শনিবার, এপ্রিল 13, 2024
spot_img

ছবি ব্যবহার সংক্রান্ত নতুন ফেসবুক/মেটা নিয়মের ভাইরাল বিষয়টি গুজব

সম্প্রতি, “আগামীকাল (কতিপয় পোস্টে আজ দাবি) থেকে নতুন ফেসবুক/মেটা নিয়ম শুরু হবে যেখানে তারা আপনার ছবি ব্যবহার করতে পারবে।” শীর্ষক শিরোনামে একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

কী দাবি করা হচ্ছে?

ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলোতে দাবি করা হয়েছে, “সম্ভবত আজ থেকে নতুন ফেসবুক/মেটা নিয়ম শুরু হবে যেখানে তারা আপনার ছবি ব্যবহার করতে পারবে। ভুলে যাবেন না শেষ তারিখ আজ! এটা আপনার বিরুদ্ধে মামলায় ব্যবহার করা যেতে পারে। আপনি যা কিছু পোস্ট করেছেন বা আজ পোস্ট করা হয়েছে – এমনকি মেসেজ যা মুছে ফেলা হয়েছে। এতে কোন খরচ নেই, শুধু কপি করে পোস্ট করুন, পরে আফসোস করার চেয়ে ভালো।  

      বাংলাদেশ তথ্য অধিকার আইন-২০০৯ এবং বাংলাদেশের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮ মোতাবেক আমি আমার অধিকার সংরক্ষণ আরোপ করছি…..

আমি ফেসবুক/মেটা বা অন্য কোন ফেসবুক/মেটা সম্পর্কিত ব্যক্তিকে আমার ছবি, তথ্য, বার্তা বা বার্তা ব্যবহার করার অনুমতি দিচ্ছি না, অতীতে এবং ভবিষ্যতে উভয় সময়েই।

        এই পোস্টের যেকোনো জায়গায় আপনার আঙ্গুল ধরুন এবং একটি কপি দেখা যাবে। কপিতে ক্লিক করুন। তারপর আপনার পেজে যান এবং নতুন একটি পোস্ট শুরু করুন। আমি আবারও সজ্ঞানে প্রত্যয়ী যেঃ

আমি ফেসবুক/মেটাকে তাদের ওয়েবসাইটে পোস্ট করা আমার তথ্য শেয়ার করার অনুমতি দিচ্ছি না। ছবি, বর্তমান বা অতীত, জনসংখ্যা, ফোন নম্বর বা পোস্ট… একদম আমার লিখিত অনুমতি ছাড়া কোন কিছু কোন রূপে ব্যবহার করা যাবে না।”

উক্ত দাবিতে বাংলাদেশের অভিনেত্রী, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, সচিব, ছাত্রনেতাসহ বিভিন্ন ব্যক্তির ফেসবুক টাইমলাইনে প্রচারিত কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

ওপার বাংলার চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের ফেসবুক টাইমলাইনে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ছবি ব্যবহার সংক্রান্ত নতুন ফেসবুক/মেটা নিয়মের ভাইরাল বিষয়টি সঠিক নয় বরং কোনো ধরনের তথ্যসূত্র ছাড়াই সম্পূর্ণ ভিত্তিহীনভাবে ফেসবুকের প্রাইভেসি পলিসি পরিবর্তনের বিষয়টি প্রচার করা হচ্ছে।

দাবিটির সত্যতা যাচাইয়ে ফেসবুকের Terms of service এ প্রতিষ্ঠানটির প্রদত্ত তথ্যানুযায়ী, “The Facebook company is now Meta. While our company name is changing, we are continuing to offer the same products, including the Facebook app from Meta. Our Data Policy and Terms of Service remain in effect, and this name change does not affect how we use or share data” অর্থাৎ ফেসবুক বর্তমানে নাম পরিবর্তন করে মেটা হয়েছে। নাম পরিবর্তন করলেও আমরা একই পণ্য বা সেবা দিয়ে যাচ্ছি। আমাদের ডাটা পলিসি ও টার্মস অব সার্ভিস অপরিবর্তিত রয়েছে এবং নামের এই পরিবর্তন এগুলোতে কোনো প্রভাব ফেলবে না।

