কয়েক বছরে রেললাইনের বিভিন্ন স্পট থেকে প্রায় দেড়শ মৃতদেহ উদ্ধারের তথ্যটি বিভ্রান্তিকর

সম্প্রতি, “রাতের ট্রেনে যারা জার্নি করেন তারা সাবধান! ভয়ঙ্কর তথ্য জানালেন পুলিশের এসআই গত কয়েক বছরে রেললাইনের বিভিন্ন স্পট থেকে প্রায় দেড়শ মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সবচেয়ে বেশি মৃতদেহ পাওয়া যায় আখাউড়া- ভৈরব- কিশোরগঞ্জ- কসবা এবং বি-বাড়িয়া হয়ে নরসিংদী পর্যন্ত।” শীর্ষক তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

rail

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে। পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, গত কয়েক বছরে রেললাইনের বিভিন্ন স্পট থেকে প্রায় দেড়শ মৃতদেহ উদ্ধারের শীর্ষক ঘটনাটি সাম্প্রতিক সময়ের নয় বরং এটি যমুনা টিভির ক্রাইম সিন অনুষ্ঠানের একটি তথ্য যা ২০১৬ সাল থেকে ফেসবুকে প্রচার হয়ে আসছে।

অনুসন্ধানে দেখা যায়, একই তথ্য ২০১৬ সালের মার্চে Ovian নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে প্রচার করা হয়েছিলো যেখানে তথ্যটির কৃতিত্ব হিসেবে ‘এসআই ইমরান পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই), রংপুর!’ লেখা রয়েছে।

রেল
পোস্টটির আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে

পুলিশের উপপরিদর্শক (এস আই) ইমরানের বরাত দিয়ে লেখা এসব তথ্য সম্পর্কে জানার জন্য রিউমার স্ক্যানার টিম ফোনালাপে তার সাথে যোগাযোগ করে।

রিউমার স্ক্যানারঃ আপনার নাম ব্যবহার করে কতিপয় তথ্য ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে।  আপনি কি এ সম্পর্কিত তথ্য দিয়ে ফেসবুকে  পোস্ট করেছিলেন?

উপপরিদর্শকঃ পাঁচ বছর আগের একটা ফেসবুক পোস্ট থেকে নিয়েছিল। আমি পোস্ট করেছিলাম

রিউমার স্ক্যানারঃ আপনি এ তথ্যগুলো কিভাবে সংগ্রহ করেছিলেন?

উপপরিদর্শকঃ যমুনা টিভির একটা রিপোর্ট হয়েছিল এ ব্যাপারে। এটা আমার কোন তথ্য নয়৷ আমি সেটাই জাস্ট তুলে ধরেছিলাম। অনেকে আমার নাম দিয়েই তথ্যগুলো ভাইরাল করে দিয়েছে।

রিউমার স্ক্যানারঃ যমুনা টিভিতে রিপোর্টটি কি আপনি নিজে দেখেছিলেন?

উপপরিদর্শকঃ জ্বী। যমুনা টিভির ক্রাইম সিন অনুষ্ঠানে এসব তথ্য সম্বলিত একটি প্রতিবেদন ইউটিউবে দেখেছিলাম।

তার বক্তব্য থেকে বোঝা যায়, তথ্যগুলো তার নিজের অনুসন্ধান করা নয় এবং ২০১৬ সালের পুরনো পোস্ট।

পরবর্তীতে ঐ এসআই ইমরানের ‘Saleh Imran’ নামের ব্যক্তিগত ফেসবুকে পেজ খুঁজে পাওয়া যায় এবং তিনি তার পেজে ২০১৬ সালের ১৫ ই মার্চ আলোচিত বিষয়টি নিয়ে করা একটি পোস্ট পাওয়া যায়।

পরবর্তীতে যমুনা টিভিতে ক্রাইম সিন পরিচালনার সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন এমন একজন ব্যক্তি জনাব মনিরুল ইসলাম এর সাথে যোগাযোগ করে রিউমার স্ক্যানার টিম।

রিউমার স্ক্যানারঃ রাতের ট্রেনে যাত্রা ঝুঁকিপূর্ণ এমন বিষয়ে আপনারা কোনো প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিলেন? 

মনিরুল ইসলামঃ অনেক আগে আমাদের এই বিষয় সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ হয়েছিলো। তখন বিভিন্ন জায়গায় খুন হওয়া লাশকে এনে রেললাইনে রেখে যাওয়ার বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ঘটেছিলো।

রিউমার স্ক্যানারঃ বর্তমান সময়েও কি এমন ঘটনা ঘটছে বলে কোনো প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিলেন? 

মনিরুল ইসলামঃ না, সম্প্রতি এমন কোনো প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়নি। ওই প্রতিবেদনটি অনেক আগের ছিল।

পরবর্তীতে, Gunabati Railway Station নামের একটি ফেসবুক পেজে ২০১৬ সালের ১৫ই মার্চে প্রকাশিত যমুনা টিভির উক্ত ভিডিও প্রতিবেদনটি খুজে পাওয়া যায়। পোস্টটির আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে

মূলত, যমুনা টিভির ক্রাইম সিন নামক অনুষ্ঠানে ঢাকা চিটাগাং ট্রেন লাইন নিয়ে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রচার করা হয়। ২০১৬ সালের পূর্ববর্তী কয়েক বছরে এই লাইনের কিছু কিছু স্পটে প্রায় দেড়শ মৃতদেহ পাওয়া যেত এবং সবচেয়ে বেশি  আখাউড়া ভৈরব কিশোরগঞ্জ কসবা বি-বাড়িয়া হয়ে নরসিংদী পর্যন্ত রাস্তায় এ ঘটনাগুলো ঘটতো বলে যমুনা টিভির ক্রাইম সিনে দেখানো হয়। তখনকার সময়ে বিভিন্ন স্থানে ঘটা কয়েকটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা এবং সেসব লাশ রেললাইনে পাওয়া যাওয়ার বিষয় নিয়ে প্রতিবেদনটি করা হয়েছিলো। কিন্তু ঘটনাগুলো বর্তমানেও ঘটছে বলে কোনো প্রতিবেদন যমুনা টিভির ক্রাইম সিন প্রকাশ করেনি। বর্তমান সময়ে এইসব প্রাণহানির ঘটনা নিয়ে কোনো ধরণের প্রতিবেদন কোনো গণমাধ্যমেই প্রকাশিত হয়নি। অর্থাৎ, ২০১৬ সালের একটি পুরোনো তথ্যকে পুনরায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে।

সুতরাং, কয়েক বছরে রেললাইনের বিভিন্ন স্পট থেকে প্রায় দেড়শ মৃতদেহ উদ্ধারের তথ্যটি সম্পূর্ণ বিভ্রান্তিকর।

তথ্যসূত্র

  1. 2016 Facebook Post – https://www.facebook.com/groups/pabnaGroup/posts/1452165955228025/
  2. SI Imran Statement
  3. SI Imran’s Facebook Post – https://www.facebook.com/100001702097901/posts/pfbid03ZH8NrwybrHdRfNRDYEtyivoipYBAR3wWoWbqKNEk3tHemSD2UP3NCY5H7bYKjJ2l/ 
  4. Jamuna TV Statement
  5. Jamuna TV video –  https://www.facebook.com/watch/?v=965604903533596
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img