বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মৃত্যুর গুজব 

সম্প্রতি, ‘খালেদা জিয়া মারা গেছেন, ২৮ তারিখ জানাজা’ শীর্ষক ক্যাপশনে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। 

ভিডিওটিতে একটা সংবাদ পাঠিকাকে বলতে শোনা যায়, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মারা গেছেন। সকাল সোয়া সাতটার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। ইন্না-লিল্লাহ ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। 

খালেদা জিয়া

টিকটিকে প্রচারিত ভিডিও পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মারা গেছেন দাবিটি মিথ্যা বরং ভিন্ন একটি ভিডিওকে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনা করে উক্ত দাবিতে প্রচার করা হয়েছে। 

ভিডিও যাচাই

অনুসন্ধানের শুরুতে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে প্রচারিত ভিডিওটিতে থাকা সংবাদ পাঠিকার মূল ভিডিওটি খুঁজে পাওয়া যায়। 

এটিএন বাংলার এই সংবাদ পাঠিকা গত ১৪ জুন দুপুর দুইটার বুলেটিন পাঠ করেন। ২২ মিনিট ৪৩ সেকেন্ডের বুলেটিনটি পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায় প্রথম ৬ মিনিট ১১ সেকেন্ডে থেকে তিনি বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নিয়ে ভিন্ন একটি সংবাদ পাঠ করেন। পরবর্তীতে এই অংশটি কেটে খালেদা জিয়া মারা গেছেন দাবিতে প্রচার করা হয়েছে। 

Video Comparison by Rumor Scanner 

পরবর্তীতে খালেদা জিয়ার বর্তমান শারিরীক অবস্থা জানতে কি-ওয়ার্ড সার্চ করে গত ২৪ অক্টোবর প্রথম আলোয় ”সিসিইউতে আট ঘণ্টা থাকার পর আবার কেবিনে খালেদা জিয়া” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আজ (২৪ অক্টোবর) করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) প্রায় আট ঘণ্টা রাখার পর আবার কেবিনে নেওয়া হয়েছে। তাঁর ব্যক্তিগত চিকিৎসক এ জেড এম জাহিদ হোসেন আজ দুপুর পৌনে ১২টার দিকে মুঠোফোনে প্রথম আলোকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

গত ৯ আগস্ট থেকে আড়াই মাস ধরে ঢাকার এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়া।

গত ২৫ অক্টোবর ডেইলি স্টারে “খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় ঢাকায় মার্কিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, বুধবার (২৫ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটে তারা ঢাকায় পৌঁছান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় মার্কিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের একটি দল। 

এছাড়া, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে খালেদা জিয়ার মৃত্যু সংক্রান্ত কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি। 

একটি দেশের তিনবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী মারা গেলে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে সংবাদ হওয়া স্বাভাবিক। তবে, খালেদা জিয়ার মৃত্যুর দাবিতে কোনো তথ্য বা সংবাদ জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে পাওয়া না যাওয়ায় প্রতীয়মান হয় যে প্রচারিত তথ্যটি মিথ্যা। 

মূলত, গত ৯ আগস্ট বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরবর্তীতে দফায় দফায় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা এবং করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) আনা-নেওয়া করা হয়েছে। সর্বশেষ গত ২৪ অক্টোবর করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) প্রায় আট ঘন্টা রেখে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছে। গত ২৫ অক্টোবর বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা দেওয়া জন্য একটি মার্কিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের দল ঢাকায় এসেছেন। এরমধ্যে বেগম খালেদা জিয়া মারা গেছেন শীর্ষক দাবিতে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, ভিন্ন একটি ভিডিওকে ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনা করে উক্ত দাবিতে প্রচার করা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। 

উল্লেখ্য, পূর্বেও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতার সময় গুজব ছড়ানো হলে তা শনাক্ত করে ফ্যাক্টচেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল রিউমর স্ক্যানার। 

সুতরাং, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া মারা গেছেন শীর্ষক দাবিটি মিথ্যা এবং প্রচারিত ভিডিওটি এডিটেড। 

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img