খালেদা জিয়ার লাইভে আসার দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি ৪ বছর পুরোনো

সম্প্রতি ‘লাইভ। দীর্ঘদিন পর খালেদা জিয়া লাইভে এসে কি বললো।’ শীর্ষক শিরোনামে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন একটি পোস্ট দেখুন এখানে। পোস্টটির আর্কাইভ দেখুন এখানে

ইউটিউবে প্রচারিত এমন কিছু ভিডিও দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে
ভিডিওগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, দীর্ঘদিন পর বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার লাইভে আসার দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ের নয় বরং এটি ২০১৮ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভায় খালেদা জিয়ার বক্তব্যের।

কি-ওয়ার্ড অনুসন্ধানের মাধ্যমে বিএনপির ইউটিউব চ্যানেল Bangladesh Nationalist Party-BNP এ গত ২১ ডিসেম্বর ‘বিএনপি প্রতিহিংসার রাজনীতি বিশ্বাস করে না‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

ভিডিওটির বিস্তারিত বিবরণী থেকে জানা যায়, এটি এটি ২০১৮ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভায় খালেদা জিয়ার বক্তব্যের অংশবিশেষ। 

এই ভিডিওটির সূত্র ধরে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল ATN News এর ইউটিউব চ্যানেলে ২০১৮ সালের ৪ ফেব্রুয়ারী ‘নিউজ আনকাট- প্রাপ্তি বড় কথা নয়, ঐক্য প্রয়োজন: খালেদা জিয়া‘ শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত একটি ভিডিও খুঁজে পাওয়া যায়।

ভিডিওটির বিস্তারিত বিবরণী থেকে জানা যায়, এটি ২০১৮ সালের ৩ ফেব্রুয়ারীর ভিডিও। 

এই ভিডিও দুইটির খালেদা জিয়ার বক্তব্যের সাথে খালেদা জিয়ার লাইভে আসার দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটির হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়। অর্থাৎ, ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ের নয়।

পাশাপাশি রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার সাম্প্রতিক কোনো কর্মসূচিতে অংশগ্রহণের কোনো তথ্যও নির্ভরযোগ্য সূত্রে খুঁজে পাওয়া যায় না।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া কারাবন্দি ছিলেন। জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের এ কারাদণ্ড দেন বকশীবাজার আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ আদালত। তবে পরবর্তীতে ২০২০ সালের মার্চে নির্বাহী আদেশে খালেদা জিয়ার দণ্ড স্থগিত করা হয়। এরপর থেকে জামিনে মুক্তি পেয়ে তিনি বাসাতেই অবস্থান করছেন।

মূলত, গত ২১ ডিসেম্বর বিএনপি তাদের ইউটিউব চ্যানেলে খালেদা জিয়ার একটি ভিডিও প্রচার করে। সেই ভিডিওটির বিস্তারিত বিবরণী থেকে জানা যায়, এটি ২০১৮ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সভায় খালেদা জিয়ার বক্তব্যের অংশবিশেষ। খালেদা জিয়ার বক্তব্যের পুরাতন এই ভিডিওটিই পরবর্তীতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে খালেদা জিয়ার লাইভে আসার দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে। 

সুতরাং, সম্প্রতি খালেদা জিয়ার লাইভে আসার দাবিতে চার বছরের অধিক পুরোনো একটি ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img