয়েছে গত শনিবার (৭ অক্টোবর)। এ থেকে প্রতীয়মান হয় যে, ইসরায়েল-ফিলিস্তিন চলমান সংঘাত শুরুর পূর্ব থেকেই ইন্টারনেটে ভিডিওটির অস্তিত্ব ছিল।

মূলত, গত ০৭ অক্টোবর ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সশস্ত্র গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলে ‘অপারেশন আল-আকসা ফ্লাড’ নামে হামলা শুরু করে। এতে হামাস ও ইসরায়েল উভয়পক্ষেই প্রাণহানি ও হামাসের হাতে ইসরায়েলি সেনা আটকের বেশ কিছু ঘটনা ঘটে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি ইন্টারনেটে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর কমান্ডার আটকের দাবিতে একটি ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে। তবে অনুসন্ধানে দেখা যায়, আলোচিত ভিডিওটি ইসরায়েল-ফিলিস্তিন চলমান সংঘাত শুরুর পূর্ব থেকেই ইন্টারনেটে বিদ্যমান এবং এটি আজারবাইজানের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক দেশটির কারাবাখ অঞ্চল থেকে সন্ত্রাসী কার্যক্রমে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতার হওয়া আরাইক হারুটিউনিয়ান নামের এক ব্যক্তিকে কারাগারে প্রেরণের ভিডিও। 

উল্লেখ্য, পূর্বের ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর কর্মকর্তাদের আটকের দাবিতে ভিন্ন ভিডিও প্রচার করা হলে তা শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার। 

সুতরাং, ইসরায়েল-ফিলিস্তিন চলমান সংঘাতে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর কমান্ডারকে আটকের দাবিতে ইন্টারনেটে একটি ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে; যা মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img