শনিবার, জুলাই 20, 2024
spot_img

বাগেরহাটের আমড়বুনিয়া গ্রামে অগ্নিসংযোগ দাবিতে প্রচারিত এই ভিডিওটি ভুয়া

সম্প্রতি, “ব্রেকিং নিউজ, বাংলাদেশের বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার আমড়বুনিয়া গ্রামে বহু হিন্দু বাড়িতে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাস্থলে রওনা দিয়েছেন পুলিশ সুপার।” শীর্ষক শিরোনামে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ও ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়েছে।

২ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড সময়কালের উক্ত ভিডিওকে বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার আমড়বুনিয়া গ্রামে বহু হিন্দু বাড়িতে আগুন দেয়ার ঘটনা বলে প্রচার করা হয়।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, প্রচারিত ভিডিওটি বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জের আমড়বুনিয়া গ্রামে বহু হিন্দু বাড়িতে দূর্বৃত্তদের আগুন দেয়ার কোনো ঘটনার নয় বরং এটি চট্রগ্রামে ফটিকছড়ির সমিতিরহাট ইউনিয়নে কবিরাজ বাড়িতে অগ্নিকান্ডের ভিডিও।

প্রচারিত ভিডিওটিতে ধারণকারী কর্তৃক আগুন লাগার স্থান উল্লেখ করার বিষয়টিকে সূত্র হিসেবে ধরে কি-ওয়ার্ড সার্চের মাধ্যমে, মুহাম্মদ. নাঈম ভুঁইয়া নামের একটি ফেসবুক অ্যাকাউন্টে গত ১৮ মার্চে “সমিতির হাটে পশ্চিম পাশে কবিরাজবাড়ি প্রকাশ হিন্দু বাড়িতে আগুন” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত মূল ভিডিওটি খুঁজে পাওয়া যায়। ভিডিওটির শিরোনাম থেকে জানা যায়, এটি চট্রগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার সমিতিরহাটের কবিরাজবাড়ি হিন্দু পাড়া নামের একটি স্থানে অগ্নিকাণ্ডের সময় ধারণকৃত একটি লাইভ ভিডিও।

পরবর্তীতে, কবিরাজ বাড়ি নামের উক্ত স্থানে অগ্নিকাণ্ডের কারণ সম্পর্কে অনুসন্ধান করতে গিয়ে মোঃ আয়নাল হাওলাদার নামের ফেসবুক আইডির একটি পোস্ট খুঁজে পাওয়া যায়।

উক্ত পোস্টে তিনি উল্লেখ করেন, (তার পোস্টটি শুদ্ধভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে)

“সমিতির হাট ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ডে হিন্দুপাড়ায় মধুর বাড়িতে বিদ্যুৎ শর্ট সার্কিটে আগুন লেগে পুড়ে ছারখার। খবর পেয়ে দ্রুত ছুটে আসেন এবং ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের আর্থিক সহযোগিতা করা হয়। দুর্যোগ মন্ত্রণালয় থেকে দুই বান্ডিল ঢেউটিন ও ৬ হাজার টাকা, উপজেলা পরিষদ ফটিকছড়ি থেকে ৫০০০ টাকা করে প্রতিটি পরিবারকে আর্থিক সহযোগিতা দেয়া হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, হোসাইন মোঃ আবু তৈয়ব সাহেব, চেয়ারম্যান উপজেলা পরিষদ ফটিকছড়ি। সুযোগ্য উপজেলা নির্বাহী অফিসার বীর মুক্তিযোদ্ধার কৃতি সন্তান কঠোর পরিশ্রমী ও সততার প্রতীক জনাব মোঃ মহিনুল হাসান স্যার ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম। মিসেস জেবুন নাহার মুক্তা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, উপজেলা পরিষদ ফটিকছড়ি এবং প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জনাব মোঃ আবুল হোসেন স্যার, ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম।”

অর্থাৎ, উপরোক্ত পোস্ট থেকে নিশ্চিত হওয়া যায় যে “সমিতির হাট পশ্চিম পাশে কবিরাজবাড়ি প্রকাশ হিন্দু বাড়িতে আগুন” শীর্ষক শিরোনামে প্রচারিত লাইভের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাটি ঘটেছিলো বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে।

