শনিবার, জুলাই 20, 2024
spot_img

এমপি আনোয়ারুল আজীমের দেহাংশ পাওয়ার দাবিতে আরটিভির ফটোকার্ড বিকৃত করে প্রচার

ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম গত ১৩ মে কলকাতার নিউ টাউনের সঞ্জিভা গার্ডেনসের একটি ফ্ল্যাটে খুন হন। ২২ মে তাঁর খুন হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে দুই দেশের পুলিশ। এরই প্রেক্ষিতে সম্প্রতি আনোয়ারুল আজীম আনারের ছবি ব্যবহার করে “আনারের গোপনাঙ্গ পাওয়া গেছে শিলান্তির বাসায়” শীর্ষক শিরোনামে বা তথ্যে অনলাইন ভিত্তিক গণমাধ্যম আরটিভিরর ডিজাইন সম্বলিত একটি ফটোকার্ড সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক ও শর্ট ভিডিও শেয়ারিং প্ল্যাটফর্ম টিকটকে ছড়িয়ে পড়েছে। ফটোকার্ডটি পর্যবেক্ষণ করে এটি প্রকাশের তারিখ ০১ জুন, ২০২৪ উল্লেখ পাওয়া যাচ্ছে।

উক্ত ফটোকার্ড যুক্ত ফেসবুকে প্রচারিত পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)।

উক্ত ফটোকার্ড যুক্ত টিকটকে প্রচারিত পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ)।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, “আনারের গোপনাঙ্গ পাওয়া গেছে শিলান্তির বাসায়” শীর্ষক শিরোনামে বা তথ্যে আরটিভি কোনো সংবাদ বা ফটোকার্ড প্রকাশ করেনি বরং ভিন্ন একটি ফটোকার্ড ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনা করে আলোচিত ফটোকার্ডটি তৈরি করা হয়েছে। 

অনুসন্ধানের শুরুতে আরটিভির ফেসবুক পেজ এবং ওয়েবসাইট পর্যবেক্ষণ করে এমন দাবি সম্পর্কিত কোনো সংবাদ বা ফটোকার্ড পাওয়া যায়নি। তবে গত ০১ জুন আরটিভির ফেসবুক পেজে আনোয়ারুল আজীমের একই ছবিযুক্ত “আন্তর্জাতিক পরিসরে এমপি আনার হত্যা তদন্তের পদক্ষেপ” শীর্ষক শিরোনামে প্রকাশিত একটি ফটোকার্ড পাওয়া যায়। 

Photocard Comparison : Rumor Scanner

অর্থাৎ, উক্ত ফটোকার্ডটির শিরোনাম এডিট করে আলোচিত ফটোকার্ডটি তৈরি করা হয়েছে তা সহজেই অনুমেয়।

উক্ত পোস্টের মন্তব্যের ঘরে থাকা প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে কলকাতা থেকে এখন নেপালের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একটি দল। সেই প্রেক্ষিতে করা সংবাদ এটি।

মূলত, ঝিনাইদহ-৪ আসনের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যাকাণ্ডের তদন্ত করতে কলকাতা থেকে এখন নেপালের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের একটি দল। সেই প্রেক্ষিতে “আন্তর্জাতিক পরিসরে এমপি আনার হত্যা তদন্তের পদক্ষেপ” শীর্ষক শিরোনামে একটি ফটোকার্ড প্রকাশ করে মূলধারার গণমাধ্যম আরটিভি। পরবর্তীতে সেই ফটোকার্ডটি ডিজিটাল প্রযুক্তির সহায়তায় সম্পাদনা করে “আনারের গোপনাঙ্গ পাওয়া গেছে শিলান্তির বাসায়” শীর্ষক তথ্যে বা শিরোনামে প্রচার করা হয়।

সুতরাং, আনারের গোপনাঙ্গ পাওয়া গেছে শিলান্তির বাসায় শীর্ষক দাবিতে প্রচারিত আরটিভির ফটোকার্ডটি এডিটেড বা সম্পাদিত।

তথ্যসূত্র

হালনাগাদ/ Update

০৪ জুন, ২০২৪ : এই প্রতিবেদন প্রকাশ পরবর্তী সময়ে টিকটকে একই দাবি সম্বলিত ভিডিও আমাদের নজরে আসার প্রেক্ষিতে কতিপয় টিকটক পোস্টকে প্রতিবেদনে দাবি হিসেবে যুক্ত করা হলো।

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img