শনিবার, জুলাই 20, 2024
spot_img

বন্ধুর মৃত্যুতে রাফসানের কাঁদার পুরোনো ভিডিও ভুয়া দাবিতে ভাইরাল

গত ১৩ মে তারিখে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী সাইয়েদ আব্দুল্লাহর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে করা একটি পোস্টের জের ধরে কনটেন্ট ক্রিয়েটর ইফতেখার রাফসান ওরফে রাফসান দ্য ছোটভাইয়ের পরিবারের ঋণখেলাপীর একটি প্রসঙ্গ জনসম্মুখে আসে। এরই প্রেক্ষিতে রাফসানের একটি ভিডিও ব্যবহার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দাবি করা হচ্ছে, সমালোচনার মুখোমুখি হয়ে সম্প্রতি গোপনে দেশ ছেড়েছেন রাফসান দ্য ছোটভাই। এছাড়াও দাবি করা হচ্ছে, পরিবার নিয়ে দেশ ছাড়ার আগে কেঁদে কেঁদে ধারণকৃত একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন রাফসান দ্য ছোটভাই ওরফে ইফতেখার রাফসান এবং তিনি আর দেশে ফিরবেন না বলেও জানিয়েছেন। 

রাফসানের কাঁদার

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত ভিডিওটি দেখুন এখানে (আর্কাইভ)। 

এই প্রতিবেদনটি প্রকাশ হওয়া অবধি উক্ত ভিডিওটি ২৬ লক্ষেরও অধিক বার দেখা হয়েছে এবং প্রায় ৬০ হাজার পৃথক অ্যাকাউন্ট থেকে ভিডিওটিতে প্রতিক্রিয়া জানানো হয়েছে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, পরিবার নিয়ে দেশ ছাড়ার আগে কনটেন্ট ক্রিয়েটর ইফতেখার রাফসানের কাঁদার দৃশ্য দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ের নয়, বরং ভুল চিকিৎসার শিকার হয়ে বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে দাবি করে গত ফেব্রুয়ারি মাসে রাফসানের  ফেসবুক পেজে প্রচারিত ভিডিওকে আলোচিত দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে। তবে সম্প্রতি রাফসান দেশ ছেড়েছেন কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত কোনো তথ্য জানা যায়নি।

অনুসন্ধানের শুরুতে ভিডিওটি পর্যবেক্ষণ করে রিউমর স্ক্যানার টিম। অতঃপর ভিডিওটির সূত্রের অনুসন্ধানে রাফসানের ফেসবুক পেজ পর্যবেক্ষণ করে গত ২০ ফেব্রুয়ারি তারিখে “my friend is no more” শিরোনামে প্রকাশিত ৫ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের একটি ভিডিও খুঁজে পায় রিউমর স্ক্যানার টিম। 

ভিডিওতে রাফসানকে বলতে শোনা যায়, রাফসানের বন্ধু রাহিব রেজা এন্ডোস্কপির জন্য ল্যাবএইড হাসপাতালে গিয়েছিলেন। হেঁটে অনেকটা সবল অস্থাতেই দেশের একজন জনপ্রিয় ডাক্তারের কাছে এন্ডোস্কোপি করাতে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু, ডাক্তারের সময়নিষ্ঠতার অভাবে ও অবহেলায় রাফসানের বন্ধু রাহিবের প্রি ভ্যালুয়েশন রিপোর্ট না দেখে, রাহিব ফিট না থাকা অবস্থাতেও এন্ডোস্কপি করানো হয় এবং ফলশ্রুতিতে রাফসানের বন্ধু মৃত্যুবরণ করেন।

উক্ত ভিডিওটির ৫ মিনিট ২৪ সেকেন্ড থেকে আলোচিত দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটির সাথে হুবহু মিল খুঁজে পাওয়া যায়। 

Comparison : Rumor Scanner

অর্থাৎ, ল্যাবএইড হাসপাতালের একজন ডাক্তারের গাফিলতির ফলস্বরূপ নিজের বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে দাবি করে গত ২০ ফেব্রুয়ারি ইফতেখার রাফসান তার ফেসবুক পেজে এই ভিডিও বার্তাটি প্রকাশ করেন। অন্যদিকে ঋণখেলাপীতার প্রেক্ষাপটে রাফসানের পরিবার আলোচনায় আসে ২০২৪ সালের মে মাসে যা রাফসান কর্তৃক আলোচিত ভিডিওটি পোস্ট করারও প্রায় ৩ মাস পরের ঘটনা। অর্থাৎ, আলোচিত ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ে ধারণকৃত নয়, বরং ভিডিওটি পুরনো এবং ভিন্ন প্রসঙ্গের। তাছাড়া, রাফসানের ফেসবুক পেজ, ব্যক্তিগত ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এবং ইউটিউব চ্যানেলেও আলোচিত দাবি সম্পর্কিত কোনো ভিডিও বার্তা খুঁজে পাওয়া যায়নি।

অধিকতর নিশ্চিত হতে উক্ত বিষয়ে মূলধারার গণমাধ্যমে সংবাদ অনুসন্ধান করে রিউমর স্ক্যানার টিম। কিন্তু, রাফসানের দেশ ছাড়ার দাবির বিষয়ে কিংবা দেশ ছাড়ার সাথে সম্পর্কিত কোনো বার্তা প্রকাশের বিষয়ে নির্ভরযোগ্য সূত্রে কোনো তথ্যপ্রমাণ খুঁজে পাওয়া যায়নি।

মূলত, ভুল চিকিৎসার ফলস্বরূপ নিজের বন্ধুর মৃত্যুর কথা জানিয়ে গত ২০ ফেব্রুয়ারি কনটেন্ট  ক্রিয়েটর ইফতেখার রাফসান একটি ভিডিও পোস্ট করেন। সম্প্রতি উক্ত ভিডিও এর একটি অংশ প্রচার করে দাবি করা হচ্ছে, ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ে রাফসানের দেশ ত্যাগের পূর্বে কাঁদার দৃশ্যের। 

অর্থাৎ, পরিবার নিয়ে দেশ ছাড়ার আগে কনটেন্ট  নির্মাতা ইফতেখার রাফসান ওরফে রাফসান দ্য ছোটভাই কেঁদে কেঁদে ভিডিও বার্তা প্রকাশ করেছেন মর্মে প্রচারিত দাবিটি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img