বুধবার, ফেব্রুয়ারি 21, 2024
spot_img

আর্জেন্টিনা-সৌদি আরব ম্যাচের রেফারিকে সাময়িক বরখাস্ত করেনি ফিফা

সম্প্রতি “কাতার প্রযুক্তি এই গোলটা ধরতে পারলো না, তিনটা অফসাইড গোল্ড ধরলো কি করে, আর্জেন্টিনার লিগাল ২টি গোল বাতিল করায় রেফারীকে  সাময়িক বরখাস্ত করেছে ফিফা। রেফারি হাতে ধরে সৌদি আরব কে জিতিয়ে দিয়েছে।এইগুলো কারো চোখে পরে না” শীর্ষক একটি তথ্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

ফেসবুকে প্রচারিত এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে
পোস্টগুলোর আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে, এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্টচেক

রিউমর স্ক্যানার টিমের অনুসন্ধানে দেখা যায়, আর্জেন্টিনা-সৌদি আরব ম্যাচের রেফারিকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়নি বরং কোনো প্রকার গ্রহণযোগ্য তথ্যসূত্র ব্যতীত তথ্যটি প্রচার করা হচ্ছে।

কি-ওয়ার্ড সার্চ পদ্ধতি ব্যবহার করে, দেশীয় এবং আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে এজাতীয় কোনো তথ্য খুঁজে পাওয়া যায়নি।

এছাড়াও, ফিফা’র অফিশিয়াল সাইট ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এরকম কোনো তথ্য পাওয়া যায়নি।

মূলত, গত ২২ নভেম্বর আর্জেন্টিনা-সৌদি আরবের ম্যাচে আর্জেন্টিনার তিনটি গোল অফসাইডে বাতিল হয়। এছাড়াও সৌদি আরবের গোল কিপার এবং একজন খেলোয়াড় কর্তৃক গোল সেইভ করার সময়ে তাদেরকে গোললাইনের মধ্যে দেখা যায় এমন ছবি শেয়ার করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দাবি করা হয় ”এই ঘটনাগুলো শনাক্ত করে সঠিক সিদ্ধান্ত না দিতে পারার কারণে এই ম্যাচের রেফারিকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে ফিফা।” 

উল্লেখ্য, ম্যাচটিতে সৌদি আরবের কাছে ২-১ গোলে হেরে যায় আর্জেন্টিনা। এছাড়াও এবারই প্রথম বিশ্বকাপে অফসাইড নির্ধারণে থ্রিডি প্রযুক্তি ব্যবহার করছে ফিফা। এই ম্যাচের রেফারি ছিলেন রেফারি স্লাভকো ভিনসিচ। ইউরোপিয়ান দেশ স্লোভেনিয়ায় জন্ম ও বেড়ে ওঠেন ভিনসিচ। দেশটির ফুটবলে অন্যতম সেরা রেফারি হিসেবে স্বীকৃত তিনি। ২০১০ সাল থেকে ফিফা ম্যাচে রেফারির দায়িত্ব পালন করছেন ৪২ বছর বয়সী এই ব্যক্তিত্ব। গত ইউরোপা লিগের ফাইনাল ম্যাচও পরিচালনা করেন ভিনসিচ। এছাড়াও, ২০২০ সালে বসনিয়ার বিয়েইনা শহরের একটি কেবিন থেকে ভিনসিচকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। মাদক, অস্ত্র চোরাচালান ও যৌনকর্মী চক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে পরে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে ছেড়ে দেয় পুলিশ। 

প্রসঙ্গত, বিশ্বকাপ ফুটবল-২০২২ সম্পর্কিত বিভিন্ন তথ্য ও ছবি নিয়ে ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি ফ্যাক্ট-চেক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রিউমর স্ক্যানার।

সুতরাং, কোনো প্রকার গ্রহণযোগ্য তথ্যসূত্র ছাড়াই দাবি করা হচ্ছে আর্জেন্টিনা-সৌদি আরব ম্যাচের রেফারিকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে ফিফা; যা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তথ্যসূত্র

RS Team
RS Team
Rumor Scanner Fact-Check Team
- Advertisment -spot_img
spot_img
spot_img