ভারতের কেরালার ও আসামের বন্যার ভিডিওকে সিলেটের বন্যা পরিস্থিতির ভিডিও দাবিতে প্রচার

সম্প্রতি “সিলেটের অবস্থা খুব খারাপ” শীর্ষক  শিরোনামে একটি ভিডিও সামাজিক মাধ্যম টিকটকে ছড়িয়ে পড়েছে।

কেরালা

টিকটকে প্রচারতি এমন একটি পোস্ট দেখুন এখানে। আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, প্রচারিত ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ে সিলেটের বন্যা পরিস্থিতির নয় বরং ২০২১ সালে ভারতের কেরালায় বন্যা ও সম্প্রতি আসামের বন্যার সময় ধারণকৃত দুইটি ভিন্ন ভিডিও একত্রিত করে প্রচার করা হচ্ছে।

অনুসন্ধানের মাধ্যমে, দেশীয় গণমাধ্যম “সময় টিভি” এর ভেরিফাইড ইউটিউব চ্যানেলে ২০২১ সালের ১৯ অক্টোবর “ভয়ারহ রূপ নিয়েছে কেরালার বন্যা পরিস্থিতি | India Flood Update | Kerala Flood | Somoy TV” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত ভিডিও প্রতিবেদনের সাথে প্রচারিত ভিডিওটি প্রথম অংশের হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

পরবর্তীতে ভিডিওটির কিছু স্থিরচিত্র রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে, বৃটিশ সংবাদমাধ্যম BBC News এর অনলাইন সংস্করণে ২০২১ সালের ১৮ অক্টোবরে “Kerala floods: Deadly floods devastate towns and villages” শীর্ষক শিরোনামে একই ভিডিও সম্বলিত প্রতিবেদন পাওয়া যায়।

পাশাপাশি, ভিডিওটির দ্বিতীয় অংশের কিছু স্থিরচিত্র রিভার্স ইমেজ সার্চের মাধ্যমে, ভারতের ইংরেজি ভাষার গণমাধ্যম “CNN-News18” এর ভেরিফাইড ইউটিউব চ্যানেলে চলতি বছরের ১৬ মে “Assam Flood 2022 | Bridge Washed Away As People Were Crossing | #Shorts | Assam Floods | CNN News18” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত ভিডিওর সাথে আলোচিত ভিডিওর দ্বিতীয় অংশের হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়।

পরবর্তীতে, ভারতের “maharashtramazanews” নামের আঞ্চলিক পত্রিকার অনলাইন সংস্করণে গত ১৬ মে “निसर्गाचं रौद्र रूप; गावकरी पलीकडे जातानाच लाकडी पूल गेला वाहून, धक्कादायक (অনুবাদঃThe roaring form of nature; A shocking video of a wooden bridge being carried away as the villagers passed)” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

মূলত, গত ১০ মে থেকে সিলেটে ভারী বর্ষণ শুরু হয়। সেই সাথে উজান থেকে নেমে আসে পাহাড়ি ঢলের ফলে ১১ মে থেকেই সিলেটের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত  হয়। জেলার শতাধিক ইউনিয়নের মধ্যে প্রায় ৯০টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে। এক এক করে সড়ক থেকে বাসাবাড়ি, সরকারি স্থাপনা, দোকানপাট থেকে শুরু করে সব জায়গায় বন্যার পানি ঢুকতে সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা। উক্ত ঘটনাকে কেন্দ্র করে ২০২১ সালে ভারতের কেরালা ও সম্প্রতি ভারতের আসাম রাজ্যের বন্যার সময় ধারণকৃত দুটি আলাদা ভিডিও দৃশ্যকে একত্রিত করে সাম্প্রতিক সময়ে সিলেটের বন্যা পরিস্থিতির অবস্থা দাবিতে সামাজিক মাধ্যম টিকটকে প্রচার করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে ১৬ অক্টোবর ভারতের কেরালা রাজ্যে মুষলধারে বৃষ্টি ও ভারী বর্ষণে বন্যার সৃষ্টি হয় এবং এতে করে ভূমিধসের ঘটনা ঘটে এবং এসময় কেরালার ১৪টি জেলার মধ্যে ১৩টি অঞ্চলে রেড অ্যালার্টের অধীনে ছিল। এছাড়া সম্প্রতি গত ১৬ মে ভারতের আরেকটি রাজ্য আসামে প্রাক-মৌসুমি বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট ভারী বন্যা ও ভূমিধসে ঘটনা ঘটে।

Also Read: নদীর ভাঙনে স্থাপনা ধসের পুরোনো ভিডিওকে সিলেটের বন্যায় ভবন ধসের ভিডিও দাবিতে প্রচার

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের সিলেট অঞ্চলে গত ১৪ মে থেকে সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়া শুরু করে। এর ফলে সিলেট মহানগরসহ জেলার ১৩টি উপজেলায় প্লাবিত হয় হাজার হাজার গ্রাম। পানিবন্দী হয়ে পড়ে হাজার হাজার মানুষ। পার্শ্ববর্তী ভারতের মেঘালয়ের চেরাপুঞ্জিতে প্রায় ২ হাজার ২০০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত হয়েছে। সেখান থেকে নেমে আসা পানির ঢলেই বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। যা গত ১৮ বছরের মধ্যে সিলেটে সবচেয়ে বড় বন্যায় পরিণত হয়েছে।

সুতরাং ভারতের কেরালার ২০২১ সালের বন্যা ও সম্প্রতি আসামের বন্যার ভিডিওকে একত্রিত করে সাম্প্রতিক সময়ে সিলেটের বন্যা পরিস্থিতির অবস্থা দাবিতে সামাজিক মাধ্যম টিকটকে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img