সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি পায়নি জামায়াত

সম্প্রতি,’আগামী ৪ আগস্ট ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য অনুমতি পেয়েছে জামায়াত’ শীর্ষক একটি দাবি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল বাংলা ভিশনের সূত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

বাংলা ভিশন এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন পড়ুন এখানে। 

ফেসবুকে প্রচারিত এমনকিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, আগামী ৪ আগস্ট ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী দল সমাবেশের অনুমতি পায়নি বরং জামায়াত নেতা ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের নামে পরিচালিত একটি ভুয়া ফেসবুক অ্যাকাউন্টের পোস্টের মাধ্যমেই উক্ত ভুয়া দাবিটি গণমাধ্যমের সূত্রে ইন্টারনেটে প্রচারিত হয়।  

দাবিটির সূত্রপাত 

আলোচিত দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে রিউমর স্ক্যানার টিম প্রথমেই বাংলা ভিশনের ওয়েবসাইটে প্রচারিত প্রতিবেদনটি পর্যবেক্ষণ করে।

Screenshot: Bangla Vision Website

১ আগস্ট রাত ১০ টা ৪৫ মিনিটে প্রকাশিত এই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের সমাবেশের অনুমতি পেল জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ। শুক্রবার (৪ আগস্ট) বেলা আড়াইটায় জামায়াতকে সমাবেশের অনুমতি দেয় ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। মঙ্গলবার (১ আগস্ট) রাতে জামায়াতের নেতা ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ এক ফেসবুক পোস্টে এই তথ্য জানিয়েছেন।’

পরবর্তীতে বাংলা ভিশনে দেওয়া তথ্যের সূত্র ধরে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে সংযুক্ত জামায়াত নেতা ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের ফেসবুক পেজ ঘুরে দেখে রিউমর স্ক্যানার টিম। তবে ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের ফেসবুক পেজে উক্ত দাবি সংক্রান্ত কোনো পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পরবর্তীতে বাংলাদেশের উক্ত দাবির সূত্রপাত অনুসন্ধানে ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের নামে পরিচালিত একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্টে আলোচিত দাবি সম্বলিত পোস্টটি (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায় । 

 Screenshot: Facebook

পোস্টে বলা হয়, ‘আলহামদুলিল্লাহ! অনুমতি মিলেছে আগামী ৪ তারিখের জামায়াতের সমাবেশের। তবে স্থান পরিবর্তন- সোহরাওয়ার্দী উদ্যান, দুপুর ২ঃ৩০ মিনিট।’

অর্থাৎ, শফিকুল ইসলামের নামে পরিচালিত এই ফেইক অ্যাকাউন্টের সূত্র ধরেই সংবাদ প্রকাশ করেছে বাংলা ভিশন। তবে ১১টা ৩১ মিনিটে উক্ত প্রতিবেদনটি কিছুটা সংশোধন করে বাংলা ভিশন।

সংশোধিত প্রতিবেদনে পূর্বের সূত্র ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের কথিত ফেসবুক পোস্টের কথা বাদ দিয়ে বলা হয়, শুক্রবার ( ৪ আগস্ট) বেলা আড়াইটায় জামায়াতকে সমাবেশের অনুমতি দেয় হয় বলে জানিয়েছে দলটি। জামায়াতের ভেরিফাইড ফেসবুক পেইজে এমন দাবি করে দলটি। তবে ডিএমপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, জামায়াতকে সমাবেশের অনুমতির বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।

Screenshot: Bangla Vision Website

প্রতিবেদনটিতে জামায়াতের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজের কথা উল্লেখ করলেও জামায়াতের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজে এমন তথ্য সংশ্লিষ্ট কোনো পোস্ট পাওয়া যায়নি। 

প্রতিবেদন সংশোধনের প্রায় ২ ঘন্টা ৪৫ মিনিট পর ২ আগস্ট রাত ২টা ১৬ মিনিটে সংশোধিত প্রতিবেদনের শিরোনাম ও বিস্তারিত তথ্য সরিয়ে নিয়ে “জামায়াতের সমাবেশের অনুমতি পাওয়ার সংবাদটি সঠিক নয়” শিরোনামে বিস্তারিত অংশসহ পুরো প্রতিবেদন পুনরায় সংশোধন করে গণমাধ্যমটি।

