বৃহস্পতিবার, জুলাই 18, 2024
spot_img

শিশুর সাথে চিতাবাঘের এই ছবিটি এআই দিয়ে তৈরি

সম্প্রতি, এটা হলিউডের কোন এনিমেশন না, এটা বাস্তব,চিতাবাঘের সাথে পাকিস্তানের গুলমিনা৷ বিড়াল ভেবে বড় করে এখন তার পোষ্য হয়ে গেছে৷ চিতাবাঘ নাকি ছবি তুলতে খুব পছন্দ করে৷ শীর্ষক দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ছবি প্রচার করা হয়েছে।

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত কিছু ছবি দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

চিতাবাঘের

এছাড়া ছবিটি বাস্তব কিনা সে বিষয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেও একাধিক ফেসবুক পোস্ট করা হয়েছে। এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, শিশুর সাথে চিতাবাঘের এই ছবিটি বাস্তব নয় বরং ছবিটি আর্টিফিসিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই) বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে।

অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে babrak নামক একটি ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে গত ২৪ মার্চে করা একটি পোস্টে (আর্কাইভ) আলোচ্য ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়।

Screenshot: Instagram

এই ছবিটির বিষয়ে উক্ত পোস্টে একজন ইনস্টাগ্রাম ব্যবহারকারী জিজ্ঞাসা করলে পোস্টদাতা জানান, এই ছবিটি তিনি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে ছবি তৈরির টুলস মিডজার্নি দিয়ে তৈরি করেছেন।

Screenshot: Instagram

এছাড়া, সম্প্রতি তিনি তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে একটি স্টোরি পোস্ট করে এই ছবির বিষয়ে বলেন, ‘মানুষেরা জানেনা যে এটি বাস্তব কিংবা সিজিআই (কম্পিউটার জেনারেটেড ইমাজিনারি) কিনা।”

সেই স্টোরিতে তিনি কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দিয়ে ছবি তৈরির টুলস #midjourney উল্লেখ করে নির্ভুল ও সুন্দর ভাবে কাজ করার জন্য @nvidia (কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন কম্পিউটার প্রোগ্রামিং) কে ধন্যবাদ জানান।

Screenshot: Instagram

পরবর্তীতে উক্ত ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টটি পর্যবেক্ষণ করে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দ্বারা তৈরি আরও বহু ডিজিটাল আর্টওয়ার্কের সন্ধান পায় রিউমর স্ক্যানার টিম।

Screenshot: Instagram

যা থেকে স্পষ্টতই প্রতীয়মান হয় যে, উক্ত ফেসবুক ব্যবহারকারী কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে ডিজিটাল আর্টওয়ার্ক তৈরি করে থাকেন।

মূলত, গত ২৪ মার্চ babrak নামের একটি ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে ছবি তৈরির টুল মিডজার্নি ব্যবহার করে তৈরি এক শিশুর সাথে চিতাবাঘের একটি ছবি প্রকাশ করা হয়। পরবর্তীতে উক্ত ছবিটিই বাস্তব ছবি দাবিতে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে।

উল্লেখ্য, পূর্বেও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা দ্বারা তৈরি কলার ছবিকে বাস্তব দাবিতে প্রচার করা হলে সে বিষয়ে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করে রিউমর স্ক্যানার। 

সুতরাং, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সাহায্যে তৈরি শিশুর সাথে চিতাবাঘের ছবিকে বাস্তব ছবি দাবিতে প্রচার করা হয়েছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img