এছাড়াও, উক্ত অগ্নিকাণ্ডে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারদের ফটিকছড়ি পূজা উদযাপন কমিটি এবং হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের তরফ থেকে সহযোগিতা করা নিয়ে একটি ভিডিও প্রতিবেদন ফটিকছড়ি সংবাদ নামের একটি ফেসবুক পেজে খুঁজে পাওয়া যায়।

মূলত, চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির সমিতির হাট ইউনিয়নের কবিরাজ বাড়ি নামের একটি স্থানে শর্ট সার্কিট থেকে ঘটা অগ্নিকাণ্ডের একটি ভিডিওকে বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার আমড়বুনিয়া গ্রামে বহু হিন্দু বাড়িতে আগুন দেয়া হয়েছে শীর্ষক দাবিতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে।

Also Read: রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু গ্রামে অগ্নিকান্ডের দৃশ্য দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি ভারতের ত্রিপুরার

উল্লেখ্য, বাগেরহাটের মোরলগঞ্জে ফেসবুকে ইসলাম ও মহানবী (সা.) কে অবমাননা করে স্ট্যাটাস দেয়ার অভিযোগে গতরাতে জনৈক কৌশিক বিশ্বাসের বাড়ির একটি খড়ের গাদায় আগুন এবং তার বাড়ি ও বাড়ির পার্শ্ববর্তী একটি মন্দিরে হামলা ও ভাংচুরের অভিযোগ উঠেছে। গত ১১ এপ্রিল সোমবার আনুমানিক রাত ১০ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। ইতিমধ্যে উক্ত ঘটনায় বিতর্কিত পোস্ট দেয়ার অভিযোগে যুবক কৌশিক বিশ্বাসকে আটক করেছে পুলিশ। এছাড়াও, হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় এখন পর্যন্ত সাতজনকে আটক করা হয়েছে এবং সন্দেহভাজন আরও কয়েকজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আমড়বুনিয়া
Screenshot from Newsbangla24

পুলিশ জানিয়েছে, আমড়বুনিয়া গ্রামের রমনি বিশ্বাসের ছেলে কৌশিক বিশ্বাস তার ব্যবহৃত ফেসবুক আইডি থেকে ধর্ম অবমাননার পোস্ট দেন বলে অভিযোগ ওঠে। বিষয়টি ছড়িয়ে পড়লে কৌশিক বিশ্বাসের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে স্থানীয় মুসল্লিরা সোমবার তারাবি নামাজের আগে মিছিল বের করেন। এক পর্যায়ে কৌশিক বিশ্বাসের বাড়িঘর ভাংচুর ও খড়ের গাদায় আগুন দেয়া হয়।

সুতরাং, বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার “আমড়বুনিয়া গ্রামে বহু হিন্দু বাড়িতে আগুন দেয়া হয়েছে” শীর্ষক দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি সম্পূর্ণ ভুয়া এবং তথ্যটি অতিরঞ্জিত।

[su_box title=”True or False” box_color=”#f30404″ radius=”0″]

  • Claim Review: বাংলাদেশের বাগেরহাট জেলার মোড়লগঞ্জ উপজেলার আমড়বুনিয়া গ্রামে বহু হিন্দু বাড়িতে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা
  • Claimed By: Facebook Posts
  • Fact Check: False

[/su_box]

তথ্যসূত্র

  1. মুহাম্মদ. নাঈম ভুঁইয়া FB Live:https://www.facebook.com/100005472465021/videos/906637343337728/
  2. আয়নাল হাওলাদার FB Post: https://www.facebook.com/100022216382018/posts/1141674289916440/
  3. ফটিকছড়ি সংবাদ Facebook Page:https://fb.watch/ckfXbrAZLD/
  4. Newsbangla24: ফেসবুকে ‘ধর্ম অবমাননা’: যুবক আটক, বাড়িতে ভাংচুর-আগুন
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img