সাবেক শিবির নেতা ইয়াসিন আরাফাত ও তার সন্তান নিয়ে ভুল তথ্য প্রচার

সম্প্রতি, “আলহামদুলিল্লাহ, জালিম সরকারের কারাগার থেকে দুই বছর পর মুক্তি পেয়েই কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ার সুসংবাদ পেলেন শিবিরের সাবেক সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত ভাই। এজন্য তিনি সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।” শীর্ষক একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানেএখানে।  আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানেএখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, ‘দুই বছর পর জেল থেকে মুক্ত হয়ে সাবেক ছাত্রশিবির সভাপতি ইয়াসিন আরাফাতের কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ার সুসংবাদ’ পাওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ বানোয়াট বরং তিনি বিয়ের প্রায় দেড় বছরের মধ্যেই বাবা হয়েছিলেন এবং উক্ত সময়ে তিনি জেলে ছিলেন না।

অনুসন্ধানে মাধ্যমে, শিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াসিন আরাফাত এর অফিশিয়াল ফেসবুক পেজ ‘Yeasin Arafat’ এ ২০২০ সালের ১৭ আগস্ট তার কন্যা সন্তান লাভের বিষয় নিয়ে করা একটি ফেসবুক পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়। উক্ত পোস্টে তিনি নবজাতকের কয়েকটি ছবি সংযুক্ত করেছিলেন। এই পোস্ট থেকেই সদ্য ভূমিষ্ট নবজাতক হাতে জনাব ইয়াসিন আরাফাতের তোলা একটি ছবি সংগ্রহ করে ভুয়া তথ্য সম্বলিত পোস্টটি প্রচার করা হচ্ছে।

অনুসন্ধানে আরো দেখা যায়, ছাত্রশিবিরের সাবেক এই সভাপতি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন ২০১৯ সালের ১৭ মার্চ। উক্ত দিনে নিজের অফিশিয়াল ফেসবুক পেজে তার করা এক পোস্ট থেকে বিষয়টি জানা যায়।

অর্থাৎ, তিনি বিয়ে করার পর প্রায় দেড় বছর বা ১৭ মাস এর মধ্যে কন্যা সন্তানের পিতা হয়েছেন।

তাই সাম্প্রতিক পোস্টগুলোতে ‘তিনি দুই বছর পর মুক্তি পেয়েই কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ার সুসংবাদ পেয়েছেন’ শীর্ষক যে তথ্য প্রচার করা হয়ছে তা মিথ্যা ও বানেয়াট।

এছাড়াও জনাব ইয়াসিন আরাফাতের সামাজিক মাধ্যম এক্টিভিটি পর্যালোচনা করে দেখে গেছে, ২০১৯ সালের ১৭ মার্চ বিবাহ এর পর ২০২০ সালের ১৭ আগস্ট সন্তান লাভ পর্যন্ত পুরো সময়টাতেই তিনি মুক্ত ছিলেন। নিচে উক্ত সময়ে তার ফেসবুক এক্টিভিটির সারসংক্ষেপ তুলে ধরা হলো-

১৭ মার্চ ২০১৯  –  তিনি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। 

৩ এপ্রিল ২০১৯  – তিনি তার ফেসবুক পেজে একটি নতুন প্রোফাইল পিকচার প্রকাশ করেন।

২০ মে ২০১৯  – বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা, কুষ্টিয়া আয়োজিত এসএসসি, দাখিল ও সমমান পরীক্ষা’১৯ এ GPA-5 প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদেরকে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন।

৩ জুন ২০১৯ – বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির নাঙ্গলকোট উপজেলার উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ-২০১৯ এ উপস্থিত হয়ে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেন।

২৬ জুলাই ২০১৯ – ছাত্রশিবির সিলেট মহানগর আয়োজিত এইচএসসি ও আলিম পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা-২০১৯ অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে অংশগ্রহণ করেন। 

