শুক্রবার, জুলাই 19, 2024
spot_img

হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের মা-বোন ও ১০ বছরের মেয়েকে ধর্ষণের ঘটনাটি গুজব

সম্প্রতি “চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে একই হিন্দু পরিবারের মা-বোন ও দশ বছরের মেয়ে ধর্ষণ, মেয়েটি মারা গেছে” শীর্ষক শিরোনামে একটি তথ্য সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

 

আর্কাইভ দেখুন এখানে

ভাইরাল কিছু ফেসবুক পোস্টের আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানেএখানেএখানে, এখানে এবং এখানে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে একই হিন্দু পরিবারের মা-বোন ও দশ বছরের মেয়ে ধর্ষণের তথ্যটির কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি বরং হাজীগঞ্জের পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রুহিদাস বনিকের বক্তব্য থেকে জানা যায় তথ্যটি সম্পূর্ণ বানোয়াট ও গুজব।

মূলত, গত ১৫ অক্টোবর শুক্রবার দিবাগত রাত থেকে বিভিন্ন ফেসবুক আইডি থেকে এই মর্মে একটি তথ্য প্রচার হতে থাকে যে, ‘চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে একই হিন্দু পরিবারের মা-বোন ও দশ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ করা হয়েছে, নির্যাতিত পরিবারকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নেয়া হয়েছে তবে ধর্ষিত মেয়েটি মারা গেছে’

হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের
আর্কাইভ দেখুন এখানে

তবে সেসব পোস্টগুলোতে পোস্টদাতা কোন সূত্র উল্লেখ করেনি এবং মন্তব্যকারীরা সূত্র চাইলে তারা পরিবারটির নিরাপত্তার জন্য সূত্র উল্লেখ করবেনা বলে বিষয়টি এড়িয়ে যায়। একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী ঘটনাটিকে নোয়াখালীর দাবি করেও পোস্ট করেছেন, দেখুন এখানে।

হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের

এছাড়া, একই ঘটনা নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে নির্যাতনের শিকার পরিবার দাবিতে ছবি সম্বলিত কিছু পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়, আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে

রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতি ব্যবহার করে, ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে ফেসবুকে প্রকাশিত কিছু পোস্ট পাওয়া যায়, দেখুন এখানে এবং এখানে

এছাড়াও, ২০১৭ সালের নভেম্বরে ইউটিউবে প্রকাশিত বাংলাদেশের হিন্দু নির্যাতনের প্রামাণ্য চিত্র শিরোনামের একটি ভিডিওতেও ছবিটির অস্তিত্ব পাওয়া যায়। এমন আরেকটি ভিডিও দেখুন এখানে, আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে

আর্কাইভ দেখুন এখানে

অর্থাৎ, ছবিটি সাম্প্রতিক সময়ের নয় বরং এটি ৫ বছর বা এর থেকেও পুরোনো কোন ঘটনার ছবি।

বিষয়টি কোন নির্ভরযোগ্য সূত্র ছাড়াই সারাদেশে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়লে ১৬ অক্টোবর (শনিবার) অর্থাৎ আজ বিকেলে চাঁদপুরের পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি রুহিদাস বনিক একটি ভিডিও বার্তার মাধ্যমে ঘটনাটিকে সম্পূর্ণ ভুয়া ও বানোয়াট হিসেবে উল্লেখ করেন। এছাড়াও, হাজীগঞ্জ উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক প্রাণকৃষ্ণ সাহা এবং হাজীগঞ্জ উপজেলা হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সত্যব্রত ভদ্র মিঠুনও বিষয়টিকে ভুয়া হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।

হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের
পোস্টটি দেখুন এখানে

বিষয়টি নিয়ে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ হারুনুর রশীদ স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, ‘হাজীগঞ্জে বুধবার রাতে ঘটে যাওয়া ঘটনার পর বিভিন্ন গুজব রটছে। এটিও গুজব। ধর্ষণের বিষয়ে কোন মামলা বা অভিযোগও নিয়ে কেউ আসেনি’।

বিষয়টি দেশের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ব্যাপকভাবে প্রচারের ফলে দেশের বাইরেও ঘটনাটি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।

হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের
টুইটটির আর্কাইভ দেখুন এখানে এবং এখানে
হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের
আর্কাইভ দেখুন এখানে 

প্রসঙ্গত, কুমিল্লা সদরের নানুয়ার দিঘীরপাড়ের হিন্দুধর্মাবলম্বীদের পূজামন্ডপে পবিত্র কোরআন অবমাননার ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ এবং সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের

অর্থাৎ, চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে হিন্দু পরিবারের মা-বোন ও দশ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ বানোয়াট এবং গুজব।

[su_box title=”True or False” box_color=”#f30404″ radius=”0″]

  • Claim Review: চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে একই হিন্দু পরিবারের মা-বোন ও দশ বছরের মেয়ে ধর্ষণ, মেয়েটি মারা গেছে
  • Claimed By: Facebook Posts
  • Fact Check: False

[/su_box]

তথ্যসূত্র

 

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img