‘আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই, সুষ্ঠু নির্বাচন আপনাকে দিতেই হবে’ শীর্ষক মন্তব্যটি মার্কিন রাষ্ট্রদূতের নয়

সম্প্রতি, “আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই, সুষ্ঠু নির্বাচন আপনাকে দিতেই হবে” শীর্ষক একটি তথ্য বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার ডি. হাসের মন্তব্য দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমনকিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার ডি. হাস ”আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই, সুষ্ঠু নির্বাচন আপনাকে দিতেই হবে” শীর্ষক কোনো মন্তব্য করেননি বরং কোনো তথ্যসূত্র ছাড়াই ভিত্তিহীনভাবে উক্ত দাবিটি প্রচার করা হয়েছে। 

উল্লিখিত দাবির সত্যতা যাচাইয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাম্প্রতিক কার্যক্রম এবং বক্তব্য পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম।

প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে মূলধারার গণমাধ্যম প্রথম আলোর অনলাইন সংস্করণে গত ০৬ জুন ‘প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বৈঠক’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: Prothom Alo

প্রতিবেদনে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হককে উদ্ধৃত করে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাথে আলোচনার বিষয়ে বলা হয়। আনিসুল হক প্রথম আলোকে বলেন, “তাঁদের সঙ্গে বৈঠকে মার্কিন রাষ্ট্রদূত মূলত শ্রম আইন নিয়ে আলোচনা করেছেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশের শ্রম আইন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কিছু বক্তব্য ছিল। সে সব বিষয় নিয়েই রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের সরকারের বক্তব্য জানতে চেয়েছেন এবং এই আলোচনা অব্যাহত থাকবে।”

প্রতিবেদনটিতে বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে আলোচিত মন্তব্য সম্পর্কিত কোনো আলোচনার কথা উল্লেখ করা হয়নি। এছাড়া মূলধারার গণমাধ্যম সমকালের অনলাইন সংস্করণে গত ০৬ জুন ‘মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের সঙ্গে মির্জা ফখরুলের বৈঠক’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: Samakal

প্রতিবেদনে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি এবং বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বৈঠকের বিষয়ে বলা হলেও সেখানে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের বক্তব্যের বিষয়ে বিস্তারিত কোনো তথ্য উল্লেখ করা হয়নি।

এছাড়াও বাংলাদেশস্থ মার্কিন দূতাবাসের ওয়েবসাইট এবং ভেরিফাইড ফেসবুক পেজ পর্যবেক্ষণ করেও সেখানে বাংলাদেশের নির্বাচন নিয়ে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাম্প্রতিক কোনো বক্তব্য বা মন্তব্য খুঁজে পাওয়া যায়নি। 

পাশাপাশি, আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম কিংবা অন্যকোনো নির্ভরযোগ্য সূত্রে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের  “আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই, সুষ্ঠু নির্বাচন আপনাকে দিতেই হবে” শীর্ষক মন্তব্যের কোনো অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি।

অর্থাৎ, উপরোক্ত বিষয়গুলো পর্যালোচনা করলে এটা প্রতীয়মান হয় যে,  “আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই, সুষ্ঠু নির্বাচন আপনাকে দিতেই হবে” শীর্ষক মন্তব্যটি মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস করেননি।

মূলত, সম্প্রতি বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার ডি. হাসের মন্তব্য দাবিতে “আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই, সুষ্ঠু নির্বাচন আপনাকে দিতেই হবে” শীর্ষক শিরোনামে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়। তবে অনুসন্ধানে জানা যায়, কোনোপ্রকার তথ্যসূত্র ছাড়াই ভিত্তিহীনভাবে উক্ত দাবিটি প্রচার করা হয়েছে। মূলধারার গণমাধ্যম এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য মাধ্যমে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের এমন মন্তব্যের অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, গত ২৪ মে বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে জাতীয় নির্বাচন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি নতুন ভিসা নীতি ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। এই নীতির অধীনে, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক নির্বাচন প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত করার জন্য দায়ী বা জড়িত বলে মনে করা যে কোনো বাংলাদেশি ব্যক্তির জন্য ভিসা প্রদানে বিধিনিষেধ আরোপে সক্ষম হবে। এর মধ্যে বর্তমান ও প্রাক্তন বাংলাদেশি কর্মকর্তা/কর্মচারী, সরকারপন্থি ও বিরোধী রাজনৈতিক দলের সদস্য এবং আইন প্রয়োগকারী , বিচার বিভাগ এবং নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে বলে এই ঘোষণায় জানানো হয়।

তাছাড়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এমন ভিসা নীতি ঘোষণার পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের মূলধারার ইলেকট্রনিক গণমাধ্যম চ্যানেল আই এর টকশো অনুষ্ঠান তৃতীয় মাত্রায় লাইভে যুক্ত হন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু।

উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থাপক জিল্লুরের প্রশ্নের জবাবে ডোনাল্ড লু বলেন, “আমি একটি বিষয় খুব স্পষ্ট করে বলতে চাই যে, আজ আমরা কাউকে স্যাংশন দিচ্ছি না। সেক্রেটারি অফ স্টেট একটি নতুন নীতির ঘোষণা করেছেন, যা দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সরকার সেই সব ব্যক্তির ভিসা সুবিধায় বিধি–নিষেধ আরোপ করতে পারবে, যারা বাংলাদেশে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার প্রক্রিয়াকে বাধাগ্রস্ত বা ক্ষতিগ্রস্ত করবে।”

উল্লেখ্য, পূর্বেও বাংলাদেশে নিযুক্ত সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাটের মন্তব্য দাবিতে মিথ্যা তথ্য প্রচার করা সেসময় বিষয়টি নিয়ে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে রিউমর স্ক্যানার। 

সুতরাং,”আমেরিকাকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই, সুষ্ঠু নির্বাচন আপনাকে দিতেই হবে” শীর্ষক একটি তথ্যকে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার ডি. হাসের মন্তব্য দাবিতে ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img