শনিবার, জুলাই 20, 2024
spot_img

ছবিটি বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী ট্রাফিক জ্যামের নয়

সম্প্রতি, ‘বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী ট্রাফিক জ্যাম’ শীর্ষক শিরোনামে কিছু তথ্য সম্বলিত একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

যা দাবি করা হয়েছে

বিশ্বের দীর্ঘতম ট্র্যাফিক জ্যাম  চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে ২০১০ সালর ১৪ আগস্ট দেখা গিয়েছিল। এটি ১২ দিন পর্যন্ত  স্থায়ী ছিল এবং ১০০ কিলোমিটার পর্যন্ত দীর্ঘ ছিল। বেশ কিছু ভারী ট্রাক ও গাড়ি বেইজিং-তিব্বত এক্সপ্রেসওয়ে অতিক্রম করার চেষ্টা করলে এই জ্যাম শুরু হয়। ওই জ্যামে অনেক চালক প্রতিদিন তাদের যানবাহন মাত্র ১ কিমি (০.৬ মাইল) সরাতে সক্ষম হয় এবং কিছু চালক পাঁচ দিন ধরে যানজটে আটকে ছিলেন। কোনো গাড়ি আবার একই জায়গায় দাঁড়িয়ে ছিল টানা ২-৩ দিন।  মূলত এই যানজট শুরু হয় একসঙ্গে কয়েকটি সড়কের সংস্কারকাজ হাতে নেওয়ার কারণে। এতে মহাসড়কগুলোর সক্ষমতা প্রায় ৫০ শতাংশ নেমে আসে। এ ছাড়া সড়ক সংস্কারের কাজে মালবাহী ট্রাকের আনাগোনা তো ছিলই।এই দীর্ঘ যানজটে একই সঙ্গে জন্ম-মৃত্যু-চুরি-ছিনতাই-খুন সবই হয়েছিল! অ্যাম্বুলেন্স আটকে রোগীর মৃত্যু যেমন হয়েছিল, তেমনি জন্ম নিয়েছিল অনেক শিশু। দীর্ঘ  এই যানজটে ৩০ টি শিশুর  জন্ম,১৮ জনের মৃত্যু,২৫০ এর বেশি ছিনতাই,৯টি খুন সবই হয়েছিল।অবশেষে ২৬ শে আগস্ট দীর্ঘ এই যানজটের অবসান হয়েছিল।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ছবিটি বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী ট্রাফিক জ্যামের নয় এবং এটি ২০১০ সালের ছবিও নয় বরং এটি ২০১৫ সালে চীনে সংগঠিত অপর একটি ট্রাফিক জ্যামের ছবি। এটি ১২ দিন স্থায়ী ছিল না বরং কয়েক ঘন্টা স্থায়ী ছিল।

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম ABC News এর ওয়েবসাইটে ২০১৫ সালের ০৯ অক্টোবর ‘Thousands of Cars Stuck in Beijing Traffic Jam on 50-Lane Highway’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদনে আলোচিত ছবিটির অনুরূপ একটি ছবি খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: ABC News

উক্ত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ৫০ লেনের বেইজিং-হংকং-ম্যাকাও এক্সপ্রেসওয়েতে সে সময় কয়েক ঘণ্টা ধরে হাজার হাজার গাড়ি আটকে ছিল। চীনা গণমাধ্যম The People’s Daily এর বরাতে এসব তথ্য জানানো হয়।

Image Comparison by Rumor Scanner

তাছাড়া ২০১৫ সালের ০৮ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক অর্থনীতি বিষয়ক আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম Bloomberg এর ওয়েবসাইটে China’s 50-Lane Traffic Jam Is Every Commuter’s Worst Nightmare’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকেও এ বিষয়ে একই তথ্য জানা যায়।

Screenshot: Bloomberg

তাছাড়া, আলোচিত পোস্টে বলা হয়েছে উক্ত জ্যামে ৩০ টি শিশুর জন্ম, ১৮ জনের মৃত্যু, ২৫০ এর বেশি ছিনতাই ও ৯ টি খুন সংঘটিত হয়েছিল। তবে প্রাসঙ্গিক একাধিক কি ওয়ার্ড অনুসন্ধানেও উক্ত দাবিগুলোর সত্যতা পাওয়া যায়নি।

তবে ২০১০ সালে চীনে প্রায় ১০০ কিলোমিটার দীর্ঘ এবং প্রায় ১২ দিন ধরে চলমান ট্রাফিক জ্যামের ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়। সময়ের হিসেবে এটি সবচেয়ে দীর্ঘতম হলেও জ্যামের দৈর্ঘ্যের হিসেবে দীর্ঘতম নয়৷ তবে, চীনা সরকার এর দাবি অনুযায়ী এই জ্যামের দীর্ঘ ১০০ কিলোমিটার ছিল না।

মূলত, সাম্প্রতিক সময়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের একাধিক পেজ, গ্রুপ ও ব্যক্তিগত অ্যাকাউন্ট থেকে ‘বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী ট্রাফিক জ্যাম’ শীর্ষক শিরোনামে কিছু তথ্য সম্বলিত একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ছবিটি ২০১০ সালের কোনো ট্রাফিক জ্যামের নয় বরং এটি ২০১৫ সালে চীনে সংগঠিত অপর একটি ট্রাফিক জ্যামের ছবি। তাছাড়া ২০১৫ সালের ট্রাফিক জ্যামটি ১২ দিন ব্যাপী ছিল না। এটি ছিল কয়েক ঘণ্টা ব্যাপী। পৃথিবীর দীর্ঘস্থায়ী ট্রাফিক জ্যামটি হয়েছিল ২০১০ সালে। সেটি ১২ দিন ব্যাপী স্থায়ী ছিল।

সুতরাং, ‘বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘস্থায়ী ট্রাফিক জ্যাম’ শীর্ষক শিরোনামে ফেসবুকে প্রচারিত তথ্যগুলো অধিকাংশই মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img