১৩ আগস্ট, ২০১৯ – নাঙ্গলকোটে নিজ গ্রামে পুর্ববামপাড়া প্রবাহ সমাজকল্যাণ সংস্থার উদ্যোগে অসহায় ও দুস্থদের মাঝে কুরবানির গোস্ত বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে গোস্ত বিতরণ করেন।

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ – ছাত্রশিবির চট্টগ্রাম অঞ্চল দক্ষিণ আয়োজিত সদস্যপ্রার্থী শিক্ষাশিবির -২০১৯ এ উপস্থিত ছিলেন।

১৭ অক্টোবর ২০১৯ – ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় মাদরাসা কার্যক্রম সম্পাদক সাদেক বিল্লাহ এর বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন।

৭ নভেম্বর ২০১৯ – ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মরহুম সাদেক হোসেন খোকার জানাযায় অংশগ্রহণ করেন।

৩০ ডিসেম্বর ২০১৯ – ছাত্রশিবির গাজীপুর মহানগর আয়োজিত ২ দিনব্যাপী লিডারশীপ ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রাম-২০১৯ এ অংশ নেন।

২৪ জানুয়ারি ২০২০ – নাঙ্গলকোট উন্নয়ন পরিষদ এর মিলনমেলা ও বনভোজন-২০২০ এ অংশগ্রহণ। 

২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ – আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে গুলশান জোন আন্তঃথানা যুব ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনালে উপস্থিত থাকেন।

১৩ মার্চ ২০২০ – করোনা ভাইরাসসহ সকল প্রকার ব্যাধি থেকে দেশের মানুষের হেফাজত কামনায় বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগরী উত্তর আয়োজিত দোয়া মাহফিলে উপস্থিত থাকেন।

৩ এপ্রিল ২০২০ – করোনা থেকে বাঁচার দোয়া সংক্রান্ত ভিডিও আলোচনা ইউটিউবে আপলোড করে ফেসবুকে লিংক শেয়ার করেন।

২৫ মে ২০২০ – ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ঈদ মোবারক শিরোনামে ফেসবুক লাইভ করেন।

২ আগস্ট ২০২০ – ঈদুল আযহা উপলক্ষে ফেসবুক লাইভ করেন। 

১৭ আগস্ট ২০২০ – তিনি কন্যা সন্তানের বাবা হন।

অর্থাৎ, উক্ত সময়ে তার ফেসবুকে পোস্টকৃত কার্যক্রম থেকে বোঝা যায় বিয়ে করা থেকে সন্তান লাভ অবধি এই পুরো সময়টায় তিনি মুক্ত ছিলেন, জেলে ছিলেন না।

গুজবের সূত্রপাত

মূলত এই ভুয়া তথ্যটি সাম্প্রতিক সময়ে প্রচার করা হলেও এটি প্রথম প্রচার করা হয় ২০২০ সালে। অনুসন্ধানে এই বিষয়ে প্রথম পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায় যা ২০২০ সালের ৯ সেপ্টেম্বরে করা হয়েছিলো। সেসময়ের কিছু পোস্ট দেখুন এখানে , এখানেএখানে।

মূলত, জনাব ইয়াসিন আরাফাত এর ফেসবুক পেজে ২০২০ সালের ১৭ আগস্ট বাবা হওয়া সংক্রান্ত করা সেই ফেসবুক পোস্ট থেকে একটি ছবি সংগ্রহ করে ২০২০ সালের ৯ সেপ্টেম্বর এই অপপ্রচার সংক্রান্ত প্রথম পোস্টটি করা হয়। সেসময়ের করা একটি ফেসবুক পোস্টের স্ক্রিনশট সাম্প্রতিক সময়েও প্রচার করা হচ্ছে।

সুতরাং, “জেল থেকে দুই বছর পর মুক্তি পেয়েই কন্যা সন্তান জন্ম হওয়ার সুসংবাদ পেলেন শিবিরের সাবেক সভাপতি ইয়াছিন আরাফাত” শীর্ষক তথ্যটি সম্পূর্ণ বানোয়াট ও মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

Yasin Arafat Facebook Posts:

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img