শিশুদের নারিকেল গাছে আশ্রয় নেওয়ার এই ভিডিওটি ঘূর্ণিঝড় রিমালের নয়

গত ২৬ মে রাতে ঘূর্ণিঝড় রিমাল বাংলাদেশ ও ভারতের উপকূলে আঘাত হানে। এই প্রচণ্ড শক্তির ঘূর্ণিঝড়টির ফলে বাংলাদেশের উপকূলবর্তী বিশাল অঞ্চল ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ২৭ মে সকালে এটি বাংলাদেশের স্থলভাগে উঠে আসে।

ঘূর্ণিঝড় রিমালের তাণ্ডবের ফলে উপকূলবর্তী এলাকা প্লাবিত হয়ে গেছে, বহু ঘরবাড়ি, বেড়িবাঁধ, গাছপালা, মাছের ঘের, ফসলের ক্ষেত এবং দোকানপাট ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. মহিববুর রহমান গতকাল সন্ধ্যায় জানিয়েছেন, এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ১৯ জেলায় প্রায় সাড়ে ৩৭ লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। 

এই পরিস্থিতিতে ঘূর্ণিঝড় রিমালের দৃশ্য দাবিতে সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও প্রচারিত হচ্ছে। ওই ভিডিওতে দেখা যায়, বন্যার পানি থেকে বাঁচতে কয়েকজন শিশু একটি নারিকেল গাছে আশ্রয় নিয়েছে।

আশ্রয়

উক্ত দাবিতে ফেসবুকে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

ইউটিউবে প্রচারিত ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, বন্যা থেকে বাঁচতে শিশুদের নারিকেল গাছে আশ্রয় নেওয়ার ভিডিওটি ঘূর্ণিঝড় রিমালের নয় বরং অন্তত ২০২২ সাল থেকে এই ভিডিওটির অস্তিত্ব ইন্টারনেটে পাওয়া যাচ্ছে।

ভিডিওটির কিছু স্থিরচিত্র রিভার্স ইমেজ সার্চ করে, ‘Luxury Car Vedios’ নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ২০২২ সালের ১৮ জুলাই প্রচারিত একই ভিডিও পাওয়া যায়।

একই পদ্ধতি ব্যবহার করে ২০২২ সালের ০২ সেপ্টেম্বর পাকিস্তান ভিত্তিক একটি ফেসবুক পেজে একই ভিডিও (আর্কাইভ) খুঁজে পাওয়া যায়।

২০২৩ সালে মিয়ানমারের দাবিতে (আর্কাইভ) এবং চলতি বছর আরব আমিরাতের দুবাইয়ে বন্যার সময় দুবাইয়ের দাবিতে (আর্কাইভ) ভিডিওটি প্রচারিত হয়।

অর্থাৎ, আলোচিত ভিডিওটি পূর্বেও একাধিক দেশের দুর্যোগকালীন সময়ে সে দেশের ভিডিও হিসেবে ইন্টারনেটে প্রচারিত হয়েছে।

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে ভিডিওটির মূল পটভূমি বা এটি কোন দেশের তা নিশ্চিত করা সম্ভব না হলেও এটি নিশ্চিত করা গেছে যে ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ও ভারতে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড় রিমালের নয়।

মূলত, সম্প্রতি ঘূর্ণিঝড় রিমাল বাংলাদেশে আঘাত হানে, যার ফলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। এই পরিস্থিতিতে ইন্টারনেটে একটি ভিডিও প্রচারিত হয়, যেখানে দেখা যায় যে কয়েকজন শিশু বন্যার পানি থেকে বাঁচতে একটি নারিকেল গাছে আশ্রয় নিয়েছে। তবে রিউমর স্ক্যানারের অনুসন্ধানে দেখা যায় যে, এই একই ভিডিও বিগত কয়েক বছর যাবৎ একাধিক দেশের দুর্যোগকালীন সময়ে সেই দেশগুলোর ভিডিও হিসেবে প্রচারিত হয়েছে। ফলে নিশ্চিত হওয়া যায় যে, ভিডিওটি সম্প্রতি সময়ে ঘটা ঘূর্ণিঝড় রিমালের নয়।

সুতরাং, ঘূর্ণিঝড় রিমালের দৃশ্য দাবিতে বন্যা থেকে বাঁচতে শিশুদের নারিকেল গাছে আশ্রয় নেওয়ার পুরোনো একটি ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে; যা মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img