Screenshot: Bangla Vision Website

এ দফায় গণমাধ্যমটি তাদের প্রতিবেদনে দাবি করে, আগামী শুক্রবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সমাবেশের অনুমতি পাওয়ার সংবাদটি সঠিক নয়। মঙ্গলবার (১ আগস্ট) রাতে জামায়াতের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের সেক্রেটারি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের নামে পরিচালিত একটি ফেসবুক পেজের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে জামায়াত সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি পেয়েছে বলে সংবাদ প্রকাশ করে বাংলাভিশন। কিন্তু সংবাদ প্রকাশের পর জামায়াত জানিয়েছে, এই পেজটি ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের পরিচালিত নয়। ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজটি ইংরেজি নামে রয়েছে অথচ কে বা কারা তাঁর নামে বাংলায় ফেসবুক পেজ খুলে মিথ্যা তথ্য ছড়াচ্ছে।

তবে, এই ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদনে তাদের প্রতিবেদনে পূর্বে দাবিকৃত জামায়াতের ভেরিফাইড ফেসবুক পেজ থেকে পাওয়া কথিত তথ্যের বিষয়ে কিছু উল্লেখ করা হয়নি। 

অনুসন্ধানের এ পর্যায়ে দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে প্রাসঙ্গিক কি ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে গত ১ আগস্ট মূলধারার অনলাইন সংবাদমাধ্যম Banglanews24 এর ওয়েবসাইটে ‘সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে ডিএমপিতে জামায়েতের আবেদন’ শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদনে থেকে জানা যায়, আগামী ৪ আগস্ট রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনারের কাছে আবেদন করেছে জামায়াতে ইসলামী।

মঙ্গলবার (১ আগস্ট) বিকেল সাড়ে চারটার দিকে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আব্দুর রাজ্জাকের নেতৃত্বে জামায়াতের ৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ডিএমপি কার্যালয়ে গিয়ে এ আবেদন জমা দেন।

উক্ত প্রতিবেদনে জামায়াতের আইনজীবী প্রতিনিধি দলের প্রধান আব্দুর রাজ্জাকের উদ্ধৃত দিয়ে বলা হয়, ‘বায়তুল মোকাররম উত্তর গেটে শান্তিপূর্ণ সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করেছিল জামায়াতে ইসলামী। সেজন্য ডিএমপিতে আবেদন করা হয়েছিল। তারা আমাদের আশ্বস্ত করলেও শেষে অনুমতি দেয়নি। জামায়াতে ইসলামী সুশৃঙ্খল দল। সেজন্য নতুন করে আগামী ৪ আগস্ট শান্তিপূর্ণ সমাবেশ কর্মসূচি ঘোষণা করেছে জামায়াত।’

এছাড়া, উক্ত বিষয়ে জামায়াত নেতা ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের ফেসবুক পেজে ১ আগস্ট বিকেল ৫ টা ৩০ মিনিটে প্রচারিত পোস্ট থেকে প্রায় একই তথ্য জানা যায়।

Screenshot: Facebook

মূলত, গত ৩১ জুলাই তত্ত্বাবধায়ক সরকার পুনর্বহাল, আলেম ওলামা ও জামায়াত আমিরের মুক্তি এবং সরকারের পদত্যাগ দাবিতে ১ আগস্ট জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে আবেদন করে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী। তবে ডিএমপির পক্ষ থেকে জামায়াতকে সমাবেশের অনুমতি দেয়নি ডিএমপি। পরবর্তীতে দলটি ৪ আগস্ট ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নেয় এবং অনুমতির জন্য ১ আগস্ট ডিএমপির কাছে আবেদন করে। উক্ত বিষয়কে কেন্দ্র করে জামায়াত নেতা ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের ফেসবুক পেজ ও জামায়াত ইসলামীর ফেসবুক পেজের বরাতে জামায়াত সমাবেশের অনুমতি পেয়েছে দাবি করে সংবাদ প্রকাশ করে বাংলা ভিশন। তবে অনুসন্ধানে জানা যায়, ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদের নামের যে ফেসবুক অ্যাকাউন্টের সূত্র ধরে বাংলা ভিশন সংবাদ প্রকাশ করেছে সেটি একটি ফেইক অ্যাকাউন্ট। প্রকৃতপক্ষে ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ তার ফেসবুক পেজ হতে এমন কোনো দাবি জানিয়ে পোস্ট করেননি। এছাড়া জামায়াতের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকেও এই দাবিতে কোনো পোস্ট করা হয়নি। এবং এই প্রতিবেদনের প্রকাশের আগ পর্যন্ত পুলিশ জামায়াত ইসলামীকে আগামী ০৪ আগস্ট সমাবেশ করার অনুমতিও দেয়নি।

সুতরাং, আগামী ৪ আগস্ট ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের জন্য জামায়াতে ইসলামীর অনুমতি পাওয়ার দাবিতে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img