চাঁদের নিচে গ্রহ দেখা নিয়ে কিয়ামত বিষয়ে একটি সত্য এবং একটি বানোয়াট হাদিস প্রচার

সম্প্রতি আকাশে চাঁদের নিচে শুক্রগ্রহ দেখা যাওয়ার প্রেক্ষিতে ইসলাম ধর্মের হাদিসের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট দুইটি দাবি ছড়িয়ে পড়তে দেখেছে রিউমর স্ক্যানার।  

দাবি ১

চৌদ্দশ বছর আগে রাসূল সাল্লাহু সাল্লাম বলেছেন কিয়ামতের আগে প্রথম রোজা হবে শুক্রবার দিন আর চাঁদের নিচে তারা থাকবে এটা কিয়া-মতের একটি লক্ষণ।

দাবি ২

নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ ‘‘কিয়ামত নিকটবর্তী হওয়ার আলামত হচ্ছে, চন্দ্র মোটা হয়ে উদিত হবে। বলা হবে এটি দুই দিনের চাঁদ’’। তাবরানী। ইমাম আলবানী হাদীস টিকে সহীহ বলেছেন, সহীহুল জামে আস্ সাগীর, হাদীস নং- ৫৭৭৪।

উক্ত দাবিগুলোতে ছড়িয়ে পড়া কিছু ফেসবুক পোস্ট দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

একই দাবিতে ছড়িয়ে পড়া কিছু টিকটক ভিডিও দেখুন এখানে (আর্কাইভ), এখানে (আর্কাইভ) এবং এখানে (আর্কাইভ)। 

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে জানা যায়, সম্প্রতি আকাশে চাঁদের নিচে শুক্রগ্রহ দেখা যাওয়ার প্রেক্ষিতে ইসলাম ধর্মের হাদিসের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট যে দুইটি দাবি ছড়িয়েছে তার মধ্যে প্রথম দাবিটির অস্তিত্ব কোনো হাদিসে পাওয়া যায়নি বরং দ্বিতীয় দাবিটি গ্রহণযোগ্য হাদিস হিসেবে “সহিহুল জামে আস সাগীর” নামক একটি হাদিস গ্রন্থে উল্লেখ রয়েছে। 

গত শুক্রবার (২৪ মার্চ) প্রথম রমজানে সন্ধ্যার পর থেকে দেশের আকাশে ব্যতিক্রমী চাঁদ দেখা যায়। সাধারণত চাঁদের ওপরে তারা থাকলেও এই চাঁদের নিচে তারা দেখা গেছে। চাঁদের নিচে যে উজ্জ্বল তারা সদৃশ বিন্দু দেখা গেছে, তা হলো শুক্রগ্রহ। এই দৃশ্যকে ঘিরে পরবর্তীতে ইন্টারনেটে আলোচিত দাবিগুলো ছড়িয়ে পড়ে। 

প্রথম দাবি যাচাই

এ বিষয়ে অনুসন্ধানের শুরুতে ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলো পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, সেখানে আলোচিত হাদিসটির কোনো সূত্র উল্লেখ করা হয়নি৷ 

পরবর্তীতে কিওয়ার্ড সার্চ করে নির্ভরযোগ্য কোনো সূত্রেই এ সংক্রান্ত হাদিসের অস্তিত্ব মেলেনি। একাধিক হাদিস গ্রন্থ পর্যবেক্ষণ করেও রাসূল (সাঃ) এমন মন্তব্য করেছেন শীর্ষক কোনো তথ্য মেলেনি। 

পাশাপাশি হাদিস বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘Hadith Bd’ তেও কিওয়ার্ড সার্চ করেও উক্ত হাদিসের কোনো অস্তিত্ব মেলেনি। 

পরবর্তীতে রিউমর স্ক্যানার টিমের পক্ষ থেকে হাদিসবিডির প্রতিষ্ঠাতা রোকন উল হকের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, “এই ধরনের কোন বিশুদ্ধ হাদিস নেই। যইফ বা জাল হাদিস থাকতে পারে।” 