Screenshot: Facebook Terms of service

একই পেইজে আরও উল্লেখ রয়েছে যে, “You own the intellectual property rights (things like copyright or trademarks) in any such content that you create and share on Facebook and the other Facebook Company Products you use. Nothing in these Terms takes away the rights you have to your own content. You are free to share your content with anyone else, wherever you want.” অর্থাৎ আপনি যখন Facebook-এ কিছু পোস্ট করেন, তখন আপনার তৈরি এবং শেয়ার করা যেকোনো সামগ্রীর জন্য আপনি মেধা সম্পত্তির অধিকারের মালিকানা অব্যাহত রাখেন।

Screenshot: Facebook Terms of service 

পাশাপাশি একই ধরনের দাবি ২০১২ সালেও ছড়িয়ে পড়লে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ঐ বছরের ৯ নভেম্বর একটি বিবৃতি দিয়ে জানায়, ‘There is a rumor circulating that Facebook is making a change related to ownership of users’ information or the content they post to the site. This is false. Anyone who uses Facebook owns and controls the content and information they post, as stated in our terms. They control how that content and information is shared. That is our policy, and it always has been.’ 

অর্থাৎ একটি গুজব ছড়িয়েছে যে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ব্যবহারকারীদের তথ্যের মালিকানা বা সাইটে পোস্ট করা সামগ্রীর সাথে সম্পর্কিত নীতিমালা পরিবর্তন করছে৷ এটা মিথ্যা। ফেসবুক ব্যবহারকারীরা নিজেরাই তাদের পোস্ট করা বিষয়বস্তু এবং তথ্যের মালিক এবং তারা নিজেরাই এটা নিয়ন্ত্রণ করে, যেমন আমাদের শর্তাবলীতে বলা হয়েছে। এটা আমাদের নীতি, এবং এটা সবসময় হয়েছে।

Screenshot: Facebook Newsroom

এছাড়া ২০১৯ সালেও একই ধরনের দাবি ছড়িয়ে পড়লে মার্কিন সংবাদপত্র Forbes ঐ বছরই এক প্রতিবেদনে দাবিটি স্ক্যাম হিসেবে উল্লেখ করে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। 

ফোর্বসের Stop Falling For This Facebook Scam’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে। 

একই দাবিতে প্রচারিত তথ্যকে মিথ্যা উল্লেখ করে আমেরিকান ফ্যাক্টচেকিং ওয়েবসাইট Snopes এ প্রকাশিত প্রতিবেদন দেখুন এখানে। 

মূলত, সম্প্রতি ছবি ব্যবহার সংক্রান্ত নতুন ফেসবুক/মেটা নিয়ম চালুর মাধ্যমে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ ব্যবহারকারীদের ছবি ব্যবহার করতে পারবে শীর্ষক একটি দাবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। কিন্তু রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, উক্ত দাবিটি সঠিক নয়। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তার গ্রাহকদের ছবি ব্যবহার করতে পারবে দাবিতে প্রচারিত তথ্যটির সঙ্গে ফেসবুকের টার্মস অব সার্ভিসের কোনো প্রাসঙ্গিকতা নেই। এছাড়া একই ধরণের দাবি ২০১২ সালেও ছড়িয়ে পড়লে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ সে সময় বিবৃতি দিয়ে বিষয়টিকে গুজব হিসেবে চিহ্নিত করেছিল।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালেও একই দাবি বাংলাদেশের ফেসবুক ব্যবহারকারীরা প্রচার করলে সেসময়ে বিষয়টি নিয়ে অনুসন্ধান করে রিউমর স্ক্যানার টিম। রিউমর স্ক্যানারের সেই সময়ের অনুসন্ধানটি পড়ুন এখানে। 

সুতরাং, ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তার গ্রাহকদের ছবি ব্যবহার করতে পারবে দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারিত তথ্যটি সম্পূর্ণ মিথ্যা। 

তথ্যসূত্র 

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img