দুই লেজ বিশিষ্ট ফটোশপকৃত সাধারণ মাছের ছবিকে বাস্তব দাবিতে প্রচার

সুবাহানআল্লাহ —— আল্লাহ অসীম কুদরত প্রথম দেখলাম এমন মাছ শেয়ের করে অন্যদের দেখার সুযোক করে দিন” শীর্ষক শিরোনামের একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রচার হয়ে আসছে।

সম্প্রতি ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এবং এখানে। 
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে।

একই দাবিতে ২০১৭ সালে ফেসবুকে প্রচারিত এমন একটি পোস্ট দেখুন এখানে
পোস্টটির আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে।

একই দাবিতে ২০১৬ সালে ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে এবং এখানে
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে এবং এখানে।

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়আলোচিত মাছের ছবিটিতে পেট বরাবর দুই চোখ এবং দুই দিকে দুই লেজ থাকার বিষয়টি সত্য নয় বরং সাধারণ একটি মাছের ছবিকে এডিটের মাধ্যমে উক্ত ছবিটি তৈরি করা হয়েছে।

রিভার্স ইমেজ সার্চ পদ্ধতির মাধ্যমে ‘Tech-media-tainment’ নামক একটি ব্লগস্পট সাইটে ২০১৭ সালের ২৭ জুন “Lying clickbait: Outrageous aircraft, freaky fish and other Photoshop fails”  শিরোনামে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, “Worth 1000 নামক একটি ওয়েবসাইটের জন্য তৈরি করা আরেকটি ছবি “30 most dangerous species found on the planet” শিরোনামের একটি ক্লিকবেট নিবন্ধে দেখানো হয়েছে। ফটোশপ আর্ট একটি মিউট্যান্ট মাছকে তার এক পাশে চোখ দিয়ে চিত্রিত করেছে। আসল, অপরিবর্তিত ছবিটি Maj-Britt Hoiaas Lassen এর তোলা।”

উক্ত প্রতিবেদনের তথ্যের সূত্র ধরে ‘FreeImages’ নামক একটি ওয়েবসাইটের ‘dkmhl’ নামক অ্যাকাউন্টে “Fish free photo by dkmhl” শিরোনামে উক্ত মূল ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়। ছবিটির ক্যাপশনে মাছটির ছবি তুরস্ক থেকে তোলা হয়েছে বলে জানানো হয়।

‘dkmhl’ এবং ‘Maj-Britt Hoiaas Lassen’ যে একই ব্যক্তি সেটি পরবর্তীতে নিশ্চিত হওয়া যায় ‘Maj-Britt Hoiaas Lassen’ এর ফেসবুক অ্যাকাউন্টের url দেখে। তিনি ডেনমার্কের নাগরিক।

অনুসন্ধানে Worth1000 নামক ওয়েবসাইটটি খুঁজে পাওয়া যায়নি।

পরবর্তীতে জানা যায়, Worth1000 নামক জনপ্রিয় ডিজাইন কমিউনিটির ওয়েবসাইটটি ২০১৪ সালে ক্রয় করে নেয় অষ্ট্রেলিয়াভিত্তিক গ্লোবাল ক্রাউড সোর্সিং মার্কেট প্লেস DesignCrowd. Worth1000 এর সকল কন্টেন্টই DesignCrowd এর ওয়েবসাইটে পাওয়া যাচ্ছে বলে জানানো হয় DesignCrowd প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে

পরবর্তীতে ‘DesignCrowd’ এর ওয়েবসাইটে “Photoshop Submission for ‘Mutations 3’ Contest” শিরোনামে ফটোশপকৃত আলেচিত ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়।

ছবিটির ক্যাপশনে লেখা হয়, Quartarolo নামক একজন ব্রাজিলিয়ান ডিজাইনার উক্ত ছবিটি ২০০৮ সালের ২৭ জুলাই Mutation 3 নামক একটি প্রজেক্টের জন্য ফটোশপের মাধ্যমে তৈরি করেন।

অর্থাৎ, আলোচিত ছবির মাছটি আসল হলেও ফটোশপের মাধ্যমে মাছটিতে দুই লেজ এবং পেটের দিকে দুই চোখ যুক্ত করা হয়েছে।

পাকিস্তান সংবাদমাধ্যমে একই ছবির ব্যবহার

পাকিস্তানী সংবাদমাধ্যম ‘The Express Tribune’ ২০১৩ সালের ১ এপ্রিল “Mystery ‘fish’ on Karachi beach is a bad omen, say locals” শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। 

প্রতিবেদনে ফটোশপকৃত ছবিটি খুঁজে পাওয়া যায়। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, উক্ত ছবির মাছটি ক্লিফটন নামক একটি সমুদ্র সৈকত থেকে ধরা হয়েছে। এ বিষয়ে প্রতিবেদনে স্থানীয় এবং বিশেষজ্ঞদের মতামতও উল্লেখ করা হয়। কিন্তু প্রতিবেদনের শেষে উক্ত ঘটনাকে ‘এপ্রিল ফুল’ হিসেবে অভিহিত করা নয়। 

একই দিন ‘Defense Pakistan’ নামক আরেকটি ওয়েবসাইটেও একই প্রতিবেদন প্রকাশ করে এটিকে ফটোপশ কন্টেন্টের ছবি এবং এপ্রিল ফুল হিসেবে অভিহিত করা হয়।

মূলত, Maj-Britt Hoiaas Lassen নামক একজন নারী তুরস্কে একটি মাছের ছবি তোলেন। সেই ছবিটি ব্যবহার করে Worth1000 (বর্তমানে DesignCrowd এর অধীন) নামক একটি ওয়েবসাইটে ব্রাজিলিয়ান এক ডিজাইনার ফটোশপের মাধ্যমে মাছটির ছবিতে দুইটি লেজ এবং পেটের দিকে দুই চোখ যুক্ত করেন। কিন্তু সম্প্রতি উক্ত ফটোশপকৃত ছবিকে বাস্তব মাছের দাবিতে ফেসবুকে প্রচার করা হচ্ছে। 

সুতরাং, দুই লেজ বিশিষ্ট ফটোশপকৃত সাধারণ মাছের ছবিকে বাস্তব দাবিতে প্রচার করা হচ্ছে; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img