অর্থাৎ, রাসূল (সাঃ) ১৪শ বছর পূর্বে “কিয়ামতের আগে প্রথম রোজা হবে শুক্রবার দিন আর চাঁদের নিচে তারা থাকবে এটা কিয়া-মতের একটি লক্ষণ।” শীর্ষক মন্তব্য করেছেন মর্মে কোনো বিশুদ্ধ হাদিসের অস্তিত্ব মেলেনি। 

দ্বিতীয় দাবি যাচাই

এ বিষয়ে অনুসন্ধানে ছড়িয়ে পড়া পোস্টগুলো পর্যবেক্ষণ করে দেখা যায়, সেখানে আলোচিত হাদিসটির সূত্র হিসেবে “সহীহুল জামে আস্ সাগীর, হাদীস নং- ৫৭৭৪” শীর্ষক তথ্য উল্লেখ রয়েছে। 

পরবর্তীতে কিওয়ার্ড সার্চ করে ‘Hadith Bd’ এর ওয়েবসাইটে আলোচিত হাদিসটি খুঁজে পাওয়া যায়। 

হাদিসে বলা হয়েছে, “মাসের প্রথম দিন আমরা চাঁদকে একেবারে চিকন ও সরু অবস্থায় উঠতে দেখি। কিন্তু কিয়ামতের নিকটবর্তী সময়ে চাঁদ প্রথম দিনেই অনেক বড় হয়ে উদিত হবে। দেখে মনে হবে এটি দুই দিন বা তিন দিনের চাঁদ। নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ ‘‘কিয়ামত নিকটবর্তী হওয়ার আলামত হচ্ছে, চন্দ্র মোটা হয়ে উদিত হবে। বলা হবে এটি দুই দিনের চাঁদ।”

Screenshot source: Hadith bd

অর্থাৎ, “কিয়ামত নিকটবর্তী হওয়ার আলামত হচ্ছে, চন্দ্র মোটা হয়ে উদিত হবে। বলা হবে এটি দুই দিনের চাঁদ” শীর্ষক তথ্যটি “সহিহুল জামে আস সাগীর” নামক একটি হাদিস গ্রন্থে রয়েছে।

হাদিসটি কি গ্রহণযোগ্য? 

সহীহুল জামে আস্ সাগীর নামক হাদিসগ্রন্থে উল্লিখিত হাদিসটি গ্রহণযোগ্য কিনা তা জানতে রিউমর স্ক্যানার টিমের পক্ষ থেকে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের গবেষণা বিভাগের মুহাদ্দিস ড. ওয়ালীয়ুর রহমান খানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, হাদিসটি গ্রহণযোগ্য। 

তাছাড়া, হাদিসবিডির প্রতিষ্ঠাতা রোকন উল হকও আলোচিত হাদিসটি গ্রহণযোগ্য বলে রিউমর স্ক্যানারকে জানিয়েছেন। 

মূলত, গত ২৪ মার্চ রমজানের প্রথম দিনে আকাশে চাঁদের নিচে শুক্রগ্রহ দেখা যাওয়ার প্রেক্ষিতে ‘কিয়ামতের আগে প্রথম রোজা হবে শুক্রবারে ও চাঁদের নিচে তারা থাকবে’ শীর্ষক তথ্য মহানবী (সা.) ১৪শ বছর পূর্বে বলেছেন দাবিতে প্রচার করা হলেও বিভিন্ন ইসলামিক গবেষকের সাহায্যে জানা যায় যে বাস্তবে এমন কোনো হাদিসের অস্তিত্ব নেই। তবে “কিয়ামত নিকটবর্তী হওয়ার আলামত হচ্ছে, চন্দ্র মোটা হয়ে উদিত হবে। বলা হবে এটি দুই দিনের চাঁদ” শীর্ষক তথ্যটি ‘সহিহুল জামে আস সাগীর’ নামক একটি হাদিস গ্রন্থে রয়েছে। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে হাদিসটিকে গ্রহণযোগ্য হাদিস বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

সুতরাং, সম্প্রতি আকাশে চাঁদের নিচে শুক্রগ্রহ দেখা যাওয়ার প্রেক্ষিতে রাসূলের নাম উদ্ধৃত করে কিয়ামত বিষয়ে দুইটি হাদিস প্রচার করা হচ্ছে ; যার একটি সত্য ও অন্যটি মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img